রাজপথে নেমে পড়লে বিএনপিকে সরানোর ক্ষমতা কারো নেই

প্রকাশ:| শনিবার, ৩০ আগস্ট , ২০১৪ সময় ১১:১১ অপরাহ্ণ

মিরসরাই (চট্টগ্রাম) সংবাদদাতা

আ স ম হান্নানগণতন্ত্রকে হত্যা করে সরকার নিজ দলের নেতাকর্মী এবং স্বজনদের উন্নয়নে ব্যস্ত হয়ে পড়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আ স ম হান্নান শাহ। তিনি বলেন, জনগনের ভোটের অধিকার ছিনতাই করে কথিত সরকার গঠনের পর এখন তারা উন্নয়নের নামে লুটপাট করছে। নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলনের মাধ্যমে এই সরকারকে নির্দলীয় তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচনে বাধ্য করা হবে। রাজপথে নেমে পড়লে বিএনপিকে সরানোর ক্ষমতা কারো নেই। ১৯৭৩ সালের নির্বাচনের উদাহরণ দিয়ে তিনি বলেন দলীয় সরকারে অধীনে সুষ্টু নির্বাচন সম্ভব নয়।

শনিবার (৩০আগষ্ট) চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে এক মেজবান অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব মন্তব্য করেন তিনি। বড়তাকিয়া গ্রুপের চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম ইউসুফের বাড়িতে আয়োজিত মেজবানে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. মঈন খানও উপস্থিত ছিলেন।

সম্প্রচার নীতিমালা প্রসঙ্গে বলেন, যে আইনের উপকারিতা নেই, তার প্রয়োজনও নেই। সম্প্রচার নীতিমালা অনুমোদনের ফলে সাংবাদিকদের স্বাধীনতা হরণ হয়েছে দাবি করে তিনি বলেন, আগে তো আপনারা (সাংবাদিকরা) নারায়ণগঞ্জের সাত খুনের রিপোর্ট করতে পেরেছেন। আগামীতে ১৭ খুন হলেও লিখতে পারবেন না।’ নিজেদের সুবিধা আদায়ের লক্ষে বিচারকদের অভিশংসনের ক্ষমতা সংসদকে ফিরিয়ে দেয়া হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন হান্নান শাহ।

চট্টগ্রাম উত্তর জেলা বিএনপির আহ্বায়ক আসলাম চৌধুরী, বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য কামাল উদ্দিন চৌধুরী, উত্তর জেলা বিএনপির সাবেক যুগ্ম সম্পাদক আবদুল আউয়াল চৌধুরী, মিরসরাই উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক নুরুল আমিন, যুগ্ম আহ্বায়ক শাহীদুল ইসলাম চৌধুরীসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।