সন্ধ্যায় রাউজানের মুন্সিরঘাটা সহ কয়েকটি এলাকায় ককটেল বিস্ফোরণ

প্রকাশ:| সোমবার, ৪ নভেম্বর , ২০১৩ সময় ১১:৩৫ অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিনিধি, রাউজান>গতকাল সোমবার সারাদেশ ব্যাপী ১৮ দলের ডাকা ৬০ ঘন্টাব্যাপী হরতালের প্রথম দিনে সারা দিন রাউজানে দুর পাল্লার যানবাহন চলাচল ব্যতিত সিএনজি অটোরিক্সা, জীপ, বিক্সা চলাচল স্বাভাবিক ছিল ।হরতাল চলাকালে রাউজানের অফিস আদালত, শিক্ষা প্রতিষ্টান, ব্যবসা প্রতিষ্টান খোলা ছিল ।

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

হরতাল চলাকালে রাউজানের কোথা ও বিএনপির নেতা কর্মীদের পিকেটিং করতে দেখা যায়নি । সন্ধ্যায় রাউজানের কয়েকটি এলাকায় ককটেল বিস্ফোরনের শব্দ শুনা যায় । সন্দ্ব্যা গড়িয়ে রাতের শুরুতে রাউজান উপজেলা সদরের মুন্সির ঘাটাস্থ আওয়ামী লীগ অফিসের নিচে রাত আটটার সময় সিএনজি অটোরিক্সা থেকে পর পর দুইটি ককটেল ছুড়ে মারে কয়েকজন । তাদের নিক্ষিপ্ত দুইটি ককটেল বিস্ফোরণ হওয়ার শব্দে এলাকার লোকজনের মধ্যে ব্যাপক আতংকের সৃষ্টি হয় । ককটেল বিস্পোরণ ঘটিয়ে বিস্ফোরণকারীরা সিএনজি অটোরিক্সা নিয়ে পালিয়ে যায় । ককটেল বিস্ফোরণ ঘটানোর পর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শফিকুল ইসলাম চৌধুরী ও উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জমির উদ্দিন পারভেজের নেতৃতে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগের নেতা কর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল ্ করেন । বিক্ষোভ মিছিল শেষে ককটেল বিস্ফোরনের সাথে জড়িতদের গ্রেফতার করার জোর দাবী জানান । গতকাল সন্দ্ব্যায় রাউজান উপজেলা আওয়ামী লীগের কার্য্যলয়ের নিচে সহ বিভিন্ন এলাকায় ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা সর্ম্পকে রাউজান থানার ওসি এনামুল হকের কাছে জানতে চাইলে তিনি এ ব্যাপারে কিছুই জানেনা বলে জানিয়ে আওয়ামী লীগ নেতাদের কাছ থেকে সংবাদ নিতে বলে মোবাইল ফোনের লাইন কেটে দেয় । রাউজান উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শফিকুল ইসলাম চৌধুরী জানান রাত আটটার সময় অফিসের নিচে সিএনজি অটোরিক্সা থেকে দুইটি ককটেল ছুড়ে বিস্ফোরণ ঘটিয়ে সন্ত্রাসীরা অটোরিক্সা যোগে পালিয়ে যায় ।