মুজাহিদের ফাঁসির রায় হওয়ায় জনপ্রত্যাশা পূরণ হয়েছে

প্রকাশ:| বুধবার, ১৭ জুলাই , ২০১৩ সময় ০৩:১৯ অপরাহ্ণ

গণজাগরণ মঞ্চের সমন্বয়কারী শরীফ চৌহান বলেন, ‘আলবদর বাহিনীর শীর্ষনেতা মুজাহিদের ফাঁসির রায় হওয়ায় জনপ্রত্যাশা moncho-2013jpg20130717013758পূরণ হয়েছে। তাই এ রায়ে জাতি খুশি।’তিনি অবিলম্বে মানবতাবিরোধী অপরাধে মৃত্যুদন্ড পাওয়া যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসির রায় কার্যকর করার আহবান জানান।

এদিকে রায় ঘোষণার পরপরই স্বাধীনতা চত্বর থেকে তাৎক্ষণিক মিছিল বের গণজাগরণ মঞ্চ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন গণজাগরণ মঞ্চের সমন্বয়কারী ও সাম্প্রদায়িকতা বিরোধী তরুণ উদ্যোগের আহবায়ক শরীফ চৌহান, নারী নেত্রী নূরজাহান খান, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব ডা. চন্দন দাশ, কমিউনিস্ট পার্টি চট্টগ্রাম জেলার সভাপতি মৃণাল চৌধুরী, সংস্কৃতি কর্মী অনুপ সাহা প্রমুখ।রায় ঘোষণার বুধবার দুপুরে নগরীর বিভিন্ন এলাকা থেকে খন্ড খন্ড মিছিল নিয়ে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ জড়ো হচ্ছে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থিত স্বাধীনতা চত্বরে।মানবতাবিরোধী অপরাধে জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মুজাহিদের মৃত্যুদন্ডের রায় ঘোষণার পর মুখর হয়ে উঠেছে চট্টগ্রামের স্বাধীনতা চত্বর।
‘জয় বাংলা’ শ্লোগানে শ্লোগানে আবার জেগে উঠেছে স্বাধীনতা চত্বর। মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে ঘাতক বাহিনী আলবদরের অন্যতম শীর্ষ নেতা আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদের প্রত্যাশিত রায় ঘোষিত হওয়ায় সবার মাঝে উচ্ছ্বাসের ঢেউ ছড়িয়ে পড়ে। আনন্দে উল্লাসে মেতে উঠে সবাই।
নারীনেত্রী নূরজাহান খান বলেন,‘মহান মুক্তিযুদ্ধে গণহত্যায় যুক্ত মুজাহিদের ফাঁসির রায় হওয়ায় খুশি। তবে রাজাকার শিরোমণি গোলাম আজমের ফাঁসির রায় হলে আরও বেশি ভাল লাগত।’

এদিকে একই এলাকায় বুধবার সকালে জামায়াতে ইসলামের ডাকা হরতাল প্রত্যাখান করে নগরীর জামালখানে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি।

মানবতাবিরোধী অপরাধে অভিযুক্ত জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদের রায়ের প্রতিবাদে জামায়াত সারাদেশে বুধবার দিনব্যাপী হরতাল ডাকে। তবে এ হরতাল প্রত্যাখান করে বুধবার সকালে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব চত্বরে অবস্থান নেয় একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির নেতাকর্মীরা।