রাউজানে স্কুল ছাত্রী অপহরণ, বিশ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবী

প্রকাশ:| শনিবার, ১৭ আগস্ট , ২০১৩ সময় ১০:০৭ অপরাহ্ণ

শফিউল আলম, রাউজান>> অপহরণরাউজান উপজেলার চিকদাইর ইউনিয়নের চিকদাইর মুন্সি গোমস্তার বাড়ীর শামশুল আলমের কন্যা সন্তান রাউজান আর আর এস সি উচ্চ বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণীর ছাত্রী শারমিন আকতারকে গত শুক্রবার বিকাল সাড়ে চারটার সময় বাড়ীর সামনে থেকে জোরপুর্বক অপহরণ করে মাইক্রোবাস যোগে নিয়ে যায় । অপহরণের শিকার স্কুল ছাত্রীর ভাই সাইফুলের বন্দ্বু ঢাকা মহনগরীর সুত্রাপুর এলাকার রাসেল ও তার সহযোগীরা অপহরণ করে বলে অপহৃত শারমিনের বড় বোন রুবি আকতার অভিযোগ করে বলেন । শারমিনের ভাই সাইফুল ঢাকা মহনগরীর সুত্রাপুর এলাকায় বিদেশে শাক সব্জি রফতানীকারকের দোকানে চাকুরী করেন । সাইফুল সুত্রাপুর এলাকায় চাকুরী করার সুবাদে সুত্রাপুর এলাকার রাসেলের সাথে বন্দ্বুত্ব গড়ে উঠে । সাইফুলের বন্দ্বু হিসাবে রাসেল একাধিকবার ঢাকা থেকে চট্টগ্রাম জেলার রাউজান উপজেলার চিকদাইর সাইফুলের বাড়ীতে বেড়াতে আসেন । সেই পরিচয়ের সুত্র ধরে রাসেল গত শুক্রবার বিকালে তার কয়েকজন সহয়োগীকে নিয়ে একটি মাইক্রোবাস নিয়ে রাউজানের চিকদাইর সাইফুলের বাড়ীতে আসেন । গত শুক্রবার বিকাল সাড়ে চারটার সময় বাড়ীতে কেউ না থাকা অবস্থায় স্কুল ছাত্রী শারমিন বাড়ীতে কে এসেছে ঘর থেকে বের হয়ে বাড়ীর সামনে গেলে শারমিনের ভাইয়ের বন্দ্বু রাসেলকে দেখতে পেয়ে স্কুল ছাত্রী শারমিন এগিয়ে গেলে রাসেল শারমিনকে জোরপুর্বক মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে উদ্যেশ্যে চলে যাওয়ার সময়ে শারমিনের ছোট ভাই মনির দেখে বাড়ীর অদুরে দাড়িয়ে থাকা অবস্থায় । বাড়ীতে তার পিতা শামশুল আলম, ও পরিবারের অনান্য সদস্যরা আসলে মনির এই ঘটনা জানালে তারা বিভিন্ন এলাকায় খোজঁ করে শারমিনের কোন খোজ পায়নি । গতকাল শনিবার সকালে অজ্ঞাত স্থান থেকে রাসেল ফোন করে অপহৃত স্কুল ছাত্রী শারমিনের ভাই সাইফুলকে স্কুল ছাত্রী শারমিনের মুক্তি দিতে বিশ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দাবী করেন, মুক্তিপণের টাকা না দিলে তার বোনকে হত্যা করা হবে হুমকি প্রদান করেন বলে অপহৃতার বোন রুবি আকতার জানান
এব্যাপারে অপহৃত স্কুল ছাত্রী শারমিনের বড় বোন রুবি আকতার বাদী হয়ে রাউজান থানায় মামলা করেন । রাউজান থানার ওসি এনামুল হক বলেন স্কুল ছাত্রী শারমিনের অপহরণের ঘটনার ব্যাপারে অপহৃত শারমিনের বড় বোন রুবি আকতার বাদী হয়ে অভিযোগ করেছেন । অপহরণের ঘটনায় মামলা নেওয়া হচ্ছে বলে ওসি এনামুল হক জানান ।