রাঙামাটি জেলার ৪০টি মণ্ডপে অনুষ্ঠিত হবে দুর্গাপূজা

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ১৪ সেপ্টেম্বর , ২০১৭ সময় ০৭:১৭ অপরাহ্ণ

সার্বজনীন শারদ উৎসব বা দুর্গাপূজা। আগামী ২৫ সেপ্টেম্বর মহাপঞ্চমীর মধ্য দিয়ে শুরু হবে এই পূজা। এবার রাঙামাটি জেলার ৪০টি মণ্ডপে অনুষ্ঠিত হবে দুর্গাপূজা।

 

এর মধ্যে রাঙামাটি সদরে ১৪টি, কাপ্তাই উপজেলায় ৭টি, কাউখালি উপজেলায় ৪টি, বাঘাইছড়ি উপজেলায় ৪টি, রাজস্থলী উপজেলায় ৩টি, লংগদু উপজেলায় ২টি, নানিয়ারচর উপজেলায় ২টি, বিলাইছড়ি উপজেলায় ১টি, জুড়াইছড়ি উপজেলায় ১টি, বরকল উপজেলায় ২টি মন্ডপে পূর্জা অনুষ্ঠিত হবে।

 

ইতিমধ্যে শেষ হয়েছে প্রতিমা তৈরির কাজ। চলছে প্রতিমাকে রঙ লাগানোসহ সাজসজ্জার কাজ, বলা যেতে পারে প্রায় শেষ মুহূর্ত্বে প্রস্তুতি নিচ্ছে সকলে।

 

রাঙামাটি গীতাশ্রম মন্দিরের পূজা উদ্যাপন কমিটির সাধারণ সম্পাদক রকি দেবনাথ (পিংকু) বলেন, ইতালির রোম শহরে প্রাকৃতিক দুর্যোগে যে ধংস হয়েছিলো তাতে মা যেভাবে এসে রক্ষা করেছিলো তাই ফুটিয়ে তুলতে চাইছি প্রতিমার মাধ্যমে। মা তার সন্তানদের রক্ষার জন্য যে ভাবে আগমন করেছে সে রূপ সকলের মাঝে তুলে ধরার চেষ্ঠা করছি আমরা।

 

তিনি আরো বলেন, এই প্রতিমা তৈরি করতে আমরা প্রায় ১৫ লক্ষ টাকার বাজেট করেছি। রাঙামাটির সব চেয়ে বড় দুর্গা উৎসব হবে এখানে। হাজারো মানুষের সমাগম হবে আমাদের এই মন্দিরে, তাই সব কিছু মাথায় রেখে সুষ্ঠভাবে উৎসব পালনের জন্য ব্যবস্থা করা হচ্ছে। প্রতিমা তৈরির কাজ শেষ এখন শুধুমাত্র রঙ লাগানোর কাজ আর কিছুটা সাজসজ্জার কাজ বাকি রয়েছে।

 

 

তিনি জানান, মহালয়ার দিন মন্দিরে দরিদ্রদের মাঝে বস্ত্র বিতরণ, পঞ্চমীর দিন সংগীত সন্ধ্যা, অষ্টমীর দিন চন্ডীযোগ্য সহ নানান কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হবে।

 

কালিন্দাপুর দূর্গা পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি সুনিল কান্তি পাল বলেন, আমরা প্রতিবারের মত সামাজিক রুপে প্রতিমাকে তৈরি করেছি। আমাদের কাজ প্রায় শেষ মুহূর্তে, বাকি আছে প্রতিমাকে রঙ করা আর কিছু সাজসজ্জার কাজ। প্রতিবারের মত এবারো নবমীর দিন প্রসাদ বিতরণ করা হবে বলেও জানান তিনি।

 

কালীবাড়ি মন্দিরের দূর্গা পূজা উদ্যাপন কমিটির সভাপতি রতন কুমান দে বলেন, আমরা প্রতিবারের মত এবারও সনাতন ধর্মের নিয়ম অনুসারে প্রতিমা তৈরি করেছি। আমাদের প্রতিমা তৈরির কাজ শেষ। মন্দিরের সাজসজ্জার আর প্রতিমাকে সাজানোর কাজ বাকি রয়েছে। আশা করছি সার্বজনীন এই উৎসব সুষ্ঠভাবে উদযাপন করতে পারবো।

 

বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ রাঙামাটি জেলার সাধারণ সম্পাদক পঞ্চানন্দ ভট্টাচার্য জানান, এবারে মা দুর্গা আসছেন নৌকায় চড়ে আর গমন করবেন ঘোড়ায় চড়ে। মাকে বরণ করার জন্য রাঙামাটি প্রতিটি পূজা মণ্ডপ প্রস্তুত। রাঙামাটি জেলায় ৪০টি মণ্ডপে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে।

 

তিনি আরো বলেন, দুর্গাপূজা হচ্ছে সর্বজনীন উৎসব। এটি যদিও হিন্দু সম্প্রদায়ের ধর্মীয় অনুষ্ঠান, তবে উৎসব হচ্ছে সকলের। রাঙামাটিতে বিভিন্ন সম্প্রদায় ও জাতির বসবাস, সকলে মিলে প্রতিবছর আমরা সুষ্ঠভাবে এই উৎসব উদযাপন করে আসছি। তাই আশা করি এবারও আমরা সকলে মিলেমিশে এ উৎসব উদ্যাপন করবো। দুর্গাপূজা সঠিকভাবে উদযাপনের জন্য সকল বিষয়ে প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।