রাঙামাটিতে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ২৬ মার্চ , ২০১৫ সময় ০৫:১৩ অপরাহ্ণ

রাঙামাটিতে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনাএম.নাজিম উদ্দিন,রাঙামাটিঃ সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য ফিরোজা বেগম চিনু পার্বত্যাঞ্চলের যুদ্ধোপরাধীদের চিহ্নিত করার জন্য মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন। বর্তমানের সরকার যুদ্ধপরাধীদের বিচারের সাথে সাথে ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে একটি মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করতে অনেক দূর অগ্রসর হয়েছে। কিন্তু একটি রাজাকর গোষ্ঠী বিএনপি-জামায়তের নামে দেশে অরাজকতা সৃষ্টি করে চলেছে। স্বাধীন দেশে এসব ষড়যন্ত্রকারীদের হাতে আজও বাংলাদেশের মানুষ জিম্মি হয়ে আছে। তাদের প্রতিহত করতে ঐক্যবদ্ধভাবে পার্বত্যাঞ্চলের মুক্তিযোদ্ধা ও সচেতন নাগরিকদের এগিয়ে আসার আহবান জানান তিনি। বৃহষ্পতিবার রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের উদ্দ্যেগে বীর মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যবর্গদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সাংসদ ফিরোজা বেগম চিনু এসব কথা বলেন। এসময় রাঙামাটি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা ও নব নিযুক্ত চেয়ারম্যান বৃষকেতু চাকমা,জেলা প্রশাসক সামসুল আরেফিন,জেলা পুলিশ সুপার সাঈদ তারিকুল হাসান,সদস্য শামীম রশীদ,জেলা পরিষদের মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম জাকির হোসেন,রাঙামাটি জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার রবার্ট রনাল পিন্টু উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে রাঙামাটি জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নিখিল কুমার চাকমা বলেন,আমি রাঙামাটি জেলা পরিষদের দায়িত্ব পালন কালে চেষ্ঠা করেছি মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারদের সর্বত্বক সহযোগিতা করেতে। তিনি নব নিযুক্ত চেয়ারম্যায়কে পরিষদের বিভিন্ন নিয়োগের ক্ষেত্রে মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের সন্তানদের অগ্রাধিকার দেওয়ার আহবান জানান। নবনিযুক্ত চেয়ারম্যান বৃষকেতু চাকমা বলেন,পার্বত্যাঞ্চলে সুবিধা বঞ্চিত মানুষকে সাহয্য-সহযোগিতা করে আমার উপর অর্পিত দায়িত্ব পালন করার চেষ্টা করবো। বিশেষ করে শিক্ষা, স্বাস্থ্য,কৃষিসহ সকল উন্নয়নে পার্বত্য অঞ্চলকে এগিয়ে নিতে পরিষদকে সহযোগিতা করার জন্য সকলে প্রতি আহবান জানান তিনি।
রাঙামাটি জেলা প্রশাসক সামসুল আরেফিন বলেন,রাঙামাটিতে বসবাসরত মুক্তিযোদ্ধাদের জমির সংক্রান্ত যেসব জটিলতা রয়েছে জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে জেলা পরিষদের সাথে আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে দ্রুত নিরসণ করা হবে। আলোচনা সভা শেষে রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদের পক্ষ থেকে বীর মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারদের আর্থিক সহয়তা প্রদান করা হয়। এর আগে দিবসটি উপলক্ষে ভোরে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ হতে শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে পুষ্পমাল্য দেয়া হয়।