রোগীর মৃত্যু, হাসপাতাল ভাঙচুর

প্রকাশ:| রবিবার, ১৭ এপ্রিল , ২০১৬ সময় ১০:৪৫ অপরাহ্ণ

নোয়াখালীনোয়াখালীর মাইজদীতে হাসপাতালে রোগী ভর্তির পর চিকিৎসার অবহেলায় এক রোগীর মৃত্যুর অভিযোগে মাইজদী মডার্ণ হসপিটালে হামলা চালিয়ে ভাঙচুর করেছে নিহতের স্বজনরা।
খবর পেয়ে সুধারাম থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

রোববার বিকেল সাড়ে ৩টায় এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নোয়াখালী পৌরসভার মাইজদী কানুগাজী পাড়া মহল্লার বাসিন্দা মৃত শহীদ উল্যার ছেলে শহরের ব্যবসায়ী নুর নবী (৩৭) হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে রোববার সকাল ৭টা ১০ মিনিটের সময় মাইজদী মডার্ণ হাসপাতালে ভর্তি হন। সেখানে জরুরী বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসক নুর নবীকে প্রাথমিক চিকিৎসা সেবা দিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করান। এর পর নোয়াখালী টিবি হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. মো. সাফায়েত হোসেন এসে পুনরায় চিকিৎসাপত্র লিখে দিয়ে চলে যান।
রোগীর স্বজন সুজন অভিযোগ করে বলেন, রোগী ভর্তি হওয়ার পর দীর্ঘ সময় পেরিয়ে গেলেও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বিষয়টির কোনো গুরুত্ব দেয়নি। বেলা ১টার সময় রোগীর শারীরিক অবস্থা ও হার্টের ব্যথা বেড়ে গেলে বিষয়টি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে অবহিত করলেও হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক হাসপাতালে আনতে ব্যর্থ হয়েছে। এতে করে রোগী ছটফট করতে করতে ৩টার সময় মারা যান। রোগীর মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে নিহত রোগীর উত্তেজিত স্বজনরা মডার্ণ হাসপাতালে এসে ভিড় জমায় এবং হামলা-ভাঙচুর করে।
হাসপাতালের প্রশাসনিক কর্মকর্তা শাহাজাহান সিরাজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, নিহতের ৪০-৫০ স্বজন হাসপাতালে এসে বিকেল সাড়ে ৩ টার সময় অতর্কিত হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাঙচুর করে। এতে হাসপাতালের ২০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।
এদিকে, সুধারাম মডেল থানার ওসি মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।