রাউজানে ইউনিপের ট্রেনার রহিমের মালামাল অবশেষে জব্দের নির্দেশ

প্রকাশ:| শনিবার, ২০ জুলাই , ২০১৩ সময় ১১:১৫ অপরাহ্ণ

শফিউল আলম ,নিউজচিটাগাং২৪.কম।।রাউজানসহ চট্টগ্রামের কয়েক হাজার পরিবারের টাকা ইউনিপে, ডেসটিনি, নিউওয়েসহ ইউনিপেবিভিন্ন এমএলএমের মাধ্যমে আত্মসাৎকারী ইউনিপের ট্রেনার আবদুল হালিম রহিম (২৯) এর সম্পদ অবশেষে জব্দের নির্দেশ দিয়েছে আদালত। রাউজান থানা পুলিশ উপজেলার পূর্ব গুজরা ইউনিয়নের মদিনা আবাসিকস্থ রহিমের ঘরের সম্পদ জব্দের জন্য বেশ কয়েকবার আসলেও রহিমের ঘর তালাবদ্ধ থাকায় মালামাল জব্দ করতে পারে নি। মালামাল জব্দের জন্য আসা এস.আই কামরুল ইসলাম গতকাল শনিবার এ প্রতিবেদককে বলেন, চট্টগ্রাম আদালতে টাকা আত্মসাতের অভিযোগ এনে এক ব্যক্তি রহিমের বিরুদ্ধে মামলা করলে তার বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারী পরোয়ানা জারি করে আদালত। এরপর প্রতারক রহিম পলাতক থাকায় আদালত তার স্থাবর ও অস্থাবর সকল সম্পত্তি জব্দের নির্দেশ দিলে এ বিষয়ে একটি প্রতিবেদন আদালতে পাঠানো হয়। এরপর সংবাদপত্রে বিজ্ঞপ্তি প্রচার করে বিচারকার্য সম্পন্ন হবে। এবং পুলিশকে আদালত দেখামাত্র গুলির নির্দেশ (হুলিয়া) দিতেও পারে বলেও তিনি জানান।
উল্লেখ্য উপজেলার পূর্ব গুজরার বড়ঠাকুর পাড়ার বাসিন্ধা সৌদি প্রবাসি আবুল কাসেমের ছেলে রহিম, জসিম ও সেলিম ইউনিপেসহ বিভিন্ন কথিত এমএলএম ব্যবসার সাথে দীর্ঘদিন থেকে জড়িত হয়ে এলাকার লোকদের এমএলএমে জড়িত হওয়ার জন্য প্রশিক্ষণ দিত। এছাড়াও এসব এমএলমের নাম দিয়ে কয়েক হাজার পরিবারের টাকা আত্মসাৎ করে পলাতক হয়ে যায়। এসব অপকর্ম ঢাকতে তার পিতা সৌদি প্রবাসি কাসেমের ২য় স্ত্রীর সাথে পরিবেশ ও বনমন্ত্রী ড.হাসান মাহমুদের স্ত্রীর বোন পরিচয়ে নানা ভাবে বিভিন্ন গ্রাহকদের হুমকি দুমকিও দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে। এমনকি বিভিন্ন সময় স্থানীয় ও জাতীয় পত্রিকায় এসব অপকর্মের বিরুদ্ধে সংবাদ পরিবেশিত হলে সংবাদে বক্তব্য প্রদানকারীদেরও হুমকি দিয়ে শাসিয়ে দেওয়ার অভিযোগ রয়েছে। এদিকে রহিমের বিরুদ্ধে আদালত মালামাল জব্দের নির্দেশ দেওয়ায় রহিমের হাতে প্রতারিত ব্যক্তিদের স্বস্তি এসেছে। তারা রহিমের বিরুদ্ধে যথাযত ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্ট প্রশাসন এগিয়ে আসারও আহ্বান জানান। বিষয়টি নিয়ে গতকাল শনিবার রাউজান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এনামুল হকের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, প্রতারক রহিমের বিরুদ্ধে আদালত কয়েক দফা ওয়ারেন্ট দিলে তিনি পলাতক থাকায় আটক করতে পারে নি পুলিশ। তাই আদালত তার মালামাল জব্দের নির্দেশ দেয়। উল্লেখ্য ইউপের কোন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে রাউজানে এ প্রথম মালামাল জব্দের নির্দেশ প্রদান করেন আদালত।


আরোও সংবাদ