মহান মুক্তিযুদ্ধ বাঙ্গালী জাতির অনন্য অর্জন

প্রকাশ:| শনিবার, ১৭ ডিসেম্বর , ২০১৬ সময় ১০:৪৬ অপরাহ্ণ

মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলার বিজয় মঞ্চের স্মৃতিচারণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্য-প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহমেদ পলক বলেছেন, মহান মুক্তিযুদ্ধ বাঙ্গালী জাতির অনন্য অর্জন এই অর্জনের গৌরব গাঁথা প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে ছড়িয়ে দিতে চট্টগ্রামের মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা পরিষদ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে তরুণ প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জেনে এগিয়ে যেতে হবে।

তিনি বলেন, বাংলাদেশে ২০ লাখ মানুষ এখন তথ্য প্রযুক্তি খাতে মিলিয়ন ডলার আয় করছে। আগামী দিনে এদেশের তরুণদের তথ্য প্রযুক্তির বিশেষজ্ঞ হিসেবে গড়ে তোলার জন্য সব ধরণের প্রস্তুতি নিচ্ছে জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকার।

তিনি আরো বলেন, তথ্য প্রযুক্তিতে এখন বিশ্বের উন্নয়নশীল দেশের সাথে চ্যালেঞ্জ দিতে প্রস্তুত বাংলাদেশ। মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে সুচারূভাবে জানার জন্য তথ্য প্রযুক্তির বিকল্প নেই। তাই এ প্রজন্মকে আমি অনুরোধ করবো দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য তাদের সৃজনশীল মেধাকে তথ্য প্রযুক্তিতে কাজে লাগানোর জন্য।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে পুলিশ কমিশনার ইকবাল বাহার বলেন, ঔপনিবেশিক দুঃশাসন বাংলাদেশকে গরীব করে রেখেছিল। আজ আমরা গরীবি মুক্ত। বাংলাদেশ এখন সামনের দিকে এগুচ্ছে এই অগ্রযাত্রায় আমাদেরকে পাপাচার মুক্ত হতে হবে।

তিনি আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর ৬ দফা প্রণয়নে বুদ্ধিজীবীদের ভূমিকা ছিল, তাই মুক্তিযুদ্ধের বিজয়ের অন্তিম লগ্নে দেশের কু-সন্তানরা তাদেরকে বেছে বেছে ঘর থেকে তুলে নিয়ে হত্যা করেছিল। সেই কু-সন্তানদের বশংবদরা এখনো আমাদের সমাজে আছে। তাই তাদেরকে নিঃশেষ করার জন্য নতুন প্রজন্মকে প্রস্তুত করতে হবে। তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, বাংলাদেশ সবসময় অপরাজেয় থাকবে। এই বাংলাদেশের জন্মের জন্য ৩০ লাখ শহীদ আত্মাহুতি দিয়েছে এই আত্মাহুতির মূল্য বৃথা যেতে পারে না।

মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা পরিষদের কো-চেয়ারম্যান ও বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল মনছুরের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত স্মৃতিচারণ সভায় বিজয় মঞ্চে আলোচক ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট সদস্য অধ্যাপক মাসুম আহমেদ।

সভা শেষে বিজয় মঞ্চের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে দলীয় নৃত্য পরিবেশন করেন ঘুংঘুর নৃত্য একাডেমি ও দি স্কুল অব ফোক ডান্স।

এছাড়া একক সঙ্গীত পরিবেশন করেন অজয় চক্রবর্তী, বৃষ্টি দাশ ও সামন্তা শাহীন। রোববার বিজয় মঞ্চে সঙ্গীত পরিবেশন করবেন রন্টি দাশ ও রাশেদ।


আরোও সংবাদ