রাউজানে দরিদ্র পরিবারের জন্য ২শত ৫২ টি ঘর নির্মাণ

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ১৬ আগস্ট , ২০১৮ সময় ০৭:৫৭ অপরাহ্ণ

শফিউল আলম, রাউজান ঃ জমি আছে ঘর নাই প্রধান মন্ত্রীর প্রকল্পের আওতায় রাউজানে ২শত ৫২ টি ঘর নির্মান করে দিচ্ছে দরিদ্র পরিবারের সদস্যদের । রাউজান উপজেলার ১৪টি ইউনিয়নের ১শত ৩৬টি ্ওয়ার্ডে জমি আছে ঘর নাই প্রধান মন্ত্রীর প্রকল্পের আওতায় প্রতি ওয়ার্ডে দুইজনকে টিনের বেড়া, টিনের ছাউনি, পাকা পিলার দিয়ে চৌচালা ঘর নির্মান করে দেওয়া হচ্ছে।প্রতিটি ঘর নির্মানের জন্য ১লাখ টাকা বরাদ্ব দেওয়া হয়েছে । রাউজানে ২শত ৫২ টি ঘর নির্মান বাবদ ২ কোটি ৫২লাখ টাকা ব্যায় করা হচ্ছে । রাউজানের হলদিয়া ইউনিয়নের গর্জনিয়া এলাকার কবির আহম্মদের মাটির গুদাম টিনের ছাউনিযুক্ত বসতঘর ছিল । প্রবল বর্ষন ও পাহাড়ী ঢলের শ্রোতের পানি নেমে সর্তার খালের ভাঙ্গন সৃষ্টি হয় বর্ষার মৌসুমে । সর্তার খালের ভাঙ্গন দিয়ে পাহাড়ী ঢলের শ্রোতের পানি প্রবেশ করে পানির শ্রোতে কবির আহম্মদের মাটির গুদাম টিনের ছাউনিযুক্ত বসতঘরটি বিধস্থ হয় । কবির আহম্মদের বসতঘর বিধস্থ হওয়ার পর কবির আহম্মদ তার পরিবারের সদস্যদের নিয়ে ভাড়া ঘরে বসবাস করে । ঘর আছে জমি নেই প্রধান মন্ত্রীর প্রকল্পের আওতায় কবির আহম্মদকে তার বিধস্থ বসতঘরের পাশের্^, টিনের বেড়া ও টিনের ছাউনি দিয়ে ঘর নির্মান করে দেওয়ায় বসতঘর হারানো কবির আহম্মদ ও তার পরিবারের সদস্যরা মাথা গোজাঁর স্থান হয়েছে । দরিদ্র কবির আহম্মদ বলেন, আমার ঘর বাড়ী বিধস্থ হওয়ার পর আমি আমার পরিবারের সদস্যদের নিয়ে বাসা ভাড়া করে বসবাস করে আসছি । প্রধান মন্ত্রীর জমি আছে ঘর নেই প্রকল্পের আওতায় আমাকে ঘর নির্মান করে দেওয়ায় আমি আমার পরিবারের সদস্যরা বসবাসের ঠিকানা হলো । রাউজান উপজেলা নির্বাহী অফিসার শামীম হোসেন রেজা বলেন, আমি নিজেই তদারকি করে জমি আছে ঘর নেই প্রধান মন্ত্রীর প্রকল্পের আওয়তায় ২ কোটি ৫২ লাখ টাকা ব্যয়ে রাউজানের ১৪টি ইউনিয়নের ১শত ৩৬টি ওয়ার্ডে ২শত ৫২ পরিবারকে ঘর নির্মান করে দেওয়া হচ্ছে । ইতিমধ্যে ১শতাধিক পরিবারের ঘর নির্মান কাজ শেষ হয়েছে । অবশিষ্ট ১শত ৫২টি পরিবারের বসতঘর নির্মানের কাজ চলছে ।


আরোও সংবাদ