রাউজানে শাহনাজ বেগমকে আদালতে সোর্পদ

প্রকাশ:| শুক্রবার, ১৭ অক্টোবর , ২০১৪ সময় ০৯:৩৭ অপরাহ্ণ

শফিউল আলম, রাউজান ঃ

রাউজানের চিকদাইরে স্ত্রী শাহানাজ বেগম নিজ স্বামী দুধু মিয়াকে হত্যা করে লাশঁ ঘরের মধ্যে পুতেঁ রাখার ঘটনায় মামলা খুনি শাহনাজ বেগমকে আদালতে সোর্পদ খুনের ঘটনায় এলাকার লোকজনের ক্ষোভ হত্যা কান্ডের সাথে জড়িত খুনিদের দৃষ্টাস্তমুলক শাস্তির দাবী জানিয়েছে এলাকাবাসী । রাউজান চিকদাইর ইউনিয়নের দক্ষিন সর্তা গ্রামের তারা মিয়া মেম্বার বাড়ীর টুনু মিয়ার পুত্র সিএনজি অেেটা রিক্সা চালক দুধু মিয়াকে তার স্ত্রী শাহনাজ বেগম ঈদুল আজহার দিন দিবাগত রাতে ঘুমের মধ্যে ধারালো দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে তার লাশ ঘরের পার্শ্বে রান্না ঘরে গর্ত করে মাটির মধ্যে পুঁতে রাখেন । গত ১৬ আক্টোবর বৃহস্পতিবার সকালে শাহনাজ বেগমকে ধরে পুলিশ ও এলাকার লোকজন ধরে জিজ্ঞাসাবাদ করলে শাহনাজ বেগম তার স্বামী দুধু মিয়াকে হত্যা করার কথা স্বীকার করে । শাহানাজ বেগমের দেওয়া তথ্যমতে ঘরের পার্শ্বে রান্না ঘরের মধ্যে গর্ত থেকে দুধু মিয়াল লাশ উদ্বার করেন পুলিশ । লাশেঁর ময়সা তদন্ত করার পর গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে অটোরিক্সা চালক দুধু মিয়ার লাঁশ রাউজানের চিকদাইর দক্ষিন সর্তা গ্রামে জানাজার নামাজ শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয় । দুধু মিয়ার হত্যাকান্ডের ঘটনায় নিহত দুধু মিয়ার বোন তারা বানু বাদী হয়ে রাউজান থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন । মামলায় শাহনাজ বেগমকে আসামী করে অজ্ঞাতনামা আরো কয়েকজনকে আসামী করা হয়েছে বলে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা রাউজান থানার এস আই খলিল জানান । গতকাল শুক্রবার সিএনজি অটোরিক্সা চালক দুধু মিয়ার হত্যাকারী শাহনাজ বেগমকে রাউজান থানা পুলিশ আদালতে সোর্পদ করে সাতদিনের রিমান্ডের আবেদন জানিয়েছেন বলে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস আই খলিল জানান । রাউজানের চিকদাইরের দক্ষিন সর্তা এলাকায় স্ত্রী শাহনাজ বেগম তার স্বামী সিএনজি অটোরিক্সা চালক দুধু মিয়াকে হত্যা করে তার লাশঁ ঘরের মধ্যে পুঁতে রাখার দশদিন পর লাশঁ উদ্বারের ঘটনায় এলাকার লোকজনের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে । নিহত সিএনজি অটোরিক্সা চালক দুধু মিয়ার হত্যাকারী স্ত্রী শাহনাজ বেগম দুধু মিয়াকে রাতে ঘুমন্ত অবস্থায় একা হত্যা করেছে বলে দাবী করছেন । হত্যকান্ডের পর চায়ের দোকানের কর্মচারী বাবলুকে দুই হাজার টাকা দিয়ে ঘটনার দিন রাতে ঘরের পার্শ্বে রান্না ঘরের মধ্যে গর্ত খনন করে দুধু মিয়ার লাশ পুতেঁ ফেলে বলে শাহনাজ বেগম পুলিশের কাছে স্বীকার করার পর পুলিশ বাবলুকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ । স্থানীয় চিকদাইর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কাজী দিদারুল আলম দুধু মিয়ার হত্যাকারী তার স্ত্রী শাহনাজ বেগমের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবী জানিয়েছে ।


আরোও সংবাদ