মাদক আমাদের জাতীয় সমস্যা

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ২৩ মে , ২০১৭ সময় ০৮:২২ অপরাহ্ণ

“কারিতাসের মাদক বিরোধী সভায় বক্তারা”

মাদকের ভয়াবহতা সমাজকে বিশেষ করে তরুণ সমাজকে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে যাচ্ছে। সমাজের বিভিন্ন স্তরের ব্যক্তি এবং প্রতিষ্ঠানের সমন্বয়ের মাধ্যমেই কেবল মাদক নির্মূল সম্ভব। পাশাপাশি একজন মাদকাসক্ত ব্যক্তিকে সুস্থ্য করতে পরিবারেরও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। দেশের উন্নয়নের পথে অন্যতম প্রধান অন্তরায় মাদকের অবাধ বিস্তার। এটা কোন ব্যক্তি বা গোষ্ঠীর সমস্যা নয় এটা জাতীয় সমস্যা। এখনই সময় একযোগে মাদক প্রতিরোধে কাজ করার। কারিতাস চট্টগ্রাম অঞ্চলের অধীন স্মাইল প্রকল্প বাকলিয়া ড্রপ ইন সেন্টারের উদ্যোগে মাদক বিরোধী নেটওয়ার্কিং ফোরামের ষান্মাসিক সভায় বক্তারা এ কথা বলেন।

মাদকমুক্ত সমাজ প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যেকে সামনে রেখে মে ২৩ সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাগণ এবং সুশীল সমাজের প্রতিনিধিসহ তৃণমূল পর্যায়ের ব্যক্তিবর্গের অংশগ্রহণে কারিতাস স্মাইল প্রকল্পের বাকলিয়া ডিআইসিতে এ মাদক বিরোধী নেটওয়ার্কিং ফোরামের সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হয়। ডিআইসি ইনচার্জ দেবব্রত পালের সঞ্চালনায় শুরু হওয়া এ সভায় সভাপতিত্ব করেন কারিতাস স্মাইল প্রকল্পের প্রোগ্রাম অফিসার মোহাম্মদ এমদাদুল ইসলাম চৌধুরী। সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মোঃ জিল্লুর রহমান এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চসিক ১৯ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলন ইয়াছিন চৌধুরী এবং মহিলা কাউন্সিলর ফারজানা পারভীন। অন্যান্য অতিথিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাকলিয়া ডিআইসি এ্যাডভাইজারী কমিটির সদস্য নাজিম উদ্দিন, ডা. ফরিদ আহম্মদ, মুহম্মদ হাবিব মনসুর, জয়নাল আবেদিন, শিক্ষক প্রতিনিধি তাপস কুমার দাশ ও মোঃ রফিকুল ইসলাম, ধর্মীয় প্রতিনিধি মৌলানা নুরুর আমিন সিদ্দিকি, এনজিও প্রতিনিধির মধ্যে ঢাকা আহসানিয়া মিশনের মোঃ হারুন-উর-রশিদ, বিটা’র আয়শা খানম, ইউসেপে’র আঁখী বড়–য়া, ওয়াল্ড ভিশন প্রতিনিধি কমল পাল ও মমতা, ব্র্যাক প্রতিনিধি সুতৃষ্ণা চক্রবর্তীসহ সামাজিক দলের নেতৃবৃন্দ ও অন্যান্য অতিথিবৃন্দ।

কাউন্সিলরদ্বয় বলেন, ১৯ নং ওয়ার্ডে মাদকের ভয়াবহতা অত্যন্ত বেশি। তারা মাদক প্রতিরোধে সমাজের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ ও সংগঠনকে এ নেটওয়ার্কিং ফোরামে যুক্ত করার আহবান রাখেন এবং প্রশাসনকে আরও কার্যকর ভূমিকা রাখার আহবান রাখেন। মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মোঃ জিল্লুর রহমান বলেন, তরুণ সমাজকে মাদকের ভয়াবহতা হতে মুক্ত করতে হলে ব্যাপক জন সচেতনতা প্রয়োজন। তিনি আরও বলেন, পর্যাপ্ত লোকবলের অভাবে এবং মাদকের বিস্তার রোধে সীমিত বেসরকারি উদ্যোগের কারণে এ বিষয়ে দৃশ্যমান উন্নয়ন কম। এ পরিস্থিতিতে কারিতাসের এ উদ্যোগ উৎসাহ ব্যঞ্জক।

সভায় অন্যান্য বক্তারা বলেন, মাদক প্রতিরোধে কারিতাসের এ সময়োপযোগী পদক্ষেপের প্রশংসা করে এবং নেটওয়ার্কিং ফোরামে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসহ সকলকে সম্পৃক্ত করা গেলে এ বিষয়ে কার্য্যকরী সাফল্য আসবে বলে মন্তব্য করেন।