“মেসি যা করেছেন, তাতেই সর্বকালের সেরাদের কাতারে নাম উঠে গেছে” – ম্যারাডোনা

প্রকাশ:| বুধবার, ৫ মার্চ , ২০১৪ সময় ০৮:৫২ অপরাহ্ণ

এই তো কদিন আগে এনরিকে হেক্টর তুললেন কথাটা। লিওনেল মেসি কোনো দিনই ছাপিয়ে যেতে পারবেন না ডিয়েগো ম্যারাডোনাকে। দুজনের মধ্যে তুলনা যতই হোক, ম্যারাডোনা কিন্তু স্নেহের দুয়ার সব সময়ই হাট করে খুলে রেখেছেন লিওনেল মেসির জন্য। সর্বকালের সেরাদের কাতারে যেতে হলে মেসিকে বিশ্বকাপ জিততেই হবে—এমন একটা শর্ত বেঁধে দেন কোনো কোনো নিন্দুক। তবে ম্যারাডোনা বলছেন, মেসি যা করেছেন, তাতেই সর্বকালের সেরাদের কাতারে নাম উঠে গেছে। বিশ্বকাপ জিতলে ভালো। তবে না জিতলে সর্বকালের সেরাদের খাতা থেকে নাম কাটা পড়বে না।

‘লা ন্যাসিওন’কে দেওয়া সাক্ষাত্কারে ’৮৬ বিশ্বকাপের মহানায়ক বলেছেন, ‘বিশ্বের সেরা খেলোয়াড় হতে মেসিকে বিশ্বকাপ জিততে হবে না। বিশ্বকাপ জিতলে সেটা আর্জেন্টিনা, দলের সমর্থক আর মেসির নিজের জন্য দারুণ একটা ব্যাপার হবে। তবে বিশ্বকাপ জিতুক বা না জিতুক, এরই মধ্যে ওর যা অর্জন, সেটাই ওকে সর্বকালের সেরাদের তালিকায় রেখে দেবে।’

গত বিশ্বকাপে তিনিই ছিলেন কোচ। কিন্তু কোয়ার্টার ফাইনালে জার্মানির কাছে হেরে বিদায় নিতে হয়। মেসিও ওই বিশ্বকাপে একটি গোলও করতে পারেননি। বেশ কবার গোলপোস্টে লেগে ফেরত এসেছে বল। গোলরক্ষকেরাও কয়েকটি দুর্দান্ত সেভ করেছেন। গোল না পেলেও মেসির গত বিশ্বকাপের পারফরম্যান্স দুর্দান্ত ছিল বলেই মনে করেন ম্যারাডোনা। গোলরক্ষকেরা তাঁর বিরুদ্ধে দুর্দান্ত খেলেছে বলেই মেসি গোল পায়নি বলে মন্তব্য করলেন দলের সাবেক কোচ, ‘আমি কোচ থাকার সময় মেসির বিশ্বকাপটা অসাধারণই কেটেছে। অবশ্য কেউ সেটা বলবে না। এর কারণ কি সে গোল পায়নি, সে জন্য? ওই বিশ্বকাপে ও কিন্তু গোলরক্ষকদের তারকা বানিয়ে দিয়েছিল।’

কোয়ার্টার ফাইনাল শেষে আর্জেন্টিনা দলের মধ্যে মেসিই সবচেয়ে বেশি কেঁদেছিলেন। এ কথা ম্যারাডোনা আগেও বলেছেন। বললেন আবারও, ‘আমি ওর কাছে গিয়ে বলেছিলাম, কান্নার কিছু নেই। প্রতিশোধ নেওয়ার জন্য আরও কয়েকটা বিশ্বকাপ তো সে পাবেই। আমি কিন্তু কথাটা মন থেকেই বলেছিলাম। দলের বাকিরা যখন দেশে ফেরার কথাই শুধু ভাবছিল, মেসির মাথা ছিল নত, চোখে ছিল জল।’

মেসির প্রতিশোধের মঞ্চ এবার প্রস্তুত। অনেকেই বলছেন, এটাই মেসির শেষ সুযোগ। কারণ আগামী বিশ্বকাপে মেসির বয়স ত্রিশ পেরিয়ে যাবে। পেরিয়ে যাবে সেরা সময়টাও। ম্যারাডোনা আশাবাদী, এবারই হয়তো মেসি আজন্ম আরাধ্য ট্রফিটায় চুমু এঁকে দিতে পারবেন। তবে কাজটা সহজ হবে না। আর্জেন্টিনার শিরোপা জয়ের পথে তিনটা দলকে বাধা হিসেবে দেখেন ম্যারাডোনা—ব্রাজিল, স্পেন ও জার্মানি।

ম্যারাডোনা বলেছেন, ‘স্পেন, জার্মানি তো আছেই, ব্রাজিলের রক্ষণও কিন্তু দুর্দান্ত। ব্রাজিলের রক্ষণের কথা ভাবলে আপনার মাথায় ছয়-সাতজন ভালো ডিফেন্ডারের নাম আসবে। কিন্তু ওদের আক্রমণের কথা ভাবলে শুধু নেইমারের কথাই মনে পড়বে। লিওর জন্য এটা হবে মানসিক দৃঢ়তার চরম পরীক্ষা। মনের ভেতর যত কান্না জমিয়ে রেখেছে সব বের করে দেওয়ার। ব্রাজিল বিশ্বকাপ হবে মেসির প্রতিশোধের।’