‘‘মুজিব কোট পরে অপরাধীরা ঘাপটি মেরে সরকারের ক্ষতি করছ ‘’

প্রকাশ:| শনিবার, ২৬ ডিসেম্বর , ২০১৫ সময় ০৭:৫০ অপরাহ্ণ

মুজিব কোট
হালিশহর-বন্দর, পতেঙ্গা-ইপিজেড অঞ্চলের মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ পরিবারের সাথে সাবেক সিটি মেয়র এবং নগর আঃলীগ সভাপতি আলহাজ্ব এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরীর সাথে এক মত বিনিময় সভা ৩৯নং ওয়ার্ড দক্ষিণ হালিশহর নিউমুরিংস্থ কাউন্সিলর হাজী জিয়াউল হক সুমন এর বাসভবন প্রাঙ্গনে ২৬ ডিসেম্বর শনিবার সকাল ১১টায় ইপিজেড থানা আঃলীগ আহবায়ক হাজী হারুন অর-রশিদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়।
মত বিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মহিউদ্দিন চৌধুরী বলেন, প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা এবং তাদের পরিবারবর্গদের সঠিক মর্যাদা ও সম্মান দেশ-জাতি দিতে না পারলে আগামী প্রজন্মরা হতাশাগ্রস্থ হয়ে সাহস হারিয়ে ফেলবে। মুক্তিযুদ্ধ পরিবারকে নিজ উদ্যেগেই তাদের আত্মীয় ও পরিজনদের নিজ দলের প্রতি আনুগত্য করতে এবং বঙ্গবন্ধুর আদর্শে আওয়ামী রাজনৈতির প্রতি আগ্রহী করতে সচেষ্ট হতে হবে। শুধুমাত্র নেতা-নেত্রীদের দেখানোর জন্য মুজিব কোট পরিধান করলেই আওয়ামী লীগ হয়ে গেলাম সেটি নিতান্তই ঠিক নহে। এই লোক দেখানো মুজিব কোট পরিহিত আঃলীগ নেতাদের মধ্যেও অপরাধীরা ঘাপটি মেরে সরকার ও দলের ক্ষতি করছে। এদের ব্যাপারে সজাগ থেকে দলের প্রতি ত্যাগী, আদর্শবান, রাজনৈতিক কর্মঠ ব্যক্তিদের দলে যথাযথভাবে স্থান দিয়ে চট্টগ্রাম মহানগর আঃলীগ তথা মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তিকে দৃঢ় করার জন্য মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি আহবান জানান। তিনি মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি আরও বলেন যে, মুক্তিযুদ্ধ শেষ হলেও রাজনৈতিক যুদ্ধে সকলকেই সামনে কঠিনভাবে অংশগ্রহণ নিতে প্রস্তুত থাকতে বলেন। এছাড়া তিনি নিজ দলের যুবলীগ ছাত্রলীগ নেতাদের পরিশুদ্ধ রাজনীতি করতে মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের বঙ্গবন্ধুর আদর্শ রচিত আঃলীগের প্রতি অবশ্যই চর্চা ভিত্তিক রাজনৈতিক কর্মী হওয়ার জন্য দৃঢ় আহবান জানান। দখলবাজি, টেন্ডারবক্স লুট এবং মাদক বিরোধী কর্মকান্ড থেকে বিরত থাকতে অনুরোধ করেন।
মতবিনিময় চলাকালে এলাকার গ্যাস, বিদ্যুৎ ও ওয়াসার পানির সমস্যা এবং চট্টগ্রাম বন্দরে কোঠা ভিত্তিক যোগ্যতা সম্পন্ন স্থায়ী, মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সন্তান-সন্তাদিদের চাকরীতে নিয়োগসহ বিশেষ করে আউটার রিং-রোড প্রকল্পে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারদের পূর্নঃবাসন করার জন্য জাইকা প্রকল্প কর্তৃপক্ষ ও সিডিএ চেয়ারম্যানকে দৃষ্টি আকর্ষন করে এর যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য এলাকাবাসি সাবেক মেয়রের প্রতি অনুরোধ করেন।
মুক্তিযোদ্ধা এম এ তাহেরের পরিচালনায় মতবিনিময় সভাতে আরও বক্তব্য রাখেন বন্দর থানা সভাপতি নূরুল আলম, সাঃ সম্পাদক হাজী জহুর আহম্মদ চৌধুরী, পতেঙ্গা থানা আঃলীগ নেতা ও নগর সদস্য হাজী শফিক আহম্মেদ, মুক্তিযোদ্ধা জাফর আহম্মদ, বন্দর থানা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার কামরুল আলম জতু, পতেঙ্গা থানার কমান্ডার এমরান গাজী, ৩৯নং ওয়ার্ড সাধারন সম্পাদক হাজী শফিউল আলম, হালিশহর পতেঙ্গা শিল্পাঞ্চালিক শ্রমিকলীগ সভাপতি আবু তাহের, মোঃ ইউনুছ, হাজী মোঃ হাসান, কাউন্সিলর জিয়াউল হক সুমন, মোঃ আলী, শাহ্নেওয়াজ চৌধুরী, হাজী ইমাম শরীফ, এইচ.এম মুসা খান, মোঃ আইয়ুব, মোঃ জাহাঙ্গির, মুক্তিযোদ্ধা আবুল কালাম আবু, সহ৩৭,৩৮,৩৯,৪০,৪১ নং ওয়ার্ডের মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ পরিবারের সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
পরিশেষে প্রয়াত সকল মুক্তিযুদ্ধ এবং যোদ্ধাহত, শহীদ পরিবারের কল্যান কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।