মামলার স্বাক্ষীকে অপহরণ পূর্বক হত্যার চেষ্টা

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ১৪ ফেব্রুয়ারি , ২০১৭ সময় ১২:০৩ পূর্বাহ্ণ

কায়সার হামিদ মানিক, উখিয়া:
উখিয়ায় মামলায় স্বাক্ষী দেওয়ায় স্বাক্ষীকে অপহরণ পূর্বক হত্যার চেষ্টা চালিয়েছে উখিয়া উপজেলার শীর্ষ ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের তালিকাভুক্ত মানবপাচার, ইয়াবা ও অপহরণ সহ বহু মামলার পলাতক আসামী জালিয়াপালং ইউনিয়নের পাইন্যাশিয়া গ্রামের নুরুল ইসলাম প্রকাশ গাছ কালুর পুত্র মোঃ সেলিম ও তার বাহিনীরা। অপহরণের তিন ঘন্টা পর উদ্ধার করে অপহৃত রাজাপালং ইউনিয়নের তুতুরবিল গ্রামের হাজী মীর কাশেমের পুত্র মোঃ আমিন প্রকাশ রাজাকে উদ্ধার করে উখিয়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
জানা যায়, গত ১২ ফেব্রুয়ারী দিবাগত রাত ১২টার দিকে কক্সবাজার থেকে মেরিন ড্রাইভ সড়ক হয়ে বাড়ি ফেরার পথে সোনার পাড়া বাজারে সেলিম ও তার সহযোগী ৩/৪ জনের একটি মুখোষদারী দল সিএনজি যোগে তাকে অতর্কিত অবস্থায় রাস্তায় ব্রিরিগেট দিয়ে অপহরণ করে পাইন্যাশিয়া এলাকার ধান ক্ষেতের মটর ঘরে নিয়ে উপর্যুপরি দেশীয় অস্ত্র দিয়ে বেধম প্রহার করে। এসময় তার কাছে থাকা নগদ ২৩ হাজার টাকা ও স্যামসাং এস-৩ মডেলের একটি মোবাইল ছিনিয়ে নেয়। তার চিৎকার শুনে পাশ্ববর্তী এক মহিলা এসে ঘটনা দেখতে পেয়ে এলাকাবাসীকে খবর দেয়। এলাকাবাসী দ্রুত এসে আমিনকে উদ্ধার করে পরিবারের কাছে খবর দেয়। এসময় সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। পরে ভোর রাতে তাকে উখিয়া হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। আমিন অভিযোগ করে বলেন, আমি জনৈক বশর নামক এক ব্যক্তির অপহরণ মামলার স্বাক্ষী দেওয়ার অপরাধে সেলিম ও তার বাহিনীরা আমাকে কক্সবাজারের এক আত্মীয়ের বাড়ি থেকে ফেরার পথে উৎপেতে থাকা সেলিম বাহিনীরা অপহরণ করে টাকা ও মোবাইল ছিনিয়ে নেয়।
সেলিম বিরুদ্ধে উখিয়া থানায় মানবপাচার, ইয়াবা ও অপহরণ সহ ডজন খানেক মামলা রয়েছে। এছাড়াও গত বছর কোটবাজার দক্ষিণ ষ্টেশন থেকে গাড়ি ব্যবসায়ী তুতুরবিলের বাসিন্দা আবুল বশরকে অপহরণ করে ছিল। পরে র‌্যাব- ৭ এর একটি দল কক্সবাজার লিংক রোড থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়েছিল। এব্যাপারে আমিন বাদী হয়ে উখিয়া থানায় একটি এজাহার দায়ের প্রস্তুতি নিচ্ছে বলে জানা গেছে।