রত্নাপালং ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী হচ্ছেন তাসহিদ

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ২৮ এপ্রিল , ২০১৬ সময় ০৮:৫৫ অপরাহ্ণ

তাসহিদ
কায়সার হামিদ মানিক, উখিয়া প্রতিনিধি:
উখিয়া উপজেলার রতœাপালং ইউনিয়নে নৌকার মাঝি হতে দৌড়ঝাঁপ শুরু করে দিয়েছেন মনোনয়ন প্রত্যাশী প্রার্থীরা। নৌকা প্রতীক পেলেই জয় নিশ্চিত এমন ভাবনা থেকেই দলীয় প্রতীক বাগানোর প্রতিযোগিতায় নেমেছেন তারা। বিগত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন গুলোতে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীর কাছে ব্যাপক ভরাড়ুবি হওয়ায় আওয়ামীলীগের হাইকমান্ডের কাছে অত্যাধিক গুরুত্ব পাচ্ছে এ ইউনিয়ন। রতœাপালং ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি কবি আদিল উদ্দিন চৌধুরী প্রাথী না হওয়ার ঘোষনায় নৌকার প্রার্থী হিসেবে সামনে চলে এসেছেন তার আপন ভাতিজা বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর, বীর মুক্তিযোদ্ধা, বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ মরহুম শমসের আলম চৌধুরীর নাতি উখিয়া উপজেলা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ তাসহিদ চৌধুরী ছোটন।
এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা গেছে, মরহুম শমসের আলম চৌধুরীর পারিবারিক ঐতিহ্য সমুন্নত রেখে গরীব দূখী মেহনতী মানুষের সেবায় নিয়োজিত রয়েছেন তাসহিদ চৌধুরী ছোটন। এলাকার দানশীল ব্যক্তি হিসেবেই ব্যাপক পরিচিতি তার।তিনি যদি নির্বাচন করেন তাহলে রতœাপালং ইউনিয়নে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়া সময়ের ব্যাপার মাত্র। রতœাপালং ইউনিয়নের বাসিন্দা উখিয়া ডিগ্রি কলেজের ছাত্র আব্দুল¬াহ আল মামুন জানান, তাসহিদ চৌধুরী ছোটন লন্ডনের স্বীকৃত বিশ্ববিদ্যালয় থেকে উচ্চ শিক্ষা শেষ করে এলাকার তরুনদের নিয়ে একাধিক প্রকল্প হাতে নিয়েছেন। এছাড়াও আর্থিক অভাবের কারণে যাতে কোন স্কুল-কলেজ পড়ুয়া ছাত্রছাত্রী অকালে ঝড়ে না পড়ে সেজন্য তিনি শিক্ষা তহবিলও গঠন করেছেন।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক উপজেলা আওয়ামীলীগের কয়েকজন সিনিয়র নেতা বলেন, প্রবীন রাজনীতিবিদ, রতœাপালং ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক সফল চেয়ারম্যান আলহাজ্ব শমসের আলম চৌধুরীর ইচ্ছে ছিল চৌধুরী পরিবার থেকে কেউ রতœাপালং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হবেন। বিগত নির্বাচনে আওয়ামী সমর্থিত প্রার্থীদের ভরাড়ুবি হওয়ায় দলীয় ভাবে তরুন নেতৃত্বকে মনোনয়ন দেওয়া হবে। এক্ষেত্রে উচ্চ শিক্ষিত ও তরুন প্রজন্মের নেতা হিসেবে তাসহিদের প্রতি দলীয় হাইকমান্ডের সুদৃষ্টি রয়েছে। এ ব্যাপারে তাসহিদ চৌধুরী ছোটন তার প্রতিক্রিয়ায় জানান, দলীয় মনোনয়ন পেলে তিনি মরহুম দাদা শমসের আলম চৌধুরীর স্বপ্ন বাস্তবায়নে কাজ করে যাবেন।