যানজট নিরসনের সেই ‘ছোট্ট উদ্যোগ’ স্থায়ী হবে

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| রবিবার, ১ এপ্রিল , ২০১৮ সময় ০৯:০৮ অপরাহ্ণ

সিইপিজেডের প্রধান ফটকে বিমানবন্দর, সমুদ্রবন্দরমুখী গাড়ির জট ও জনদুর্ভোগ নিরসনের সেই ‘ছোট্ট উদ্যোগ’টি আট মাস পর স্থায়ী করার নির্দেশ দিয়েছেন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন।

রোববার (১ এপ্রিল) বিকেলে নগর ভবনে ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত বৈঠকে মেয়র এ নির্দেশ দেন।

মেয়র সিইপিজেড মোড়ের গোলচত্বরটি ভেঙে স্থায়ীভাবে সড়ক বিভাজক নির্মাণ, মোড়ের উত্তর ও দক্ষিণ প্রান্তের ইউলুপ পর্যন্ত মানুষ যাতে সড়ক পার হতে না পারে তার জন্য সড়ক বিভাজকে উঁচু এবং দৃষ্টিনন্দন স্টিলের বেড়া দেওয়ার জন্য চসিকের প্রকৌশল বিভাগকে নির্দেশনা দেন।

চসিকের প্রধান পরিকল্পনাবিদ একেএম রেজাউল করিম বাংলানিউজকে বলেন, ইপিজেড মোড়ে আট মাস পরীক্ষামূলকভাবে রাস্তা পারাপার বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল। সেটি ব্যাপক প্রশংসিত হয়েছে। এতে যানজট যেমন নিরসন হয়েছে তেমনি অনাকাঙ্ক্ষিত দুর্ঘটনা ও প্রাণহানিও রোধ করা সম্ভব হয়েছে। এখন মেয়র সিইপিজেড মোড়ের গোলচত্বর ভেঙে সড়ক বিভাজক নির্মাণ ও সড়ক বিভাজকে মানুষ পারাপার বন্ধে দৃষ্টিনন্দন বেড়া দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। আশাকরি, শিগগির কাজ শুরু হবে।

বৈঠকে চসিকের ভারপ্রাপ্ত প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবুল হোসেন, ভারপ্রাপ্ত প্রধান প্রকৌশলী মো. মাহফুজুল হক, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী আনোয়ার হোছাইন, মুনিরুল হুদা, আবু ছালেহ, কামরুল ইসলাম, নির্বাহী প্রকৌশলী অসিম বড়ুয়া, সিএমপিন ট্রাফিক বিভাগের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার কুসুম দেওয়ান, উপ পুলিশ কমিশনার (দক্ষিণ) এসএম মোস্তাইন হোসেন বিপিএম, এডিসি (উত্তর) ওয়াহিদুল হক চৌধুরী, এডিসি পোর্ট মো. আকরামুল হোসেন, এসি বন্দর মো. মোশারফ হোসেন, এসি দক্ষিণ সুলতান মোহাম্মদ আলী খান, টিআই আবুল কাশেম চৌধুরী, সুভাষ চন্দ্র দে উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠকে ছোট উদ্যোগটি স্থায়ী রূপ দেওয়া ছাড়াও নতুন দুইটি ফুট ওভারব্রিজ নির্মাণ, বিদ্যমান ফুট ওভারব্রিজ সম্প্রসারণ, পোর্ট কানেকটিং রোড ও আগ্রাবাদ এক্সেস রোড দ্রুত সংস্কার করে চলাচলের উপযোগী করা, দেওয়ানহাট মোড় ফুট ওভারব্রিজ নির্মাণ, বাদামতলী মোড়ে ওভারব্রিজ নির্মাণ, গোসাইলডাঙ্গায় ওভারব্রিজ নির্মাণ, চৌমুহনী থেকে বেপারিপাড়া রাস্তা প্রশস্তকরণসহ স্থায়ী ডিভাইডার নির্মাণ, বেপারিপাড়া মোড় থেকে লাকি প্লাজা মোড় পর্যন্ত স্থায়ী ডিভাইডার নির্মাণ, মুরাদপুর থেকে অক্সিজেন মোড় পর্যন্ত সড়ক দ্রুত সংস্কার, পলিটেকনিক্যাল মোড় থেকে খুলশী সড়ক দ্রুত সংস্কার, জিইসি মোড় ওভারব্রিজ নির্মাণ, ষোলশহর দুইনম্বরগেট ওভারব্রিজ নির্মাণ, মুরাদপুর ওভারব্রিজ নির্মাণ, নিউমার্কেটের চারদিকে ওভারব্রিজ নির্মাণ, কাজী নজরুল ইসলাম সড়ক কার্পেটিং করা, ওআর নিজাম সড়কে স্থায়ীভাবে বিভাজক নির্মাণ, চট্টেশ্বরী মন্দির মোড় থেকে কাজীর দেউড়ি মোড় পর্যন্ত স্থায়ী বিভাজক নির্মাণ, ট্রাফিক বিভাগ ও চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের চিহ্নিত জায়গায় পার্কিং, অটোমেশন ও সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপন, কাজীর দেউড়ি মোড়ে পুলিশ বক্স, রেজিস্ট্রেশনবিহীন রিকশা ভ্যান ও ঠেলাগাড়ির বিরুদ্ধে অভিযান, হকার উচ্ছেদ ও চারটি আর্চওয়ে গেটসহ বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা ও সিদ্ধান্ত হয়।