মেয়র হানিফ ফ্লাইওভারে টোল আদায়ে অব্যস্থাপনা

প্রকাশ:| শনিবার, ১২ অক্টোবর , ২০১৩ সময় ১১:৩০ অপরাহ্ণ

দেশের সবচেয়ে বড় যাত্রাবাড়ী-গুলিস্তান মেয়র হানিফ ফ্লাইওভার উদ্বোধনযাত্রাবাড়ি-গুলিস্তানের মেয়র মোহাম্মদ হানিফ ফ্লাইওভার উদ্বোধনের পর শুক্রবার রাতেই যান চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হয়। প্রাথমিক পর্যায়ে শুধু গুলিস্তান ও যাত্রাবাড়ি দুটি পয়েন্ট দিয়ে যানচলাচল শুরু হয়েছে। এদিকে, টোল আদায় নিয়ে শনিবার কর্তৃপক্ষের সঙ্গে চালকদের হাতাহাতি ও বাগবিতণ্ডার ঘটনা ঘটেছে। এ কারণে টোল আদায় বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

গতকাল রাত ১২টা থেকে বাসসহ অন্যান্য যানবাহন চলাচলের জন্য উড়ালসড়কটি খুলে দেয়া হয়। আজ সকাল থেকেই নারায়ণগঞ্জ ও নরসিংদী থেকে ছেড়ে আসা বাস, মিনিবাস, মাইক্রোবাস ও প্রাইভেট কার উড়ালসড়কে চলাচল করতে দেখা যায়।

শুধুমাত্র বেরোনোর পথে টোল আদায়ের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। তবে উড়ালসড়ক থেকে অতিরিক্ত টোল আদায়ের অভিযোগ রয়েছে। গণমাধ্যমে প্রকাশিত টোলের হারের সঙ্গে বাস্তবে বেশ অমিল খুঁজে পাচ্ছেন তারা।

এ নিয়ে চালক ও টোল আদায়কারী কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বাগবিতণ্ডা ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এরপর টোল আদায় বন্ধ করে দেয়া হয়।

জানা গেছে, মোটর সাইকেল ১০, সিএনজি অটোরিকসা ১৮, প্রাইভেট কার ৬০, জীপ ৭০, মাইক্রোবাস ৮৫, পিকআপ ১৩০, মিনিবাস ১৭৩, বাস ২৬০, ট্রাক (চার চাকার) ১৭৩, ট্রাক (ছয় চাকার) ২৬০ ও ট্রেইলার বা কাভার্ডভ্যান থেকে ৩৭৫ টাকা হারে টোল আদায় করা হচ্ছে।

এ বিষয়ে টোল আদায়কারী প্রতিষ্ঠান অরিয়ন গ্রুপের জনসংযোগ কর্মকর্তা জানিয়েছেন, মূল্যস্ফীতির কারণে ২০০৩ সালের নির্ধারিত হারে এখন টোল আদায় করা সম্ভব হচ্ছে না। আর গণমাধ্যমে ২০০৩ সালে বেধে দেওয়া হার প্রকাশিত হয়েছে।

তাদের দাবি, সিটি করপোরেশনের বেধে দেয়া নতুন হারেই এখন টোল আদায় করছেন তারা।

এদিকে, টোল আদায় কর্তৃপক্ষের অব্যবস্থাপনা ও ধীর গতির কারণে উড়ালসড়কের ওপরে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়।