‘মহেষখালের মাটি ও আবর্জনা অপসারন করা হবে’

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ১২ মে , ২০১৬ সময় ০৮:১৪ অপরাহ্ণ

সৈকত মিলনায়তনবৃহষ্পতিবার দুপুরে নগরীর আগ্রাবাদ সিডিএ আবাসিক এলাকার অধিবাসীদের সংগঠন আগ্রাবাদ রেসিডেন্সিয়েল এরিয়া সোসিও কালচারাল এসোসিয়েশনের (আরাসকা)আয়োজিত মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির ভাষনে সিটি মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, আগ্রাবাদ সিডিএ আবাসিক এলাকা সহ নগরীর নি¤œাঞ্চলগুলো স্বাভাবিক জোয়ারে প্লাবিত হয়ে নাগরিক দূর্ভোগ সৃষ্টি করে। এ দূর্ভোগ লাঘবে বন্দরের অর্থায়নে স্থায়ীভাবে স্ল্যুইচ গেইট পাম্প হাউস সহ নির্মাণ করা হবে। তিনি বলেন, মহেষখালের মাটি ও আবর্জনা অপসারন করা হবে। সিডিএ আবাসিক এর সাথে সংযুক্ত নালাগুলোকে প্রশস্থ করা হবে, যাতে দ্রুত পানি নিষ্কাষন হতে পারে। মেয়র বলেন, নিচু রাস্তাগুলোকে উচু করা হবে। তিনি সিডিএ আবাসিক এলাকার জন্য কবরস্থান নির্মাণ করে দেয়ার দাবী নীতিগতভাবে মেনে নেন এবং উন্নয়নের আশ্বাস দেন। মেয়র বলেন, চট্টগ্রাম নগরীকে শতভাগ পরিবেশ বান্ধব স্বাস্থ্যকর নগরীতে পরিণত করতে ডোর টু ডোর আবর্জনা অপসারন কার্যক্রম হাতে নেয়া হয়েছে। ব্যয়বহুল এ কর্মসূচী চার ধাপে ডিসেম্বর ২০১৬ সনের মধ্যে বাস্তবায়ন করা হবে। গ্রিন সিটির ভিশন সম্পর্কে মেয়র বলেন, ২০১৭ সনের ডিসেম্বরের মধ্যে নগরীকে সবুজ নগরীতে রূপান্তর করা হবে। এছাড়াও আগামী ৩ অর্থবছরের মধ্যে নগরীর অলি-গলি সহ সকল সড়ক ও বাই লেইনগুলোকে শতভাগ পিচঢালা পথে উন্নিত করা হবে এবং ৩ বছরের মধ্যে নগরীর ৪১ টি ওয়ার্ডকে এলইডি লাইটে আলাকিত করা হবে। মেয়র বলেন, শিক্ষা ও স্বাস্থ্য সেবাকে আরো আধুনিক ও যুযোপযুগি করে গড়ে তুলে সেবার মান বৃদ্ধি করা হচ্ছে। চসিক পরিচালিত জেনারেল হাসপাতালে চক্ষু, দন্ত ও বার্ণ রোগের চিকিৎসার জন্য পৃথক পৃথক বিভাগ খোলা হচ্ছে। সিটি মেয়র বলেন, ২০১৫-২০১৬ অর্থবছরে প্রায় সাড়ে চার শত কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ হাতে নেয়া হয়েছে।তিনি বলেন, নগরীকে সুরক্ষায় মদুনাঘাট থেকে পতেঙ্গা নেভাল একাডেমী পর্যন্ত ২১ কিলোমিটার এলাকাকে বেড়িবাঁধ, সাইক্লোন বেষ্টুনির আওতায় রাস্তা নির্মান সহ ২৬ টি খালের মুখে পাম্প হাউস ও রেগুলেটর বসানোর পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। পানি উন্নয়ন বোর্ড এ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করবে তাতে প্রায় আড়াই হাজার কোটি টাকা ব্যয় হতে পারে। মেয়র পরিকল্পিত নগরী গড়ে তোলার তার প্রত্যয় বলে অভিমত ব্যক্ত করে বলেন, নগরবাসীর সহযোগিতা ও তাদের দেয় হোল্ডিং ট্যাক্সের উপর ভিত্তি করে চট্টগ্রামকে বিশ্বমানের গ্রিন ও ক্লিন সিটিতে উন্নিত করা হবে। আগ্রাবাদ বালিকা বিদ্যালয়ের সৈকত মিলনায়তেন মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন আরাসকা’র সভাপতি আলহাজ্ব সিরাজুল ইসলাম। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি সিএন্ডএফ এসোসিয়েশনের সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব আলতাফ হোসেন চৌধুরী বাচ্চু, ২৭ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আলহাজ্ব এইচ এম সোহেল, সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউরিন্সলর মিসেস আফরোজা কালাম। স্বাগত বক্তব্য রাখেন আরাসকা’র সিনিয়র সহ সভাপতি আবদুল মন্নান মজুমদার। সিডিএ আবাসিক এলাকার বিভিন্ন সমস্যা তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারন সম্পাদক এবিএম রেজাউল করিম। আরো বক্তব্য রাখেন মোজাম্মেল হক লিটন ও মাহবুবুর রহমান। মতবিনিময় করেন আরাসকা’র সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ আহম্মদ কবির,পরিবেশ সম্পাদক জাফরুল হায়দার চৌধুরী সবুজ,শিক্ষা,ক্রীড়া ও সাংষ্কৃতিক সম্পাদক এ কে এম মোস্তফা কামাল লিটন,নিরাপত্তা সম্পাদক এ কে এম আনিসুল ইসলাম, সদস্য হালিম বিন রহমান, এহতেশামুল হক নাহিদ, ডা. হাবিবুর রহমান ও সৈয়দ আহমদ জমির সহ অন্যরা।