রাউজানে শত বসরের পুরাতন পুকুর জোর পুর্বক ভরাটের অভিযোগ

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| শুক্রবার, ২৫ মে , ২০১৮ সময় ১০:২২ অপরাহ্ণ

শফিউল আলম, রাউজানঃ রাউজানে দরিদ্র গ্রাম পুলিশের পৈতৃক শত বৎসরের পুকুর জোর পুর্বক ভরাট ও পুকুরের পাড়ের গাছ কেটে নেওয়ার অভিযোগ । রাউজান উপজেলার ৭ নং রাউজান ইউনিয়নের মোহাম্মদপুর গ্রামের গ্রাম পুলিশ হাবিব ও তার বংশধরদের ১শত বৎসরের পুরাতন পুকুর ভরাট করে পুকুর পাড় থেকে জোরপুর্বক গাছ কেটে নেওয়ার অভিযোগ করে গ্রাম পুলিশ মোঃ হাবিব । গ্রাম পুলিশ হাবিব অভিযোগ করে বলেন, আমার পুর্ব পুরুষেরা তাদের জমিতে একটি মসজিদ প্রতিষ্টা করে । মসজিদটি খোন্দকার মসজিদ হিসাবে নামকরন করা হয় । মসজিদটি পরবর্তী মসজিদের মুসল্লীদের অনুরোধে মোহাম্মদপুর কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ নামকরন করে আমার বড় ভাই শাহাজাহান আকবরের কাছ থেকে দস্তখত নিয়ে । মসজিদের সামনে শত বৎসরের পুরাতন আমাদের মৌরশী একটি পুকুর । পুকুরের মালিক আমি ও ভাই ও আমার বংশধরেরা । পুকুরটির পাড়ে আমি আমার ভাইয়েরা বিভিনন্ন প্রজাতির গাছের চারা রোপন করি । মসজিদ কমিটির সভাপতি গোলাপর রহমান ও তার কয়েকজন সহযোগীরা আমার পুর্ব পুরুষের মালিকানাধীর পুকুর ভরাট করে ফেলে পুকুরের একাংশ ।

পুকুরের পাড়ে আমাদের রোপন করা বিভিন্ন প্রজাতির গাছ গত ২৫ মে শুক্রবার বিকালে ভাড়াটিয়া লোকজন দিয়ে জোর পুর্বক কেটে ফেলে । পুকুর পাড় থেকে অর্ধশতাধিক বিভিন্ন প্রজাতির চারাগাছ কেটে নেয় জোর পুর্বক । এসময়ে আমি বিষয়টি রাউজান উপজেলা নির্বাহী অফিসার শামীম হোসেন রেজাকে ফোন করে জানায় । উপজেলা নির্বাহী অফিসার শামীম হোসেন রেজা ফোন করে ৭ নং রাউজান ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বিএম জসিম উদ্দিন হিরুকে গাছ কাটা বন্দ্ব করার ব্যবস্থা গ্রহন করার নির্দেশ দেয় । উপজেলা নির্বাহী অফিসার শামীম হোসেন রেজার নির্দেশ পেয়ে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান বিএম জসিম উদ্দিন হিরু উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জিল্লুর রহমান মাসুদকে পাঠিয়ে পুকুর পাড় থেকে গাছ কাটা বন্দ্ব করার জন্য বললে ও চেয়ারম্যানের নির্দেশ অমান্য করে পুকুর পাড় থেকে গাছ কেটে ফেলে । এ ব্যাপারে মসজিদ পরিচালনা কমিটির সভাপতি গোলাপর রহমানের কাছে ফোন করে জানতে চাইলে ূূূূূূূূূূূূূূূূমসজিদ কমিটির সভাপতি গোলাপর রহমান বলেন, আমি জুমার নামাজ পড়ে মসজিদ থেকে বাড়ীতে চলে আসি । এসময়ে মুসল্লীরা সকলেই পুকুর পাড়ের গাছ কেটে ফেলে । পুকুর পাড়ের যে স্থান থেকে গাছ কাটা হয়েছে সেই জায়গা গ্রাম পুলিশ হাবিবেব ফুফাত ভাই নুর হোসেন, আানোয়ার মিয়া ও তার ভাই ও বোন থেকে মসজিদের নামে ক্রয় করা হয়েছে বলে দাবী করেন মসজিদ কমিটির সভাপতি গোলাপর রহমান । এ ব্যাপারে রাউজান উপজেলা নির্বাহী অফিসার শামীম হোসেন রেজা বলেন, পুকুর পাড় থেকে গাছ কেটে নেওয়ার বিষয়ে আমাকে জানালে আমি বিষয়টি স্থানীয় চেয়ারম্যানকে ফোন করে গাছ কাটা বন্দ্বের জন্য নির্দেশ প্রদান করি । রাউজান ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বিএম জসিম উদ্দিন হিরু বলেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার শামীম হোসেন রেজা ফোন করে গাছ কাটা বন্দ্ব করার নির্দেশ দেওয়ার পর আমি আমার লোক পাঠিয়ে গাছ কাচা বন্দ্ব করতে বললে ও তার আমার নির্দেশ অমান্য করে মসজিদের নাম দিয়ে পুকুর পাড় থেকে গাছ কেটে ফেলে । পুর্বে পুকুরটি ভরাট করার বিষয়ে আমাকে কেউ অভিযোগ করেনি ।
,


আরোও সংবাদ