রনিকে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই , ২০১৩ সময় ০৪:০৬ অপরাহ্ণ

নডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের দুই সাংবাদিককে মারধরের মামলায় গ্রেপ্তার সরকার দলীয় সংসদ সদস্য গোলাম মাওলা রনিকে roni-arrest-300x244জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট এস এম আশিকুর রহমান এ নির্দেশ দেন। রনির আইনজীবী জামিনের আবেদন করেন।

শুনানিতে আসামি পক্ষে অ্যাডভোকেট কবির হোসেন ও বাদী পক্ষে অ্যাডভোকেট আজিজুর রহমান অংশ নেন।

এর আগে বেলা ১২টার দিকে ডিবি কার্যালয় থেকে তাকে ঢাকার মুখ্য মহানগর (সিএমএম) হাকিমের আদালতে নেয়া হয়। শুনানির সময় রনিকে আদালতে হাজির করা হয়নি। তাকে আদালতের হাজতখানায় রাখা হয়।

রনিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রিমান্ডে নেয়ার কোনো আবেদন পুলিশের পক্ষ থেকে করা হয়নি।

বুধবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা থেকে রনিকে গ্রেপ্তার করা হয়। এর আগে তার জামিন বাতিল করে গ্রেপ্তারের নির্দেশ দেন আদালত। দুপুর ২টার দিকে মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট শাহরিয়ার মাহমুদ আদনানের আদালত এ আদেশ দেন।

এর আগে দুপুর ১২টার দিকে রনির জামিন বাতিল আবেদনের শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। রনির পক্ষে শুনানিতে অংশ নেন অ্যাডভোটেকট কবির হোসেন ও আব্দুল্লাহ আল মনসুর। বাদী পক্ষের আইনজীবী ছিলেন মো. আজিজুর রহমান শাহসহ অন্য আইনজীবীরা।

গত সোমবার মামলার বাদীর আইনজীবী ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিমের (সিএমএম) আদালতে জামিন বাতিলের এ আবেদন দাখিল করেন।

আবেদনে উল্লেখ করা হয়, গত ২১ জুলাই জামিন পাওয়ার পর থেকে মামলা তুলে নেয়ার জন্য বাদীর ল্যান্ডফোনে হুমকি ধমকি দেয়া হচ্ছে। সেজন্য বাদী শাহবাগ থানায় হাজির হয়ে ওইদিনই গোলাম মাওলা রনির বিরুদ্ধে একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন (জিডি নম্বর ১১০৯)।

আদালত শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) বিষয়টি তদন্ত করে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে প্রতিবেদন দেয়ার নির্দেশ দেন। একই সঙ্গে জিডির পুলিশ প্রতিবেদনের ভিত্তিতে ২৪ জুলাই জামিন বাতিলের বিষয়ে শুনানির দিন ঠিক করেন আদালত।

আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী ২৩ জুলাই শাহবাগ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. আবু জাফর জিডির অভিযোগের সত্যতা পাওয়ায় এমপি রনির জামিন বাতিলের জন্য সুপারিশ করে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করেন।

প্রতিবেদনে তিনি উল্লেখ করেন, মামলাটিতে গত ২১ জুলাই এমপি রনি জামিন পাওয়ার পর অত্যন্ত ক্রোধান্বিত মনোভাব নিয়ে ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশন ভবনের ল্যান্ডফোনে (নম্বর ৮৮৭৯০০০) ফোন করে বাদীকে নিজ দায়িত্বে থানা ও কোর্ট থেকে মামলা প্রত্যাহার করে নেয়ার জন্য ভয়ভীতি ও হুমকি দেন। এছাড়া গত ২৩ জুলাই বাদী ও তার সহকারী প্রমিত ঘোষ অফিসে যাওয়ার পথে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকায় এমপি রনি ও তার সহযোগী অজ্ঞাত আরো ২ থেকে ৩ জন বাদীকে মামলা তুলে নেয়ার জন্য প্রাণনাশের হুমকি দিয়েছেন মর্মে অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেছে। এ অবস্থায় আসামি এমপি রনি জামিনে মুক্ত থাকলে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতিসহ মামলার তদন্ত কাজে বিঘ্ন ঘটবে।

এই প্রতিবেদনের ভিত্তিতে বুধবার দুপুর ১২টা থেকে ১টা পর্যন্ত মহানগর ম্যাজিস্ট্রেট শাহরিয়ার মাহমুদ আদনানের আদালতে বাদী, রাষ্ট্র ও আসামি পক্ষের আইনজীবীরা জামিন বাতিলের পক্ষে-বিপক্ষে শুনানি করেন।

রনির পক্ষে দুদকের বিশেষ পিপি কবির হোসেইন ও অ্যাডভোকেট আব্দুল্লাহ আল মনসুর রিপন এবং রাষ্ট্রপক্ষে সহকারী পুলিশ কমিশনার (প্রসিকিউশন) মিরাস উদ্দিন শুনানি করেন। শুনানির সময় রনি আদালতে উপস্থিত ছিলেন না। শুনানি শেষে বিচারক নথি পর্যালোচনা করে পরে আদেশ দেয়া হবে বলে জানান।

দুপুর ২টার সময় বিচারক এমপি রনির জামিন বাতিল করে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারির আদেশ দেন।

উল্লেখ্য, ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের সাংবাদিক পেটানোর ঘটনায় দায়ের হওয়া মামলায় গত রোববার ঢাকার সিএমএম আদালতে হাজির হয়ে জামিন পান গোলাম মাওলা রনি। ওইদিন আত্মসমর্পণপূর্বক জামিন প্রার্থনা করলে মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মো. রেজাউল করিম ৫ হাজার টাকা মুচলেকায় একজন স্থানীয় জামিনদার ও একজন আইনজীবীর জিম্মায় এ জামিন দেন।

আসামি পক্ষে জামিন শুনানি করেন দুদকের বিশেষ পিপি কবির হোসেইন ও অ্যাডভোকেট মোহাম্মাদ তাজউদ্দিন।

মামলায় রনিসহ অজ্ঞাত পরিচয় ২০ থেকে ২৫ জনকে আসামি করা হয়েছে। মামলায় হত্যাচেষ্টা, মারধর ও ভাঙচুরের অভিযোগ আনা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ২০ জুলাই দুপুরে রাজধানীর তোপখানা রোডের মেহেরবা প্লাজায় ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ দলীয় এমপি গোলাম মাওলা রনির অফিসে ইনডিপেনডেন্ট টিভির সাংবাদিক ইমতিয়াজ মমিন সনি ও ক্যামেরাম্যান মহসিন মুকুলকে মারধর করা হয়। এর মধ্যে আহত মুকুলকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

অপরাধবিষয়ক অনুসন্ধানমূলক অনুষ্ঠান ‘তালাশ’ এর সংবাদ সংগ্রহের জন্য তারা সেখানে গিয়েছিলেন।

সাংবাদিক পেটানোর ঘটনায় ওইদিনই টেলিভিশনটির সহকারী ব্যবস্থাপক ইউনুছ আলী বাদী হয়ে শনিবার বিকেলে এ মামলাটি করেন।

অন্যদিকে, এমপি রনিও পাল্টা অভিযোগ এনে ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের অন্যতম মালিক ব্যবসায়ী সালমান এফ রহমানের বিরুদ্ধে মামলা করেন।
– See more at: http://www.bdpress24.com/?p=2424#sthash.w398VQck.dpuf