মাইক্রোবাস-মাহিন্দ্রার মুখোমুখি সংঘর্ষ অাহত দু’জনের মৃত্যু

প্রকাশ:| সোমবার, ১৬ মার্চ , ২০১৫ সময় ০৭:১৬ অপরাহ্ণ

ফরহাদ রহমান,টেকনাফ প্রতিনিধি:
টেকনাফ স্থলবন্দর এলাকায় কক্সবাজার-টেকনাফ সড়কে যাত্রীবাহী মাইক্রোবাস-মাহিন্দ্রার মুখোমুখি সংঘর্ষে ঘটনায় আহতদের মধ্যে আরও দু জনের মারা যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে।
পরিবার সুত্রে জানা গেছে, রোববার সড়ক দূর্ঘটনায় আহত অবস্থায় উন্নত চিকিৎসার জন্য সদর হাসপাতালে নেওয়ার হ্নীলা ইউনিয়নের জাদীমুরা এলাকার মৃত বাদশা মিয়ার ছেলে আলী জোহার (৬২) মারা যায়।
এ ছাড়া হ্নীলা উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেনীর ছাত্র আহত মুসলিম উদ্দিন (১৬)কে টেকনাফ হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসার দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্যা চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যায়। সে হ্নীলা ইউনিয়নের নয়াপাড়া এলাকার জাফর আলমের ছেলে।
যাত্রীদের দাবি, রোববার বিকেলে টেকনাফ স্থলবন্দর এলাকায় কক্সবাজার থেকে ছেড়ে আসা মাইক্রোবাসটিতে নারী, শিশুসহ প্রায় ২০জন যাত্রী ছিলেন। চালক মুঠোফোনে কথায় ব্যস্ত থাকায় বিপরীত দিক থেকে আসা একটি মাহিন্দ্রাকে পাশ কাটাতে গিয়ে সড়কের মাঝখানের একটি গর্তে মাইক্রোবাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বিপরীত দিক থেকে আসা মাহিন্দ্রার মুখোমুখি সংর্ঘষ হয়।
এতে ঘটনাস্থল থেকে হ্নীলার লেদা রোহিঙ্গাবস্তির রুহুল আমিনের ছেলে মো. ইদ্রিস (২৫) ও চট্টগ্রামের পটিয়ার খাতরি পাড়ার বাসিন্দা আবদু সবুরের স্ত্রী নুর জাহান বেগম (৩৫) এর মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। এতে নিহত চার জনসহ অন্তত ২৩জন আহত হয়।
এ ঘটনায় আহত ব্যক্তিরা হলেন জাফর আলম (৬০), জাহানারা বেগম (৩০), হাফসা (৬), ইদ্রিস মিয়া (৩৫), মুসলিম উদ্দিন (২০), সখিনা বেগম (৪৫), আবুল হোসেন (২৮), মো. আলী (২৮), মুমিনা বেগম (৩৫), শামসুল আলম (৮), কলিমা বেগম (৫), মো. আলম (৩৮), সালমা খাতুন (৪৫), রহিমা বেগম (১৬), মো. শাকের (১৫), মহি উদ্দিন (৩০), মো. সেলিম (৪৫), আলীর জোহার (৫৫) ও অজ্ঞাতনামা ৬, ১২, ২৫ ও ৩০ বছরের আনুমানিক আরও চারজনের নাম জানা যায়নি। পরে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে এসে আহত ব্যক্তিদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসে। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স জরুরী বিভাগের চিকিৎসক ও স্বাস্থ্য কর্মকর্তা বখতিয়ার আলম জানান, আহতদের মধ্যে অজ্ঞাতনামা ৬, ১২, ২৫ ও ৩০ বছরের আহত কিশোরী, কিশোর ও দুইজন পুরুষের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাদের মধ্যে গুরুতর আহত ৭ জনকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠান। এই বিষয়ে টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আতাউর রহমান খোন্দকার বলেন, ঘটনাস্থল থেকে গাড়ি দুইটি জব্দ করা হয়েছে এবং চালকসহ মালিকের বিরোদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে