মাছের মেলা

প্রকাশ:| বুধবার, ১২ ফেব্রুয়ারি , ২০১৪ সময় ১১:৪৭ অপরাহ্ণ

গাবতলী উপজেলার ঐতিহ্যবাহী পোড়াদহ মেলায় এবার উঠেছে ৫৪ কেজি ওজনের বাঘাআইড়। দাম হাঁকা হয়েছে ৬০ হাজার টাকা। বিশাল আকৃতির মাছটি দেখতে ভিড় জমাচ্ছেন দর্শনার্থীরা।
মাছের মেলা
মাছটির বিক্রেতা আব্দুল করিম জানালেন, ৬০ হাজার টাকায় তিনি এটি বিক্রি করতে চান। চাওয়া দামে বিক্রি না হলে কেটে বিক্রি করা হবে। সেক্ষেত্রে প্রতিকেজি ১২শ’ টাকা দরে বিক্রি করা হবে।

আব্দুল করিম আরো জানান, সারিয়াকান্দি উপজেলার যমুনা নদীতে জেলেদের জালে ধরা পড়েছে মাছটি। এখন বিক্রির জন্য মেলায় নিয়ে আসা হয়েছে।

মাছের মেলা হিসেবে পরিচিত পোড়াদহ মেলায় এবার দেখা গেছে ২০ কেজি ওজনের বোয়াল মাছ। অন্য মাছের মধ্যে কোরাল মাছ বিক্রি হচ্ছে ৭৫০ টাকা কেজিতে। বোয়াল মাছ ১১শ টাকা, টুনা মাছ (ছোট) ১২০ টাকা, গাঙ চিতল ২০০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া মেলায় রুই, কাতলা, মৃগেলসহ দেখা গেছে হরেক রকম মাছ।

ঐতিহ্যবাহী পোড়াদহ মেলার মূল আকর্ষণ দেশি-বিদেশি বিভিন্ন প্রজাতির বড় বড় মাছ। কোন বছর কত বড় মাছ মেলায় উঠল আর কারা কিনল তা নিয়েই চলে আলোচনা। দূর-দূরান্ত থেকে লোকজন আসে মাছ কিনতে। বিক্রেতার পাশের দেশ ভারত থেকেও বড় বড় মাছ আসে মেলায়।

বুধবার ভোর থেকে শুরু হয়েছে এ মেলা। রীতি অনুযায়ী পাড়ায় পাড়ায় জামাইসহ মেয়ে এসেছে বাপের বাড়িতে নাইয়র। সঙ্গে যোগ হয়েছে আত্মীয়-স্বজন। শিশু থেকে আবালবৃদ্ধ পর্যন্ত আনন্দে মাতোয়ারা। ধুম পড়েছে প্রতিটি বাড়িতে মাছ আর মিষ্টি কেনার। মেলাকে ঘিরে চলছে উৎসব।

জেলা শহর থেকে প্রায় ১৫ কিলোমিটার দূরে গাবতলীর মহিষাবান ইউনিয়নের গোলাবাড়ী বন্দর সংলগ্ন গাড়ীদহ এলাকার পোড়াদহ নামক স্থান রয়েছে। প্রায় চারশ’ বছর আগে সন্ন্যাসী পূজা উপলক্ষে এখানকার করতোয়া নদী ঘেঁষে বসে একদিনের এ মেলা।প্রতি বছর বাংলা সনের মাঘ মাসের শেষ অথবা ফাল্গুন মাসের প্রথম বুধবার এ মেলা বসে। পূর্ব বগুড়া তথা গাবতলীর ঐতিহ্যবাহী এ মেলা ঘিরে সরগরম হয়ে ওঠে আশপাশ গ্রামের প্রতিটি বাড়ি। একদিনের হলেও মেলাটি মঙ্গলবার, বুধবার ও বৃহস্পতিবার এ তিন দিন চলে। মূল মেলা বুধবার শেষ হলেও আগামীকাল বৃহস্পতিবার একই স্থানে বসবে বউমেলা।

মেলায় আসা স্থানীয় বাসিন্দা আমিনুর জানান, প্রতিবারের মতো এবারও মেলায় বড় বড় মাছ উঠেছে। মাছ কিনতে দূর-দূরান্ত থেকে লক্ষাধিক মানুষের সমাগত ঘটেছে।


আরোও সংবাদ