মামাতো ভাইকে নিজ ঘরে পুঁতে রাখলো ফুফাতো ভাই

প্রকাশ:| শুক্রবার, ২ জানুয়ারি , ২০১৫ সময় ০৯:১৮ অপরাহ্ণ

নিখোঁজের ১৫ দিন পর মশিউর রহমান মিছলুর লাশ পাওয়া গেল তার ফুফাতো ভাই শফিক মিয়ার ঘরে মাটির নিচে। পুলিশ বৃহস্পতিবার রাত আড়াইটার দিকে শফিককে আটক করে। পরে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে মশিউরের লাশের সন্ধান পায় পুলিশ। মৌলভীবাজার সদর উপজেলার খলিলপুর ইউনিয়নের গুরারাই গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। মৌলভীবাজার পৌর শহরের পশ্চিম কাজির গাঁও এলাকার নেছা মঞ্জিলের মৃত আতাউর রহমানের ছেলে মশিউর রহমান মিছলু (৪২)। গত ১৫ই ডিসেম্বর বেলা ২টার দিকে নিখোঁজ হন। এ ঘটনার পরে মশিউর রহমানের স্ত্রী মায়া বেগম মৌলভীবাজার মডেল থানায় গত ১৮ই ডিসেম্বর অভিযোগ করেন। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, গত ১৪ই ডিসেম্বর মশিউর রহমান তার স্ত্রী, ১ ছেলে ও ১ মেয়েকে নিয়ে সদর উপজেলার খলিলপুর ইউনিয়নের কেশবচর গ্রামের শাশুড় বাড়িতে বেড়াতে যান। পরের দিন মশিউর তার প্রয়োজনে শহরের কাজির গাঁওয়ের বাড়িতে আসার কথা বলে বেলা ২টায় চলে আসেন। এর পর থেকে তিনি নিখোঁজ ছিলেন। পরে পুলিশ হবিগঞ্জ জেলার চুনারুঘাট থেকে পর্যায়ক্রমে তিন যুবককে আটক করে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করে এক নারীর নিকট মশিউরের মোবাইল ফোনের সন্ধান পায় পুলিশ। ওই নারী জানান, সে সফিকের কাছ থেকে ওই মোবাইল পেয়েছেন। বৃহস্পতিবার পুলিশ সিলেট থেকে শফিককে আটক করে। তাকে জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে জানান, মশিউরকে হত্যা করে লাশ পুঁতে রেখেছে তার নিজ ঘরের শোয়ার ঘরে। পুলিশ মাটি খুড়ে লাশের সন্ধান পায়। আজ ম্যাজিষ্ট্রেটের উপস্থিাততে লাশ তোলা হবে। মৌলভীবাজার মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুছ ছালেক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।