‘মহাশ্মশানে ধর্মের নামে যারা অধর্মে লিপ্ত তাদের বিতাড়িত করুন’

প্রকাশ:| বুধবার, ১৮ নভেম্বর , ২০১৫ সময় ০৮:৪৭ অপরাহ্ণ

অভয়মিত্র মহাশ্নানচট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, সনাতন ধর্মীয় সম্প্রদায়ের মহাশ্মশানকে আধুনিক শ্মশানে উন্নিত করা হবে। তিনি বলেন, অভয়মিত্র মহাশ্মশানে ধর্মের নামে অধর্মের কার্যক্রমে যারা যারা লিপ্ত তাদেরকে চিহ্নিত করে মহাশ্মশান থেকে বিতাড়িত করা হবে। সনাতন ধর্মের নিয়ম নীতি আচার আচরনে প্রতিফলিত হতে হবে। মহাশ্মশানের পবিত্রতা রক্ষায় মেয়র সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতা চান। তিনি বলেন, চুল্লী ও জোয়ারের পানি সংক্রান্ত সমস্যা সমাধানের উদ্যোগ নেয়া হবে। মেয়র বলেন, সিটি কর্পোরেশনের অনুদান ও দানশীল ধর্মপ্রাণ মহৎ ব্যক্তিদের অনুদান সমন্বয় করে ধর্মীয় আচার অনুষ্ঠান উদযাপন অব্যাহত রাখা হবে। তিনি মহাশ্মশান পরিচালনা কমিটির সদস্যদের আন্তরিকতার সাথে দায়িত্ব পালনের আহবান জানান। ১৮ নভেম্বর ২০১৫ খ্রি. বুধবার বিকেলে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের সম্মেলন কক্ষে অভয়মিত্র মহাশ্মশান পরিচালনা পরিষদ আয়োজিত মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির ভাষনে মেয়র এসব কথা বলেন।

মত বিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন কমিটির সভাপতি কাউন্সিলর জহর লাল হাজারী। রতন আচার্যের সঞ্চালনায় সভায় সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সাবেক কাউন্সিলর প্রকৌশলী বিজয় কুমার কুমার চৌধুরী অভয়মিত্র মহাশ্মশানের সমস্যা, নির্মানাধীন প্রকল্প ও ভবিষ্যৎ উন্নয়ন কর্মকান্ড সিটি মেয়র বরাবরে তুলে ধরেন। সভায় প্যানেল মেয়র চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমন, মোহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন, মোহাম্মদ হাবিবুল হক, সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর নিলু নাগ, এডভোকেট চন্দন তালুকদার, এডভোকেট তপন কান্তি দাশ, কাজল কান্তি দত্ত, বিমল কান্তি দে, প্রকৌশলী আশুতোষ দাশ, বিদ্যালাল শীল, আশুতোষ দে, প্রকৌশলী হারাধন আচার্য, রতœাকর দাশ টুনু, সুদিপ বসাক, ঝুলন কান্তি দাশ, লায়ন আশিষ ভট্টচার্য, অনুপ বিশ্বাস, অজয় কুমার বণিক, সাধন চৌধুরী, নরেশ হালদার, দিলীপ কান্তি দত্ত, সুভাষ চন্দ্র দাশ, রতন কুমার চৌধুরী, সুজিত দাশ, রবি শংকর আচার্য, বিপ্লব কুমার চৌধুরী, প্রকাশ দাশ, বিশ্বজিত চৌধুরী, সহ কমিটির কর্মকর্তা ও সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।