মুক্তিপণ চাওয়া হয়নি, অপহরণ পরিকল্পিত

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ১৭ এপ্রিল , ২০১৪ সময় ০৫:১১ অপরাহ্ণ

image_86805_0স্বামী আবুবকর সিদ্দিকের মুক্তিপণ চেয়ে কোনো ফোন আসেনি বলে জানিয়েছেন বেলার প্রধান নির্বাহী সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান। সুতরাং পরিবেশবিদ হিসেবে তার কাজের জন্য যারা ক্ষুব্ধ হয়েছেন তারাই স্বামীকে অপহরণ করেছে বলে তিনি দাবি করেছেন।

বৃহস্পতিবার বিকেলে মহাখালীর ব্র্যাক সেন্টারে সুশীল সমাজ আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা জানান।

রিজওয়ানা বলেন, ‘আমার স্বামীর কোনো শত্রু নেই। আমার যেটা ধারণা, আমার পেশাগত কারণেই তাকে অপহরণ করা হতে পারে। কারণ আমি পরিবেশ ও মানুষের অধিকার নিয়ে সব সময় সোচ্চার ছিলাম। এ কারণেই মাঝে মধ্যে কেউ কেউ আমার ওপর নাখোশ হতেন। আবার অনেকেই আমার কর্মকাণ্ডে অভিনন্দনও জানাতেন।’

তিনি আরো বলেন, ‘বেশ কয়েক জন আমাকে মোবাইল ফোনে স্বামীর সন্ধানের জন্য কিছু লোককে ধরতে বলেন। অথচ তারা যাদের নাম বলেন তারা উল্লেখযোগ্য কেউ নন। আমি বিষয়টি এখনো পুরোপুরিভাবে বুঝে উঠতে পারছি না।’

উল্লেখ্য, গতকাল বুধবার বিকেল সোয়া ৩টায় আবুবকর তার প্রাইভেটকারে করে নারায়ণগঞ্জ থেকে ঢাকায় আসছিলেন। ফতুল্লার ভূইয়া ফিলিং স্টেশনের সামনে আসা মাত্র একটি হাইয়েস গাড়ি দিয়ে তার পথরোধ করা হয়। পরে ওই গাড়ি থেকে ৭ থেকে ৮ জন যুবক লাঠিসোটা ও অস্ত্রের মুখে এবি সিদ্দিককে তুলে নিয়ে যায়।

এদিকে বাংলাদেশের জাহাজভাঙা শিল্পের বিরুদ্ধে বেলার প্রধান নির্বাহী সৈয়দা রিজওয়ানা হাসানা প্রথম সোচ্চার হন। বিষয়টি তিনি আদালত পর্যন্ত নিয়ে যান। অবশ্য সরকার শেষ পর্যন্ত একে শিল্প হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে। এ শিল্পের বিরোধিতা করতে গিয়ে সৈয়দা রিজওয়ানা নানাভাবে হয়রানিরও শিকার হন।

এছাড়া সুন্দরবন সংলগ্ন এলাকায় কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনেরও ঘোর বিরোধী তিনি। কিন্তু সরকার এ আমলেই সেখানে বিদ্যুৎকেন্দ্র করার বিষয়টিকে প্রাধান্য দিচ্ছে বলে ঘোষণা দিয়েছে।


আরোও সংবাদ