রাঙামাটি সদরে গুলি করে হত্যা

প্রকাশ:| সোমবার, ৯ ফেব্রুয়ারি , ২০১৫ সময় ১১:০৪ অপরাহ্ণ

রাঙামাটি সদরে সিএনজি চালিত অটোরিকশা চালককে গুলি করে হত্যা করেছে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা।

সোমবার রাত আটটার দিকে উপজেলার সাপছড়ি ইউনিয়নের খামারপাড়া এলাকায় এ হত্যার ঘটনা ঘটে।

নিহতের নাম বাবুগুলো চাকমা (২২)। তিনি লংগদু উপজেলার বরাদম এলাকার বাসিন্দা। কিছুদিন ধরে ঘিলাছড়ির হাজাছড়া পূর্বপাড়ায় একটি বাসা ভাড়া নিয়ে থাকতেন। মাস তিনেক আগে ওই এলাকায় বিয়ে করেন।

স্থানীয়রা জানায়, রাত পৌনে আটটার দিকে ইউপিডিএফ নিয়ন্ত্রিত খামারপাড়া এলাকায় একটি চায়ের দোকানে বসে চা পান করছিলেন বাবুগুলো চাকমা। হঠাৎ দুটি সিএনজি অটোরিকশায় করে কয়েকজন সশস্ত্র পাহাড়ি সন্ত্রাসী তাকে লক্ষ্য করে ব্রাশফায়ার করে দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যান বাবুগুলো চাকমা।

ইউপিডিএফের পক্ষ থেকে নিহত ব্যক্তিতে ‘সাধারণ নাগরিক’ দাবি করে হত্যাকাণ্ডের জন্য সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন পার্বত্য চট্টগ্রাম জনসংহতি সমিতিকে দায়ী করা হয়েছে।

সংগঠনটির ছাত্র সংগঠন পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের রাঙামাটি জেলা সভাপতি বাবলু চাকমা বলেন, ‘আমরা নিশ্চিত হয়েছি, সন্তু লারমার সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা এ হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে। এ ঘটনায় জড়িতদের দ্রুত গ্রেপ্তার ও বিচার দাবি করছি।’

তবে জনসংহতি সমিতির মুখপাত্র ও কেন্দ্রীয় কমিটির সহ তথ্য ও প্রচার সম্পাদক সজীব চাকমা অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘ঘটনাস্থল ইউপিডিএফ নিয়ন্ত্রিত। সেখানে এ ধরণের কোনো ঘটনার সঙ্গে আমাদের জড়িত থাকার প্রশ্নই আসে না। তিনি ইউপিডিএফের অভিযোগকে ভিত্তিহীন দাবি করে বলেন, ‘জনসংহতি সমিতির ভাবমূর্তি নষ্ট করার জন্য ইউপিডিএফ সবসময়ই এ ধরণের অভিযোগ করে থাকে।’

রাঙামাটি পুলিশ সুপার তারেক সাঈদ হাসান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘ঘটনাস্থলে ফোর্স গেছে। স্থানীয় স্থানীয় ও প্রত্যক্ষদর্শীদের সঙ্গে কথা বলে প্রকৃত ঘটনা জানার চেষ্টা করা হবে। সেনাবাহিনীকে জানানো হয়েছে বিষয়টি। তাদের টহল টিমও সেখানে পৌছেছে।’