রাউজানে চারটি ড্রেজার মেশিন ধংস

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| বুধবার, ৩১ জানুয়ারি , ২০১৮ সময় ১২:০৫ পূর্বাহ্ণ

শফিউল আলম, রাউজান ঃ রাউজান উপজেলার হলদিয়া ইউনিয়নের হলদিয়া, বইজ্যার হাট, গর্জনিয়া, উত্তর সর্তা, এলাকায় সর্তা খাল থেকে পওযার পাম্প বসিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করছে অর্ধ শতাধিক স্পটে । একই ভাবে হলদিয়া ইউনিয়নের বৃকবানুপুর, বৃন্দ্বাবনপুর, জানিপাথর এলাকায় ডাবুয়া খাল থেকে পাওয়ার পাম্প বসিয়ে বালু উত্তোলন করা হছে । এলাকার প্রভাবশালী ব্যক্তিরা কোন প্রকার ইজারা না নিয়ে সর্তা খাল ও ডাবুয়া খাল থেকে অবৈধ ভাবে বালু উত্তোলন করে আসছে । সর্তা খাল থেকে বালু উত্তোলন করার ফলে হলদিয়া বইজ্যার হাট এলাকায় হলদিয়া ভিলেজ রোড সহ এলাকার বাসিন্দ্বাদের বসতভিটা সর্তা খালের ভাঙ্গনের কবলে পড়ে শতাধিক পরিবারের বসতঘর খালের মদ্যে বিলিন হয়ে পড়েছে । গত বর্ষার মৌসুমে পাহাড়ী ঢলের শ্রোতের পানিতে সর্তা খালের দশটি স্পটে ভেঙ্গে পাহাড়ী ঢলের শ্রোতের পানিতে দুইজানের মৃত্যু হয় । পাহাড়ী ঢলের শ্রোতের পানির শ্রোতে হলদিয়া ইউনিয়ন পরিষদ ভবন, হলদিয়া ভিলেজ রোড, হজরত আলী হোসেন শাহ সড়ক, সহ আড়াই শতাধিক পরিবারের বসতঘর বিধস্থ হয় । একইভাবে পাওয়ার পাম্প দিয়েউত্তর আইলী খীল সড়কের উপর ডাবুয়া খালের উপর ্ব্রীজের নিচ থেকে বালু উত্তোলনের ফলে গত বর্ষার মৌসুমে ব্রীজটি ধসে যায় । গত ২৯ জানুয়ারী সোমবার বিকাল থেকে গতকাল ৩০ জানুয়ারী মঙ্গলবার বিকাল পর্যন্ত রাউজান উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যজিষ্ট্রেট শামীম হোসেন রেজা ও রাউজান উপজেলা সহকারী কমিশনার ভুমি জোনায়েদ কবির সোহাগ পুলিশের সহায়তায় রাউজান উপজেলা প্রশাশন, ভুমি অফিসের কর্মকর্তা কর্মচারীদের নিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন কারী বিরুদ্বে অভিযান পরিচালন করে । অভিযান চলাকালে বালু ু উত্তোলনকারীরা পালিয়ে যায় । অবৈধভাবে বালু উত্তোলন কাজে ব্যবহৃত পাওয়ার পাম্প ও পাইপ ধংস করে ভ্রাম্যমান আদালত । রাউজান উপজেলা নির্বাহী অফিসার শামীম হোসেন রেজা ও উপজেলা সহকারী কমিশনার ভুমি জোনায়েদ কবির সোহাগ বলেন, সর্তা খাল থেকে কোন বারু মহল ইজারা না নিয়ে খালে পাওয়ার পাম্প বসিয়ে বালু উত্তোলন করায় এলাকার মানুষের বসত ঘর, ফসলী জমি, সড়ক খালের ভাঙ্গনে বিলিন হয়ে পড়েছে । অপরদিকে ইজারা না নিয়ে বালু উত্তোলন করায় সরকার বিপুল পরিমাণ রাজস্ব আয় হারাচ্ছে । এই অভিযান চলবে বিরামহীন ভাবে ।


আরোও সংবাদ