‘রবীন্দ্রনাথ’র বাঙ্গালী ও বাংলাদেশ আজ বিশ্ব দরবারে গর্বিত জাতি’

প্রকাশ:| রবিবার, ৮ মে , ২০১৬ সময় ১০:৪৩ অপরাহ্ণ

রবীন্দ্রনাথ

১৪২৩ বঙ্গাব্দে বৈশাখী উদযাপন উপলক্ষ্যে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন ঐতিহাসিক লালদিঘীর ময়দানে আয়োজন করে ৩ দিন ব্যাপী বৈশাখী উৎসব ও লোকজ মেলা। ৮ মে রবিবার ছিল সমাপনী দিবস। এ দিনটির কর্মসূচী কবি গুরু ও বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের নামে উৎসর্গ করা হয়। কবি গুরুর ১৫৬ তম জন্মজয়ন্তী ৮ মে ২০১৬ খ্রি. উদযাপন উপলক্ষে লালদিঘীর ময়দানে আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, আবৃত্তি, নৃত্য ও সঙ্গীত পরিবেশিত হয়। বৈশাখী উৎসব ও লোকজ মেলা আয়োজন কমিটির আহবায়ক ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক স্থায়ী কমিটির আহবায়ক কাউন্সিলর মো. সলিম উল্লাহ বাচ্চু আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন। প্রধান আলোচক ছিলেন কবি ও সাহিত্যিক, দৈনিক আজাদী’র সাহিত্য সম্পাদক রবীন্দ্র গবেষক শ্রী অরুন দাশগুপ্ত। আলোচনা করেন দৈনিক বীর চট্টগ্রাম মঞ্চের সম্পাদক সৈয়দ উমর ফারুক। স্বাগত বক্তব্য দেন চসিক সচিব মো. আবুল হোসেন। ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন চসিক প্রধান শিক্ষা কর্মকর্তা মিসেস নাজিয়া শিরিন। জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. আবদুর রহিম এর উপস্থাপনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় প্যানেল মেয়র চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, কাউন্সিলর নাজমুল হক ডিউক, হাসান মুরাদ বিপ্লব, তত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো. মাহফুজুল হক, শিক্ষা কর্মকর্তা মো. সাইফুর রহমান ও সমাজ কল্যান কর্মকর্তা আশেক রসুল চৌধুরী টিপু সহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে মোড়ক লড়াই-এ বিজয়ীদের মাঝে পুরষ্কার বিতরণ করেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। প্রধান অতিথি সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, কবি গুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বাঙ্গালীকে উদ্দেশ্য করে বলেছিলেন “তুমি নিছক বাঙ্গালী নও, তুমি বিশ্ব চরাচরের অংশ” রবীন্দ্রনাথ এর বাঙ্গালী ও বাংলাদেশ আজ বিশ্ব দরবারে গর্বিত জাতি। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাঙ্গালীদের ঐক্যবদ্ধ করে একটি জাতি রাষ্ট্র উপহার দিয়ে বাঙ্গালীকে বিশ্বে মর্যাদার আসনে অধিষ্টিত করেছেন। জনাব আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, চট্টগ্রাম বাঙ্গালী’র ইতিহাস, ঐতিহ্য, কৃষ্টি ও সভ্যতাকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। গর্ব করার মত নগরী চট্টগ্রামকে গড়ার পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। নগরবাসীর সার্বিক সহযোগিতায় এবং ঐক্যবদ্ধ প্রয়াসে চট্টগ্রাম নগরী বিশ্বমানের নগরীর মর্যাদায় প্রতিষ্ঠিত হবে। মেয়র বলেন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ বরণ ও ১৪২৩ বঙ্গাব্দ বিদায় আগামী বছর ২ দিনের বর্নাঢ্য ও ব্যতিক্রমধর্মী সৃজনশীল আয়োজন করা হবে। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এর মাধ্যমে প্রজন্ম পরম্পরায় সৃজনশীল কার্যক্রম উপহার দেবে। প্রধান আলোচক কবি ও সাহিত্যিক অরুন দাশগুপ্ত রবীন্দ্র নিকেতনে তাঁর অভিজ্ঞতা তুলে ধরে বলেন, রবীন্দ্রনাথের গান বাংলাদেশের জাতীয় সঙ্গীত। রবীন্দ্রনাথ বৈশাখ’কে নতুন করে আবিষ্কার করেছেন। গুরুদেব রবীন্দ্রনাথ বিশ্বকবি ও বাঙ্গালীর এক বিস্ময়। আলোচক দৈনিক বীর চট্টগ্রাম মঞ্চের সম্পাদক সৈয়দ উমর ফারুক বলেন, কবিগুরু বাঙ্গালীর জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশ নামে স্বাধীন রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা করেছেন। তিনি জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশকে ক্ষুধা, দারিদ্রমুক্ত দেশে পরিণত করে স্বাধীনতাকে অর্থবহ করার আহবান জানান।