মীর কাশেম আলীর ফাঁসির রায় বহালে আনন্দ মিছিল

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ৩০ আগস্ট , ২০১৬ সময় ০৮:০০ অপরাহ্ণ

আনন্দ মিছিল

মানবতা বিরোধী অপরাধের দায়ে জামায়াতের সদস্য মীর কাশেম আলীর ফাঁসি রায় বহাল রাখায় আনন্দ মিছিল করেছে চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগ।
মঙ্গলবার দুপুর ১২টায় মীর কাশেম আলীর ফাঁসির রায় বহালের সংবাদ আসা মাত্রই চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের আনন্দ মিছিলটি প্রেস ক্লাব চত্বর থেকে শুরু হয়ে চেরাগী পাহাড় হয়ে আন্দরকিল্লা চৌরাস্তা প্রদক্ষিণ করে আবার প্রেস ক্লাব এসে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।
এসময় বক্তব্য রাখতে গিয়ে নগর ছাত্রলীগের সভাপতি ইমরান আহমেদ ইমু বলেন, মীর কাশেম আলীর ফাঁসির রায় বহালের মাধ্যমে বাঙ্গালী জাতি আজ স্বস্তির নিঃশ্বাস নিচ্ছে। যুদ্ধ চলাকালীন সময়ে চট্টগ্রামের ডালিম হোটেলে হাজার হাজার মুক্তিকামী মানুষকে নির্যাতন করা হত। এ ডালিম হোটেলকে তিনি টর্চার সেল হিসেবে ব্যবহার করে নরকে পরিণত করেছিল। তাই আজ আমরা মহানগর ছাত্রলীগ পরিবার মীর কাশেমের ফাঁসির রায় বহালে আনন্দিত।
এসময় চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নূরুল আজিম রনি বলেন, ‘৭১’র যুদ্ধকালীন সময়ে মুক্তিযোদ্ধা ও বাঙ্গালীদের হত্যা ও নির্যাতনের পিছনে সরাসরি জড়িত ছিলেন। চট্টগ্রামের মহামায়া ভবন দখল করে গড়া ডালিম হোটেলে মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের লোকজনদের ধরে অমানুষিকভাবে নির্যাতন করে হত্যা করা হতো। এমনকি স্বাধীনতার পর ডালিম হোটেল থেকে অনেক বাঙ্গালীকে মুমূর্ষু অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। তাছাড়া, সাম্প্রতিক সময়ে মীর কাশেম আলীর ইশারায়ই দেশে উগ্র ধর্মান্ধদের হামলা সংঘটিত হয়। মসজিদ, মাদ্রাসা নির্মানের নামে মধ্য প্রাচ্য থেকে আনা হাজার হাজার কোটি টাকা খরচ করে বিদেশী লবিস্ট নিয়োগের মাধ্যমে ট্রাইব্যুনালকে প্রশ্নবিদ্ধ করার চেষ্টা চালিয়েছিল। আজ তার ফাঁসির রায় বহালের মাধ্যমে দেশবিরোধী নানা ষড়যন্ত্রের অবসান হল। তার ফাঁসির রায় বহালে বাঙ্গালী জাতি কলঙ্কমুক্ত হল।
এসময় বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম মহানগর ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি তালেব আলী, নাজমুল হাসান রুমি, ফররুখ আহমেদ পাভেল, যুুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া দস্তুগীর, রনি মির্জা, সুজন বর্মন, গোলাম ছামদানি জনি, সাংগঠনিক সম্পাদক খোরশেদ আলম মানিক, খোরশেদ আলম, উপসম্পাদ আবু হানিফ রিয়াদ, আবদুল আহাদ, ফরহাদ তপু, সহ-সম্পাদক নাদিম উদ্দিন, মাহমুদুল রহিম বাবু, জিকু ঘোষ।
এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন আশেকান আউলিয়া ডিগ্রি কলেজ ছাত্র সংসদ জিএস এ.কে আমিনুল করিম, এম.ই.এস কলেজ ছাত্রলীগ নেতা নূরু নবী শাহেদ, রফিক হোসেন পাহেল, রবিউল ইসলাম খুকু, সিটি কলেজ নেতা শহীদুল আলম সুমন, হাসিব হাসান সেতু, আবুল কালাম, ইসলামিয়া বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ নেতা বিকাশ দাশ, প্রমুখ।
মিছিল পরবর্তী সমাবেশ শেষে নেতাকর্মীদের মাঝে মিষ্টি বিতরণ করা হয়।