মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগের ইফতার মাহফিল

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ৮ জুন , ২০১৭ সময় ১১:০০ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হাসিনা মহিউদ্দিন বলেছেন, পবিত্র রমজান মাসে ত্যাগ ও সংযম সাধনার মধ্য দিয়ে মনুষ্যত্ব জাগ্রত হয়। রমজান মাসে এই শিক্ষা যদি আমরা সারাবছর ধারণ করতে পারি তাহলে সমাজ থেকে দারিদ্র ও বৈষম্য দূর হওয়া সম্ভব। আমরা যতই আত্মকেন্দ্রিক হব ততই পরিবার, সমাজ ও রাষ্ট্রে ততই সামাজিক ভারসাম্যতা নষ্ট হবে। তাই সব ধরনের ভোগবাদিতা পরিহার করা ধর্মীয় অঙ্গীকার। তিনি আজ বিকেলে তার চশমা হিলস্থ বাসভবনে চট্টগ্রাম মহানগর মহিলা আওয়ামী লীগের ইফতার মাহফিলে এই কথা বলেন। তিনি আরো বলেন বঙ্গবন্ধুর মূল লক্ষ্য ছিল সাধারণ মানুষের অর্থনৈতিক মুক্তি। তাই তিনি স্বাধীনতা অর্জনের পর অর্থনৈতিক মুক্তির লক্ষ্যে দ্বিতীয় বিপ্লবের ডাক দিয়েছিলেন। তাঁর উদ্দেশ্য ছিল শোষিতের স্বরাজ প্রতিষ্ঠা করা। কারণ বঙ্গবন্ধু আমৃত্যু শোষিতের মুক্তির পক্ষে ছিলেন। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর সেই অর্থনৈতিক মুক্তির স্বপ্ন বাস্তবায়নে নিরলস কাজ করে যাচ্ছেন। আজ দেশে কোন মানুষ না খেয়ে নাই। তবে হাসিনা মহিউদ্দিন প্রশ্ন করেন কোন ব্যক্তির যদি ব্যাংকে এক লাখ টাকা জমা থাকে তাহলে তাকে বিত্তবানের পর্যায়ের ফেলে সঞ্চিত অর্থের উপর কর আরোপ করে টাকা কেটে নেওয়া হবে কেন ? তিনি আরো প্রশ্ন করেন, ব্যাংকে এক লাখ টাকা জমা থাকলে তাকে কীভাবে বিত্তবানের পর্যায়ভুক্ত করা হল তা সাধারণ মানুষের বোধগম্য নয়। বাজেটের এই প্রস্তাবণায় সাধারণ মানুষ ব্যাংকের প্রতি আস্থা হারাবে এবং ব্যাংকে টাকা জমা রাখতে সাহস পাবে না। এর ফলে ব্যাংক তারল্যের সংকটে ভুগবে। তিনি আশা প্রকাশ করেন, প্রস্তাবিত বাজেটে অসংগতি ও নেতিবাচক কিছু থাকে তা সংসদে আলোচনার সাপেক্ষে সংশোধনী করা হবে বলে প্রধানমন্ত্রী কথা দিয়েছেন। তিনি আশা প্রকাশ করেন বিষয়টি আমলে এনে প্রধানমন্ত্রী এই ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেবেন। চট্টগ্রাম মহিলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আনজুমান আরা আনজীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত ইফতার মাহফিলে আরো বক্তব্য রাখেন মমতাজ খান, নিলু নাগ, খুরশিদা বেগম, হোসনে আরা বেগম, মুন্নি জাফর, বিলকিস কলিম উল্লাহ, হাসিনা আক্তার টুনু, লায়লা আক্তার এটলী, আয়শা আলম, হুরে আরা বিউটি, আয়শা সিদ্দিকা, নাজমা মাওলা, ইসরাত জাহান, ফতেমা আক্তার, জিন্নাত বেগম, অধ্যাপক শিরিন আক্তার, আয়শা আক্তার পান্না, কামরুন নাহার বেবী, নুর নাহার বেবী, রুবী, পারভীন, ফারহানা জাবেদ, ও মমতাজ বেগম প্রমুখ।


আরোও সংবাদ