মাটিরাঙ্গায় বাঙ্গালী হত্যার প্রতিবাদে মিছিল-সমাবেশ

প্রকাশ:| সোমবার, ৩০ মার্চ , ২০১৫ সময় ১১:৩৩ অপরাহ্ণ

বান্দরবান প্রতিনিধি॥
মাটিরাঙ্গায় বাঙ্গালী ব্যবসায়ী হত্যার প্রতিবাদে বান্দরবানে মিছিল-সমাবেশ হয়েছে। আজ সোমবার বিকালে জাগো পার্বত্যবাসী সংগঠনের ব্যানারে বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষ এবং রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মীরা এই কর্মসূচী পালন করেন। পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গায় বাঙ্গালী ব্যবসায়ী আবুল হোসেন’কে পাহাড়ী চাঁদাবাজ সন্ত্রাসীরা হত্যার প্রতিবাদে বান্দরবানে বিক্ষোভ মিছিল করা হয়েছে। শহরের বিভিন্ন স্থান থেকে বাঙ্গালীরা খন্ড খন্ড মিছিল নিয়ে জড়ো হয় সভাস্থলে। পরে প্রেসক্লাবের সামনে জাগো পার্বত্যবাসী সংগঠনের শীর্ষনেতা আবিদুর রহমানের সভাপতিত্বে অন্যান্যদের মধ্যে শ্রমিকনেতা কামাল উদ্দিন, আব্দুল জলিল, যুবনেতা গোলাম সরোয়ার সোহাগ, মোহাম্মদ সালেহ’সহ সংগঠনের নেতাকর্মীরা বক্তব্য রাখেন।
সমাবেশে আবিদুর রহমান বলেন, পাহাড়ে চাঁদাবাজি-সন্ত্রাস, অপহরণ এবং হত্যা কর্মকান্ড বন্ধে প্রশাসন-আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে কোনো পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছেনা। অস্ত্রধারী পাহাড়ী চাঁদাবাজ সন্ত্রাসীদের গুলিতে আহত হয়ে খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গার কাঠ ব্যবসায়ী আবুল হোসেন মারাগেছে। ব্যবস্থা না নেয়ায় পাহাড়ী অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা আরো বেপরোয়া হয়ে উঠেছে। চাঁদার জন্য বাঙ্গালীদের হত্যা করা হচ্ছে। সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া না হলে পার্বত্যাঞ্চলে কঠোর কর্মসূচী দেয়া হুশিয়ারী উচ্চারণ করেন।
শ্রমিকনেতা আব্দুল জলিল বলেন, পাহাড়ী-বাঙ্গালী সকলেই অস্ত্রধারী সন্তু বাহিনীর হাতে জিম্মি। পাহাড়ে বসবাসরত স্থানীয় পাহাড়ী এবং বাঙ্গালী সকলের কাছ থেকেই চাঁদা আদায় করা হচ্ছে। প্রতিটি কাঠের জোত পারমিট এবং অবকাঠামোগত উন্নয়ন কর্মকান্ডের বিপরীতে সন্ত্রাসীদের চাঁদা দিতে হচ্ছে। চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালেই অপহরণ এবং হত্যা করা হচ্ছে। পাহাড়ীদের অধিকার আদায়ের আন্দোলনের নামে জেএসএস অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীদের আদায় করা চাঁদাবাজির কোটি কোটি টাকা কারা ভাগবাটোয়া করছে সরকারের বিষয়টি খতিয়ে দেখার দাবী জানান।
প্রসঙ্গত: গত বৃহস্পতিবার খাগড়াছড়ির মাটিরাঙ্গায় সন্ত্রাসীদের গুলিতে আহত হয়ে কাঠ ব্যবসায়ী গত শনিবার চিকিৎসাধীন অবস্থায় চট্টগ্রাম মেডিক্যাল হাসপাতালে মারাগেছে।