রাউজানে বিদ্যুৎ লাইন নির্মাণকে কেন্দ্র করে সংর্ঘষ: আহত ৮

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| বুধবার, ১২ সেপ্টেম্বর , ২০১৮ সময় ০৬:৪৬ অপরাহ্ণ

শফিউল আলম, রাউজান ঃ রাউজানের হলদিয়ায় বিদ্যুৎ লাইন নির্মানকে কেন্দ্র করে সংঘষে আহত ৫ জন । ১২ সেপ্টেম্বর বুধবার দুপুর পৌনে একটার সময়ে রাউজানের হলদিয়ার ভট্টপাড়ায় এই ঘটনা সংগঠিত হয় । রাউজান উপজেলার হলদিয়া ইউনিয়নের আমির হাটের পুর্ব পাশের্^ ভট্র পাড়ায় মনিন্দ্র লাল ভট্টচার্য এর বসতভিটার উপর দিয়ে প্রতিবেশী স্বপন দে, রতন দে, অপু ঘোষ, নিপু ঘোষ, সুমন ঘোষ তাদের বাড়ীতে বিদ্যুৎ এর লাইন নিতে চাইলে হলদিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি রুনু ভট্টচার্য এর বৃদ্ব পিতা মনিন্দ্র লাল ভট্টচার্য বাধা দেয় । এসময়ে প্রতিবেশী স্বপন দে, রতন দে, অপু ঘোষ, নিপু ঘোষ, সুমন ঘোষ সহ তাদের পরিবারের সদস্যরা দা লাঠি নিয়ে ৮৫ বৎসরের বৃদ্ব মনিন্দ্র লাল ভট্টচার্যের উপর হামলা করে । হামলার ঘটনার সময়ে বৃদ্ব মনিন্দ্র লাল ভট্টচার্যকে হামলা থেকে রক্ষা করতে নাতি মিন্টু ভট্টচার্য, বাবলা ভট্টচার্য ও তাদের মাতা শিখা রানি ভট্টচার্য দৌড়ে আসলে তাদের উপর হামলা করে প্রতিবেশী স্বপন দে, রতন দে, অপু ঘোষ, নিপু ঘোষ, সুমন ঘোষ সহ তাদের পরিবারের সদস্যরা । হামলার ঘটনার সংবাদ পেয়ে রাউজান উপজেলা সদর থেকে মনিন্দ্র লাল ভট্টচার্য এর পুত্র হলদিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি রুনু ভট্টচার্য ঘটনাস্থলে পৌছলে তার উপর ও হামলা করে প্রতিবেশীরা । হামলার ঘটনায় মনিন্দ্র ভট্রচার্য, শিখা রাণী ভট্রচার্য মিন্টু ভট্রচার্য্য, বাবলা ভট্টচার্য ও রুনু ভট্টচার্য আহত হয় । ঘটনার সংবাদ পেয়ে এলাকার লোকজন এসে আহত ৫জনকে রাউজান উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যায় । হামলার ঘটনায় আহত ৫জনের মধ্যে জনের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় মনিন্দ্র ভট্রচার্য, শিখা রাণী ভট্রচার্য মিন্টু ভট্রচার্য্য, বাবলা ভট্টচার্যকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পরার্মশ দেয় রাউজান উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দায়িত্বরত চিকিৎসক । হামলার ঘটনায় আহত আওয়ামী লীগ নেতা রুনু ভট্টচার্য বলেন. আমার বসত ভিটার উপর দিয়ে মনিন্দ্র ভট্রচার্য, শিখা রাণী ভট্রচার্য মিন্টু ভট্রচার্য্য, বাবলা ভট্টচার্য প্রতিবেশী স্বপন দে, রতন দে, অপু ঘোষ, নিপু ঘোষ, সুমন ঘোষ সহ তাদের পরিবারের সদস্যরা তাদের বাড়ীতে জোরপুর্বক বিদ্যুৎ লাইন নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে আমার বৃদ্ব পিতা বাধা দিয়ে প্রতিবেশী স্বপন দে, রতন দে, অপু ঘোষ, নিপু ঘোষ, সুমন ঘোষ সহ তাদের পরিবারের সদস্যরা আমার ৮৫ বৎসর বয়সের পিতা মনিন্দ্রলাল ভট্টচার্য ও আমার পরিবারের সদস্যদের উপর হামলা করে । ঘটনার সংবাদ পেয়ে আমি ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে আমাকে মারধর করে । আওয়ামী লীগ নেতা রুনু ভট্টচার্য অভিযোগ করে বলেন চট্টগ্রাম পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি ২ এর কর্মকর্তারা স্থানীয় দালালদের মাধ্যমে প্রতিবেশী স্বপন দে”র কাছ থেকে ২০ হাজার টাকা উৎকোচ নিয়ে আমার পৈতৃক বসতভিটার উপর দিয়ে জোরপুর্বক বিদ্যুৎ লাইন নিয়ে যাওয়ার প্রচেষ্টা কালে আমার পরিবারের সদস্যরা বাধা দেয় । অপর দিকে প্রতিবেশী স্বপন দে অভিযোগ করে বলেন, আমার বসতবাড়ীতে বিদ্যুৎ লাইন নির্মান করার জন্য পল্লী বিদুৎ সমিতির ঠিকাদারের লোকজন গেলে তাদের বাধা দেয় আওয়ামী লীগ নেতা রুনু ভট্টচার্য ও তার পরিবারের সদস্যরা । এই সময়ে উভয়ের মধ্যে সংর্ঘষের ঘটনা ঘটে । সংর্ঘষে স্বপন দে,রতন দে, সহ তার পরিবারের তিন সদস্য আহত হয় । ঘটনার ব্যাপারে রাউজান থানার সেকেন্ড অফিসার এস আই নুর নবীর কাছে জানতে চাইলে এস আই নুর নবী বলেন, ঘটনার সংবাদ পেয়ে পুলিশ আহতদের দেখতে হাসপাতালে যায় । আহতদের চিকিৎসা করার কারনে গতকাল ১২ সেপ্টেম্বর বিকাল ৪ টা পর্যন্ত সময়ে থানায় আহত ব্যক্তিদের পরিবারের পক্ষ থেকে কোন মামলা বা অভিযোগ করে।


আরোও সংবাদ