মিরসরাইয়ে একই স্থানে দুই ওয়াজ মাহফিল, সংঘর্ষের আশংকায় পুলিশ মোতায়েন

প্রকাশ:| রবিবার, ২২ মার্চ , ২০১৫ সময় ০৭:৩৭ অপরাহ্ণ


মিরসরাই, সংবাদদাতা

চট্টগ্রামের মিরসরাইয়ে একই স্থানে দুই পক্ষের ওয়াজ মাহফিল আয়োজনকে ঘিরে উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। অনাকাঙ্খিত কোন ধরনের ঘটনা এড়াতে পুলিশ এরই মধ্যে উভয় পক্ষকে মাহফিল করতে নিষেধ করেছেন। ওয়াজ মাহফিলের স্থানে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।
জানা গেছে, উপজেলার আবুরহাট বাজারে একই সময়ে মাহফিলের আয়োজন করেছে আহলে সুন্নি ও হেফাজতে ইসলাম অনুসারীরা। রবিবার দুপুরে ওয়াজ মাহফিলের আয়োজন করে আহলে সুন্নি আন্দোলনের অনুসারী আবুরহাট আঞ্চলিক যুব সমাজ ও হেফাজত ইসলামের অনুসারী আবুরহাট মনিরুল ইসলাম মাদ্রাসা। ওয়াজ মাহফিলের জন্য প্রচার পত্র বিলি ও মাইকিং করা হয়। বিষয়টি আবুরহাট বাজার কমিটির নজরে আসে। তারা উভয় পক্ষকে নিয়ে শনিবার রাতে এক জরুরী বৈঠকে মিলিত হয়। বৈঠকে উভয় পক্ষকে একই স্থানে ওয়াজ মাহফিল না করা অনুরোধ জানান বাজার কমিটির নেতৃবৃন্দ। কিন্তু বাজার কমিটির অনুরোধ আবুরহাট আঞ্চলিক যুব কমিটি মেনে নিলেও আবুরহাট মনিরুল ইসলাম মাদ্রাসা মেনে নেয়নি। তারা রাতের আধারে আবুরহাট বাজারে প্যান্ডেল তৈরি করে। পরে বাজার কমিটি জোরারগঞ্জ থানা পুলিশকে বিষয়টি অবহিত করে। পুলিশ গিয়ে আবুরহাট বাজারে অবস্থান নেয়।
এদিকে মাদ্রাসা প্রাঙ্গণে মাহফিল করা জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার অনুমতি চাইতে গেলে মনিরুল ইসলাম মাদ্রাসাকে অনুমতি দেয়া হয়নি।
আবুরহাট বাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন জানান, একই স্থানে দুই সংগঠন ওয়াজ মাহফিলের আয়োজন করায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে। পরে তিনি উভয় পক্ষকে নিয়ে একটি জরুরী বৈঠকে বসেন। কিন্তু বৈঠকের সিদ্ধান্ত মনিরুল ইসলাম মাদ্রাসা মেনে না নেয়ায় পুলিশ প্রশাসনের সহায়তা নেয়া হয়।
জোরারগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা লিয়াকত আলী জানান, দুই সংগঠন একই স্থানে ওয়াজ মাহফিলের আয়োজন করায় অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। উভয় পক্ষকে ওয়াজ মাহফিল না করতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ঘটনাস্থানে জোরারগঞ্জ থানার পুলিশের একটি টিম রয়েছে।
মিরসরাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহম্মদ আশরাফ হোসেন জানান, মনিরুল ইসলাম মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ ওয়াজ মাহফিলের জন্য অনুমতি চাইতে এলে তিনি জেলা প্রশাসকের অনুমতি লাগবে বলে তাদের জানিয়েছেন।


আরোও সংবাদ