আগ্রাবাদ এক্সেস রোডের নাম মহিউদ্দিন চৌধুরী সড়ক হবে-মেয়র

প্রকাশ:| বুধবার, ৩ ডিসেম্বর , ২০১৪ সময় ০৬:২৫ অপরাহ্ণ

মনজুর ‍আলম বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চট্টগ্রাম মহানগর ইউনিট কমান্ড ও থানা কমান্ডের সাথে মতবিনিময় কালে একটি যুগান্তকারী ঘোষনা দেন। ঘোষনায় তিনি বলেন, বিগত ১৭ বছরের সাবেক সিটি মেয়র একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা। তিনি আগ্রাবাদ এক্সেস রোড বাস্তবায়ন করেছেন। বাদামতল থেকে পোর্ট কানেকটিং রোড পর্যন্ত আগ্রাবাদ এক্সেস রোডের নামকরণ করা হবে সাবেক মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরী’র নামে। মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে মতবিনিময়ে সিটি মেয়র আরো বলেন, ৪৪ তম মহান বিজয় দিবসে নগরীর আরেফিন নগরে মুক্তিযোদ্ধা সংবর্ধনা দেয়া হবে। তিনি মুক্তিযোদ্ধাদের দাবীর প্রেক্ষিতে বলেন, ২০১৪ সনে ১ শত জন বীর মুক্তিযোদ্ধাকে সম্মাননা প্রদান করা হবে।

তিনি বলেন, ইতোমধ্যে মুক্তিযোদ্ধাদের নিজ গৃহের হোল্ডিং ট্যাক্স মুওকুফ করা হয়েছে। মেয়র বলেন, ঈদগা কাঁচা রাস্তার চৌরাস্তায় মুক্তিযোদ্ধা স্মরণী নির্মাণ করা হবে। হালিশহর সড়কটিকে ‘মুক্তিযোদ্ধাদের সড়ক’ নামকরণ করা হবে। সিটি কর্পোরেশন পরিচালিত সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান ও ১ জন নাতি-নাতনিকে অবৈতনিক শিক্ষার সুযোগ দেয়া হবে। মেয়র বলেন, সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে নগরের ৩ শত জন মুক্তিযোদ্ধার জন্য মুক্তিযোদ্ধা আবাসন গড়ে তোলা হবে। তিনি বলেন, ৪১টি ওয়ার্ডে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের নামে রাস্তার নামকরণের উদ্যোগ নেয়া হবে। ৩ ডিসেম্বর ২০১৪খ্রি. বুধবার দুপুরে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন কে বি আবদুচ ছত্তার মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চট্টগ্রাম মহানগর ইউনিট কমান্ড ও থানা কমান্ডের মতবিনিময় সভায় কাউন্সিলর জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, জহর লাল হাজারী, মোহাম্মদ তৈয়ব, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী মোহাম্মদ শফিউল আলম, সচিব রশিদ আহমদ, ইউনিট কমান্ডের কমান্ডার মোজাফফর আহমদ, ডেপুটি কমান্ডার শহীদুল হক চৌধুরী সৈয়দ, ডেপুটি কমান্ডার খলিল উল্যাহ সর্দার, সহকারী কমান্ডার সাধন চন্দ্র বিশ্বাস, মো. জাহাঙ্গীর চৌধুরী, আবুল কাসেম, এফ এফ আকবর খান, লিয়াকত হোসেন, থানা কমান্ডার সুবেদার (অব) সাবের আহমদ, মোহাম্মদ এমরান গাজী, দোস্ত মোহাম্মদ, মো. কামরুল আলম, হাজী মো. আলী হোসাইন, সোবীন্দ্র নাথ সেন, মো. কুতুব উদ্দিন চৌধুরী, মোহাম্মদ ইউসুফ, মো. আবুল কাসেম, মোহাম্মদ ইউনুছ, সেলিম উল্লাহ, মো. জাকির হোসেন, আবু ছৈয়দ, অঞ্জন কুমার সেনগুপ্ত, মোহাম্মদ ইউসুফ, কল্যাণ কুমার সেন, মোহাম্মদ এয়াকুব, জাফর আহমদ উপস্থিত ছিলেন।