রাউজানের পাহাড়তলীতে পিটিয়ে শ্বাশুরিকে হত্যা স্ত্রী গুরুতর আহত

প্রকাশ:| শুক্রবার, ১ আগস্ট , ২০১৪ সময় ১১:৫৭ অপরাহ্ণ

প্রথম স্ত্রীকে ঘরে তুলে না নিয়ে দ্বিতীয় বিয়ে করার প্রতিবাদের জের

শফিউল আলম, রাউজান প্রতিনিধিঃরাউজানের পাহাড়তলী ইউনিয়নের ঊনসত্তরপাড়া গ্রামের স্বন্দীপ পাড়ায় নব বিবাহিত স্ত্রীকে ঘরে তুলে না নিয়ে দ্বিতীয় বিয়ে করার প্রতিবাদ করায় স্বামী, দেবর ও বোনেরা মিলে পিটিয়ে হত্যা করেছে প্রথম স্ত্রীর মাকে। এই ঘটনায় গুরুতর আহত করা হয়েছে স্ত্রীকে। নিহত মহিলা এলাকার আবুল বশরের স্ত্রী বিবি হাজেরা বেগম (৪৫)। আর আহত স্ত্রী ডলি আকতার নিহতের কন্যা। গত ৩১ জুলাই বৃহষ্পতিবার দিবাগত রাতে এই ঘটনা ঘটেছে। পাহাড়তলী ইউনিয়ন আ.লীগ নেতা রোকন উদ্দিন ও স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার ইসমাইল জানান, গত প্রায় ছয় মাস আগে একই এলাকার মৃত আবদুস ছাত্তারের পুত্র রুবেল প্রেম করে বিয়ে করেন আবুল বশরের কন্যা গার্মেন্ট চাকুরিজীবি দরিদ্র ডলি আকতারকে। এরপর পরিবারের চাপের মুখে রুবেল প্রথম স্ত্রী ডলি আকতারকে ঘরে তুলে না নিয়ে আরেকটি বিয়ে করে ফেলে। এনিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে বিরোধ সৃষ্ঠি হয় দীর্ঘদিন থেকে। ঈদের ছুটিতে ডলি আকতার শহর থেকে বাড়িতে আসে। গত ৩১ জুলাই বৃহষ্পতিবার রাত ৮টার দিকে প্রেমিক রুবেল প্রথম স্ত্রীর পাশ্ববর্তি ঘরে যাবে ধারনা করে রুবেলের ভাই রাসেল ও তার তিন বোন ডলির ঘরে গিয়ে তাকে তাড়াতে চায়। এসময় দু’পক্ষের মধ্যে বাক বিতন্ডা হয়। এক পর্যায়ে স্বামী রুবেলসহ যোগ দিয়ে দেবর রাসেল ও তিন বোন মিলে ডলি আকতারকে লাটি দিয়ে মারতে থাকে। এক পর্যায়ে ডলির মা বিবি হাজেরা বেগম মেয়েকে বাঁচাতে এগিয়ে আসলে তাকেও পিটিয়ে গুরুতর আহত করা হয়। পরে বিবি হাজেরাকে পাহাড়তলী চৌমুহনী বাজারে ডাক্তারের কাছে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর আবার ঘরে নিয়ে আসলে তার অবস্থা আরো গুরুতর হয়ে উঠে। ঘটনার পর গত বৃহস্পতিবার রাত ১০টার দিকে নোয়াপাড়া পাইওনিয়র হাসপাতালে নেয়ার পথে তিনি মারা যান। ঘটনার সংবাদ পেয়ে রাতেই রাউজান থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে বিবি হাজেরার লাশ উদ্বার করে গতকাল শুক্রবার সকালে বিবি হাজেরার লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করেন । এব্যাপারে রাউজান থানায় ুিনহত হাজেরা পুত্র রিয়াজ বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন রাউজান থানার ওসি প্রদীপ কুমার দাশ জানান