মিয়ানমারের সাত সেনাকে ১০ বছরের কারাদণ্ড

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| বুধবার, ১১ এপ্রিল , ২০১৮ সময় ১২:০৭ অপরাহ্ণ

নিরস্ত্র রোহিঙ্গা মুসলিমদের হত্যার দায়ে মিয়ানমারের সাত সেনাকে ১০ বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। দেশটির সেনাবাহিনী মঙ্গলবার এ তথ্য জানিয়েছে।

সেনাবাহিনী এক বিবৃতি জানায়, হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার দায়ে এই সাত সেনার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। সামরিক আদালতে দণ্ডিত এই সৈন্যদের ১০ বছর কারাগারে থাকার পাশাপাশি প্রত্যন্ত অঞ্চলে কঠোর শ্রমের কাজেও নিযুক্ত থাকতে হবে।

গত বছরের সেপ্টেম্বরে উত্তর-পশ্চিম রাখাইন রাজ্যের এক গ্রামের ১০ মুসলিম পুরুষকে হত্যা করা হয়। পরে ১৮ ডিসেম্বর রাখাইন রাজ্যের রাজধানী সিতভি থেকে প্রায় ৫০ কিলোমিটার উত্তরে উপকূলীয় গ্রাম ইন দিনে গণকবরে ওই ১০ জনের মৃতদেহ পাওয়া যায়।

রয়টার্সের দুই সাংবাদিক ওয়া লোন (৩১) এবং কিয়াও সোয়ের (২৮) তদন্তে এই গণহত্যার বিষয়টি উঠে আসে। রাষ্ট্রের গোপনীয়তা লঙ্ঘনের অভিযোগে ডিসেম্বরেই তাদের গ্রেফতার করা হয় এবং এখনো তারা বন্দি রয়েছেন।

রয়টার্সের অনুসন্ধানে হত্যার চিত্র বেরিয়ে আসার পর মিয়ানমার সেনাবাহিনী জানায়, নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা ওই ১০ জনকে হত্যা করেছে বলে তদন্তে উঠে এসেছে এবং এ ঘটনায় তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

গত বছরের ২৫ আগস্ট রাখাইনে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর পূর্ব-পরিকল্পিত সহিংসতা জোরালো হয়। হত্যা-ধর্ষণসহ বিভিন্ন ধারার সহিংসতা ও নিপীড়ন থেকে বাঁচতে বাংলাদেশে পালিয়ে আসে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর প্রায় ৭ লাখ মানুষ।

জানুয়ারিতে সম্পাদিত ঢাকা-নেপিদো প্রত্যাবাসন চুক্তি অনুযায়ী বাংলাদেশে আশ্রিত রোহিঙ্গাদের রাখাইনে ফিরিয়ে নেওয়া শুরু হওয়ার কথা থাকলেও বাংলাদেশের পাঠানো প্রথম ৮ হাজার রোহিঙ্গার তালিকা নিয়েই শুরু হয়েছে আমলাতান্ত্রিক জটিলতা।

জাতিসংঘ, অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল, যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন সংস্থা ধারাবাহিকভাবে বলে আসছে, রাখাইন এখনো রোহিঙ্গাদের জন্য নিরাপদ নয়। রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনকে অবশ্যই স্বেচ্ছামুলক ও নিরাপদ হতে হবে। তাদের ফিরিয়ে দিতে হবে নিরাপদে। সূত্র: গার্ডিয়ান