রাউজানের হিংগলা মসজিদে ক্যালেন্ডার নিয়ে মুনিরিয়া ও গাউছিয়া সংঘর্ষ,আহত ১৫

প্রকাশ:| বুধবার, ১৭ জুলাই , ২০১৩ সময় ০৭:৩৪ অপরাহ্ণ

শফিউল আলম, নিউজচিটাগাং২৪.কম।। রাউজানের হিংগলা নতুন পাড়া জামে মসজিদে ইফতারের ক্যালেন্ডার লাগানোকে newschittagong24.comকেন্দ্র করে দুই গ্র“পের সংঘর্ষ আহত আট জন । রাউজানের হিংগলা নতুন পাড়া জামে মসজিদে গত ১৫ জুলাই কাগতিয়া এশাতুল উলুম কামিল মাদ্রাসার ইফতারের ক্যালেন্ডার লাগাানোর সময় হিংগলা নতুন পাড়া এলাকার বাস্দ্বিা গাউছিয়ার সর্মর্থক আবুতাহের ও তার ছেলে মঞ্জু ন ক্যালেন্ডার লাগানো মুনিরিয়ার সমর্থকদের বাধা প্রদান করলে উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয় ও হাতাহাতি হয় । এই ঘটনার পর মসজিদ পরিচলনা কমিটির সভাপতি হাজী আহাম্মদ কবির প্রকাশ বাবুল মসজিদ থেকে গাউছিয়া কমিটি ও মুনিরিয়ার ইফতারের ক্যালেন্ডার সরিয়ে নেয় । এঘটনাকে কেন্দ্র করে গত ১৬ জুলাই মঙ্গলবার দিবাগত রাত ৮ টার সময় মসজিদ মাঠে স্থানীয় মেম্বার নুরুল আলম প্রকাশ মিয়া সওদাগর এর নেতৃত্বে এক সমঝোতা বৈঠক বসে । বৈঠকে মুনিরিয়ার ও গাউছিয়া কমিটির লোকজন উপস্থিত ছিলৈন বৈঠকে উভয় পক্ষের মধ্যে কথাকাটাকাটির জের ধরে সংঘর্ষ শুরু হয় । এসময় মসজিদের মাইকে ডাকাত এসেছে এলাকার লোকজনকে এগিয়ে আসার আহবান করলে এলাকার লোকজন মহিলা পুরুষ দা ছুরি লাঠি হাতে নিয়ে বের হয়ে মুনিরিয়িার লোকজনকে অতর্কিত ভাবে হামলা করে বলে হামলায় আহত মুনিরিয়ার সর্মথক কামাল উদ্দিন জানান । স্থানীয় মেম্বার নুরুল আলম প্রকাশ মিয়া সওদাগর জানান, সংঘর্ষ চলাকালে দা ছুরি লোহার রড গাছের লাঠি নিয়ে একে অপরকে আক্রমণ করে। সংর্ষষে উভয় পক্ষের ১৫ জন আহত হয় বলে স্থানীয় মেম্বার নুরুল আলম প্রকাশ মিয়া সওদাগর জানান।। আহতদের মধ্যে মুনিরিয়ার সর্মথক পারভেজ, এসকান্দর, রাজু, মোরশেদ, এয়াসিন,কামাল, মাবুদ, আহত হয় । আহতদেও মধ্যে পারভেজ ও এসকান্দরের অবস্থা আশংকাজনক বলে জানান আহত কামাল । মুনিরিয়ার লোকজনের হামলায় গাউছিয়া কমিটির সমর্থক আবু তাহের,মনজুরুল ইসলাম, বাবু, সাইফুল ইসলাম সহ ৮ জন আহত হয় বলে দাবী করেন রাউজান উপজেলা গাউছিয়া কমিটির সাধারণ সম্পাদক মাওলানা ইয়াসিন হোসাইন হায়দারী । রাউজান উপজেলা গাউছিয়া কমিটির সাধারণ সম্পাদক মাওলানা ইয়াসিন হোসাইন হায়দারী অভিযোগ করে