যাত্রীদের জিম্মি করে তিনগুণ ভাড়া আদায়: ঘরমুখো মানুষের দূর্ভোগ

প্রকাশ:| সোমবার, ৪ জুলাই , ২০১৬ সময় ০৯:৪২ অপরাহ্ণ

অতিরিক্ত ভাড়াশফিউল আজম,পটিয়া॥
কর্ণফুলী ব্রীজ থেকে পটিয়া ঈদে ঘরমূখো যাত্রীদের জিম্মি করে তিনগুণ ভাড়া আদায়ের করছে বাস চালক-শ্রমিকরা। এতে ঈদে ঘরমূখো যাত্রীরা চরম হয়রনীর শিকার হচ্ছে। প্রতিবছরের ন্যায় এবার ও পটিয়ার এমপি সামশুল হক চৌধুরী ঈদ উপলক্ষে ৪দিন ব্যাপী কর্ণফুলী সেতু থেকে পটিয়ায় ফ্রি বাস সার্ভিস দেয়ার ঘোষণায় বাস চালক ও শ্রমিকেরা গতকাল সোমবার থেকে ঘরমূখো যাত্রীদের জিম্মি করে তিনগুণ বাড়া আদায় করছে। ফলে ঈদের দীর্ঘ নয় দিনের ছুটিতে পরিবার পরিজন নিয়ে ঘর মূখো যাত্রীরা দূর্ভোগের শিকার হচ্ছে। যাত্রীরা বাস শ্রমিকদের এ হয়রানী লাগবে উপজেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
ভূক্তভোগী যাত্রীরা জানায়, প্রতিবছর ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আযহা উপলক্ষে যাত্রীরা বাড়ী ফেরার সময় বাস চালক শ্রমিকরা চট্টগ্রামের কর্ণফুলী বাস ষ্টেশন থেকে পটিয়া পর্যন্ত নির্ধারিত ২০টাকার স্থলে রিজার্ভ সার্ভিসের নামে ৫০-৬০ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। অনেক ক্ষেত্রে কর্ণফুলী ব্রীজ থেকে দোহাজারী-আমিরাবাদগামী বাস কোষ্টারগুলো পটিয়ার যাত্রীদের কাছ থেকে ১০০ শত টাকা পর্যন্ত বাড়া নেয়ার অভিযোগ রয়েছে। এককথায় পটিয়াসহ দক্ষিণ চট্টগ্রামের যাত্রীরা বাস শ্রমিকদের কাছে জিম্মি হয়ে পড়ে। যাত্রীদের এ দূর্ভোগের কথা বিবেচনা করে পটিয়ার এমপি সামশুল হক চৌধুরী যাত্রীদের যাতায়াতের সুবির্ধার্থে প্রতিবছর ঈদ-কোরবান, দূর্গাপূজার ছুটিতে ৩-৪দিন ৬টি দ্বীতল বিআরটিসির বাস ফ্রি সার্ভিস প্রদান করে থাকেন। তারই ধারাবাহিকতায় আজ মঙ্গলবার থেকে ৪দিন ব্যাপী কর্ণফুলী ব্রীজ থেকে পটিয়া পর্যন্ত ফ্রি বাস সার্ভিসের ঘোষণা দেয়। এতে বাস মালিক শ্রমিকরা ক্ষুব্দ হয়ে গতকাল সোমবার থেকে যাত্রীদের জিম্মি করে নির্ধারিত ভাড়ার ৩গুণ বেশী ভাড়া আদায় করছে। এতে যাত্রীদের চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছে। উল্লেখ্য গত সপ্তায় পটিয়া বাস টার্মিনালে বাস সার্ভিস চালু করার সময় উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাস মালিক সমিতি, চালক সমিতি-শ্রমিক সমিতির নেতৃবৃন্দসহ প্রসাশনিক কর্মকর্তা ও বিভিন্ন রাজনৈতিনক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এসময় প্রধান অতিথি এমপি সামশুল হক চৌধুরী নিয়মিত বাস চলাচল করে নির্ধারিত ভাড়া ব্যতিত অতিরিক্ত ভাড়া নিয়ে যাত্রীদের হয়রানী না করার জন্য বাস মালিক শ্রমিকদের নির্দেশ দেন। সে নির্দেশ উপেক্ষা করে বাস মালিক শ্রমিকরা ২/৩ গুণ বেশী ভাড়া নিয়ে যাত্রীদের হয়রানী করে আসছে। ভূক্তভোগী যাত্রীরা এর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য উপজেলা প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন।
এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবুল হাসেম জানান যাত্রীদের জিম্মি করে নির্ধারিত ভাড়ার ছেয়ে অতিরিক্ত ভাড়া নিলে বাস মালিক শ্রমিকদের বিরুদ্ধে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।