যুবদল কর্মীকে পুলিশের হেফাজতে রেখে গুলি করে পুঙ্গ করার অভিযোগ

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ৯ জানুয়ারি , ২০১৪ সময় ১১:১০ অপরাহ্ণ

নগরীর পাহাড়তলী থানার পুলিশের বিরুদ্ধে এক যুবদলকর্মীকে নিজেদের হেফাজতে রেখে গুলি করে পুঙ্গ করার অভিযোগ তুলেছে নগর বিএনপি। বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে নগর বিএনপির নেতারা এ অভিযোগ তুলেন।

এতে বলা হয়, গত ৭ জানুয়ারি সন্ধ্যায় সাগরিকা রোডে পুলিশের গাড়িতে হামলার একটি ঘটনায় পাহাড়তলী থানা পুলিশ যুবদল নেতা আরাফাতকে গ্রেপ্তার করেছে বলে পুলিশের বরাত দিয়ে বিভিন্ন মিডিয়া সংবাদ প্রকাশ করে। অথচ যখন ঘটনাটি সংঘটিত হয় তখন আরাফাত পুলিশ হেফাজতে ছিল।

পুলিশ তাকে ওইদিন বিকেলে সিডিএ মার্কেটের সামনে থেকে গ্রেপ্তার করে তার উপর নির্যাতন চালায় এবং রাতে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে গিয়ে তাকে গুলি করে। পরে আহত অবস্থায় তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে তার একটি পা কেটে ফেলতে হতে পারে বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন।

এতে আরো বলা হয়, প্রশাসনের কিছু অতি উৎসাহী কর্মকর্তা বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের উপর নির্যাতন চালাচ্ছে। প্রশাসন বিভিন্ন তালিকার কথা বলে চট্টগ্রামের নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার ও হয়রানী করছে। বিশেষ করে পাহাড়তলী, একে খান, কর্নেলহাট, সিটি গেইট, আকবর শাহ, সাগরিকা এলাকায় পুলিশ শুধু গ্রেপ্তার করেই ক্ষান্ত হচ্ছে না, গুলিও চালাচ্ছে।

প্রশাসনের মনে রাখা উচিৎ ক্ষমতা কারো চিরস্থায়ী নয়। যারা অতি উৎসাহী হয়ে নেতাকর্মীদের উপর মামলা, হামলা চালাচ্ছেন জনগণ তাদের একদিন বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড় করাবে।

উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে পাহাড়তলী থানার ওসির গাড়ি লক্ষ্য করে ‘পেট্রল বোমা’ নিক্ষেপ করে দুর্বৃত্তরা। হামলা ঠেকাতে পুলিশ গুলি করলে আরাফাত নামে এক যুবদলকর্মী পায়ে গুলিবিদ্ধ হয়। তাকে আহত অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে পুলিশ।

তবে বিএনপির এই অভিযোগ অস্বীকার করেন পাহাড়তলী থানার ওসি আজিজুর রহমান। তিনি বাংলামেইলকে বলেন, ‘আরাফাত ঘটনাস্থলেই গুলিবিদ্ধ হয়। সে ওই এলাকায় বিভিন্ন নাশকতায় নেতৃত্ব দিয়ে থাকে। বিএনপির অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা ও মনগড়া।’

বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেন নগর বিএনপির সভাপতি আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, সাবেক হুইপ সৈয়দ ওয়াহিদুল আলম, সাবেক সাংসদ বেগম রোজি কবির, নগর বিএনপির সহ-সভাপতি আবু সুফিয়ান, সহ-সভাপতি সামশুল আলম, সাধারণ সম্পাদক ডা. শাহাদাত হোসেন, নগর যুবদল সভাপতি কাজী বেলাল, সাধারণ সম্পাদক মোশারফ হোসেন দিপ্তী, ছাত্রদল সভাপতি গাজী সিরাজ, সাধারণ সম্পাদক বেলায়েত হোসেন বুলু।