বলেন এই ঘটনার জের ধরে গতকাল বুধবার সকাল ১১ টার সময় মুনিরিয়ার লোকজন গাউছিয়া কমিটির সর্মথক আবদুল মন্নান কে রাউজানের শাহা নগর এলাকা থেকে অপহরণ করে কারযোগে অজ্ঞাতস্থানে নিয়ে গিয়ে কুপিয়ে মারাত্বক ভাবে জখম করে তাকে রাস্তায় ফেলে দেয় । আহত গাউছিয়া কমিটির সমর্থকরা বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছে বলে রাউজান উপজেলা গাউছিয়া কমিটির সাধারণ সম্পাদক মাওলানা ইয়াসিন হোসাইন হায়দারী জানান । এই ঘটনার ব্যাপারে মুনিরিয়ার সমর্থক আহত কামাল বাদী হয়ে গাউছিয়া কমিটির সমর্থক সহ অর্ধশতাধিক ব্যক্তিকে আসামী করে রাউজান থানায় মামলা দায়ের করলে ও মামলা রেকর্ড করা হয়নি বলে অভিয়োগ করেন মুনিরিয়া যুব তবলীগ কমিটির মুখপাত্র মাওলানা ফোরকান । মুনিরিয়া যুব তবলীগ কমিটির মুখপাত্র মাওলানা ফোরকান বলেন পরিকল্পিত ভাবে মুনিরিয়ার সমর্থকের উপর হামলা করা হয়েছে । হামলাকারীদের বিরুদ্বে আইনগতঃ ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য রাউজান থানা ওসি এনামুল হকের কাছে আবেদন করা হলে ও তার বিষয়টি এড়িয়ে গিয়ে সমঝোতার প্রচেষ্টা চালাচ্ছেন । গতকাল সকাল ১১ টার সময় রাউজান থানায় সমঝোতা বৈঠকের উদ্যোগ নেওয়া হয় । সমঝোতা বৈঠকে মুনিরিয়ার মুখাপাত্র মাৗলানা ফোরকান.মুনিরিয়া যুব তবলীগ কমিটির ২ নং শাখার উপদেষ্টা মোহাম্মদ ইকবাল সহ ডাবুয়া ইউনয়নের মেম্বার নুরুল আলম হিংগলা নতুন পাড়া মসজিদ পরিচালনা কমিটির সভাপতি আহাম্মদ কবির প্রকাশ বাবুল উপস্থিত ছিলেন । রাউজান থানার ওসি তদন্ত সিরাজুল ইসলাম বৈঠকে আহত কামাল উদ্দিনের বক্তব্য ও মুনিরিয়ার লোকজনের, স্থানীয় মেম্বার ও মসজিদ কমিটির সভাপতির বক্তব্য শুনেন । বৈঠকে গাউছিয়া কমিটির লোকজন না থাকায় সমঝোতা বৈঠকে কোন সিদ্বান্ত হয়নি । পরে রাউজান থানার ওসি এনামুল হক ফোন করে গাউছিয়া কমিটির সাধারণ সম্পাদক মাওলানা এয়াসিন হোসাইন হায়দারীকে ডেকে নিয়ে তার সাথে কথা বলে আগামী ২৫ জুলাই বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টার সময় সংর্ঘষের ঘটনার ব্যাপারে বৈঠক করার সিদ্বান্ত হয় । মুনিরিয়ার সমর্থকদের উপর হামলার ঘটনার সংবাদ শুনে গতকাল রাউজানের বিভিন্ন এলাকা থেকে এক হাজারের বেশী মুনিরিয়ার সর্মথক রাউজান উপজেলা সদরে জমায়েত হয় । সংর্ঘষের ঘটনার পর এলাকায় চরম উত্তোজনা বিরাজ করছে ।