মিরসরাইয়ে প্রতিবন্ধী শিশুকে ধর্ষণ, একজনকে কুপিয়ে ইজ্জত বাঁচাল কিশোরী

প্রকাশ:| বুধবার, ৮ অক্টোবর , ২০১৪ সময় ১০:৪৫ অপরাহ্ণ

মিরসরাই সংবাদদাতা
মিরসরাইয়ে ৮ বছর বয়সী শারিরীক, মানসিক ও বাক প্রতিবন্ধী এক শিশু ধর্ষণের শিকার হয়েছে। উপজেলার ধূম ইউনিয়নের উত্তর মোবারক ঘোনা গ্রামের মৃত জাকির হোসেনের ছেলে হোরা মিয়া খেলা থেকে ডেকে নিয়ে শিশুটির হাত বেধে এবং মুখ চেপে ধরে পাশবিক এই নির্যাতন চালায়। ধর্ষিতা শিশুটি বর্তমানে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (চমেক) চিকিৎসাধীন রয়েছে। গত মঙ্গলবার (৭অক্টোবর) সকালে উত্তর মোবারক ঘোনা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
এদিকে উপজেলার করেরহাট ইউনিয়নের সাবেনীখিল এলাকায় এক কিশোরী নিজের ইজ্জত বাঁচাতে চিকন ত্রিপুরা (৫০) নামে একজনকে কুপিয়ে আহত করেছে। ঈদের দিন দুপুরে এঘটনা ঘটে। চিকন ত্রিপুরা এলাকার থাংচাই ত্রিপুরার ছেলে। এঘটনায় কিশোরীর পরিবার থেকে জোরারগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দেয়া হয়েছে।
ধর্ষিতা শিশুর বাবা বলেন, আমার মেয়ে জন্ম থেকে মানসিক, শারিরিক ও বাক প্রতিবন্ধী। গ্রামের অন্যন্য ছেলেপুলেদের সাথে খেলা করার সময় হোরা নিজের ঘরে ডেকে নিয়ে গিয়ে আমার অসুস্থ মেয়েটির ওপর পৈশাচিক নির্যাতন চালিয়েছে। এসময় প্রচন্ড রক্তপাত হয়ে শিশুটি জ্ঞান হারিয়ে ফেললে সে পালিয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা ওই শিশুকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করায়। পরে অবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে চমেকে স্থানান্তর করে। আমি ওই লম্পটের উপযুুক্ত শাস্তি চাই। অভিযুক্তকে বাঁচাতে এলাকার এক প্রভাবশালী বিষয়টি স্থানীয় ভাবে মীমাংসা করার চেষ্টা চালাচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।
জোরারগঞ্জ থানার এসআই মো. আলমগীর হোসেন জানান, মঙ্গলবার পুলিশি হেফাজতে ধর্ষিতা শিশুটিকে চমেকের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে ভর্তি করনো হয়েছে। এ ঘটনায় ধর্ষক হোরা মিয়ার বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। তাকে ধরতে পুলিশ অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে।

এদিকে ঈদের দিন দুপুরে করেরহাট ইউনিয়নের সাবেরীখিল এলাকায় এক আদিবাসী কিশোরীকে ধর্ষণের চেষ্টা করার সময় চিকন ত্রিপুরা নামে একজনকে কুপিয়ে ইজ্জত রক্ষা করেছে ওই কিশোরী। এঘটনায় ওই কিশোরী জোরারগঞ্জ থানায় একটি অভিযোগ দিয়েছে। তবে অভিযুক্ত চিকন ত্রিপুরা ওই কিশোরীর পরিবারের বিরুদ্ধে মিথ্যা একটি অভিযোগ থানায় দিয়ে হয়রানি করছে বলে অভিযোগ করে ওই কিশোরী।
ওই কিশোরী জানায়, সে পাহাড়ে কাঠ সংগ্রহ করার সময় চিকন ত্রিপুরা তাকে ধর্র্ষণের চেষ্টা চালায়। একপর্যায়ে নিজের ইজ্জত রক্ষা করতে হাতে থাকা দা দিয়ে চিকন ত্রিপুরাকে কুপিয়ে নিজের ইজ্জত রক্ষা করেন।
করেরহাট আদিবাসী পাড়ার সর্দার ঊষা ত্রিপুরা, হরি ত্রিপুরা ও দয়াল ত্রিপুরা জানান, মেয়েটিকে ধর্ষণের চেষ্টা করলে নিজের ইজ্জত রক্ষায় সে চিকন ত্রিপুরাকে আহত করে।
জোরারগঞ্জ থানার দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আলমগীর বলেন, দুই পক্ষ থেকে দুইটি অভিযোগ পাওয়া গেছে। তদন্ত করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।