রাঙ্গুনিয়ায় আবাসিক হোটেলে অনৈতিক কর্মকান্ড

প্রকাশ:| শনিবার, ২৪ আগস্ট , ২০১৩ সময় ০৮:৩৪ অপরাহ্ণ

বাধা দেওয়ায় ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দের উপর হামলা
রতিবাদে সড়ক অবরোধ, দোকান পাট বন্ধ

মাসুদ নাসির,রাঙ্গুনিয়া,নিউজচিটাগাং২৪.কম।।2উত্তর চট্রগ্রামের বাণিজ্যিক প্রান কেন্দ্র চন্দ্রঘোনা লিচুবাগানে মেঘনা বোর্ডিং এ দীর্ঘদিন যাবত মাদক বিক্রি, সন্ত্রাসীদের আশ্রয়, অনৈতিক কর্মকান্ড বেপারোয়া ভাবে চালিয়ে আসছে। এই ঘটনায় সন্ধ্যায় ব্যবসায়ী সমিতির কার্যালয়ে সাংবাদিক সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। গতকাল শনিবার সকালে হোটেলে অনৈতিক কর্মকান্ডের সময় দুইজন যুবক যুবতীতে এলাকাবাসী আটক করলে ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ খবর পেয়ে সেখান থেকে তাদের উদ্ধার করে সমিতি অফিসে নিয়ে আসে। এতে মেঘনা হোটেলের মালিক মো. আবছার লিচুবাগান ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. লোকমান তালুুকদারকে কিরিচ দিয়ে হামলা করার জন্য এগিয়ে আসে। সাধারণ ব্যবসায়ীদের হস্তক্ষেপে বড় ধরনের ঘটনা থেকে রক্ষা পায়। এর কিছুক্ষন পর ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদককে হামলা করা জন্য হোটেল মালিক আবছার ১৫/২০জন সন্ত্রাসী ও মাদক সেবনকারী এনে জড়ো করে হামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে খবরে সাধারণ ব্যবসায়ীরা এর প্রতিবাদে লিচুবাগানের প্রায় ৭শত দোকান বন্ধ করে দেয়। শত শত ব্যবসায়ীরা এর প্রতিবাদ ও হোটেল মালিককে গ্রেফতারের দাবীতে চট্টগ্রামÑকাপ্তাই সড়ক অবরোধ করে। পুরো চন্দ্রঘোনা জুড়ে বিক্ষোভ মিছিল করে কাপ্তাই সড়কে প্রতিবাদ সমাবেশ করে। প্রতিবাদ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন ব্যবসায়ী সমিতির উপদেষ্টা অধ্যাপক এবিএম সাইফুল্লাহ, এতে বক্তব্য রাখেন সমতির সভাপতি মো. হারুন সওদাগর, সাধারণ সম্পাদক লোকমান তালুকদার, জালাল উদ্দিন আহমদ প্রমুখ। ঘন্টাখানেক পরে পুলিশ এসে অনৈতিক কর্মকান্ড বন্ধের আশ্বাসে সড়ক থেকে অবরোধ তুলে নেয়। এ সময় পুরো বাণ্যিজিক এলাকায় থমতমে পরিস্থিতি বিরাজ করে। সকাল ১০টা থেকে দুপুর ২টা পযর্ন্ত সমস্ত দোকান বন্ধ থাকায় লিচুবাগান অচল হয়ে পড়ে। দুপুর ১টায় হোটেল মালিক আবছার ব্যবাসয়ী নেতৃবৃন্দকে ১০ মিনিটের মধ্যে জানে মেরা ফেলা হবে বলে হুমকি প্রদান করলে এই সময় সময় সাধারণ ব্যবসায়ীরা তাকে ধরে ব্যবসায়ী সমিতির অফিসে নিয়ে আসে। এ সময় পুলিশ এসে আবছারকে সমিতি অফিস থেকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। এ সময় আবছারে কাছে ধারালো দুটি বড় ধরণের কিরিচ উদ্ধার করা হয়। সমিতির পক্ষ থেকে হোটেল মালিক আবছারের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করার প্রক্রীয়া চলছে বলে জানা যায়।
লিচুবাগান ব্যবসায়ী সমিতর সভাপতি মো হারুন সওদাগর জানান. দীর্ঘদিন যাবত হোটেলে মাদক বিক্রি ও অনৈতিক কর্মকান্ডের কারনে অপরাধীদের স্বর্গরাজ্যে পরিণত হয়েছে। ব্যবসায়ী সমিতি এসব কর্মকান্ড বন্ধের প্রতিবাদ করলে হোটেল মালিক সমিতির নেতৃবৃন্দের উপর হামলার চেষ্টা করে। সাধারণ ব্যবসায়ীরা এতে প্রতিবাদ জানায়।
রাঙ্গুনিয়া থানার এস আই মো. মনির জানান, অবৈধ ও অনৈতিক কর্মকান্ডে বাধা প্রদান করায় লিচুবাগান ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক লোকমান তালুকাদারের উপর হামলা করলে হোটেল মালিক আবছারকে দুটি কিরিচসহ আটক করা হয়। এ বিষয়ে থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। পরিন্থিতি এখন স্বাভাবিক রয়েছে।
এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে লিচুবাগান ব্যবসায়ী সমিতি সন্ধ্যায় তাদের কার্যালয়ে এক সাংবাদিক সম্মেলনের আয়োজন করে। সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সমিতির সভাপতি মো. হারুন সাওদাগর। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সমিতির সাধারণ সম্পাদক, লোকমান তালুকদার, সহসভাপতি নাছির, যুগ্ন সম্পাদন হামিদ আলমগীর, সাংগঠনিক সম্পাদক, শহিদুল ইসলাম, অর্থ সম্পাদক, নেজাম, ক্রীড়া সম্পাদক শাহেদ, দপ্তর সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম প্রমুখ। সাংবাদিক সম্মেলনে সমিতির নেতৃবৃন্দ লিচুবাগান বাণিজ্যিক কেন্দ্রকে অপরাধ মুক্ত রাখার জন্য সাংবাদিকদের সহযোগীতা কামনা করেন।