মশাল মিছিল করেছে গণজাগরণ মঞ্চ

প্রকাশ:| বুধবার, ১৭ সেপ্টেম্বর , ২০১৪ সময় ০৯:৪৯ অপরাহ্ণ

জামায়াত নেতা দেলাওয়ার হোসাইন সা‌ঈদীর মৃত্যুদন্ডের রায় কমিয়ে দেয়া আমৃত্যু কারাদন্ডের রায় প্রত্যাখান করে চট্টগ্রাম নগরীতে মশাল মিছিল করেছে গণজাগরণ মঞ্চ। মিছিলে ‘আপোষের এ রায় মানিনা, মানবনা’ ‘যারা পোষে রাজাকার, তারা নিজেই রাজাকার’সহ বিভিন্ন শ্লোগানে রাজপথ মুখর হয়ে উঠে।
মশাল মিছিল করেছে গণজাগরণ মঞ্চ
বুধবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে নগরীর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণ থেকে গণজাগরণ মঞ্চের মশাল মিছিল বের হয়। মিছিলটি রিয়াজউদ্দিন বাজার, নিউমার্কেট ঘুরে আবারও শহীদ মিনারে এসে শেষ হয়।

মিছিলে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন গণজাগরণ মঞ্চ চট্টগ্রামের সদস্য সচিব ডা.চন্দন দাশ, সমন্বয়কারী শরীফ চৌহান, ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন চট্টগ্রাম কেন্দ্রের সাবেক সভাপতি প্রকৌশলী দেলোয়ার মজুমদার, চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক হাসান ফেরদৌস, সাবেক ছাত্রনেতা হাসান তারিক সোহেল, প্রমা আবৃত্তি সংগঠনের সভাপতি রাশেদ হাসান, উদীচী চট্টগ্রাম জেলা সংসদের সাধারণ সম্পাদক সুনীল ধর, শাহবাগের গণজাগরণ মঞ্চের সংগঠক লাকী আক্তার, শিক্ষিকা সালমা জাহান মিলি প্রমুখ।

এছাড়া ছাত্র ইউনিয়ন, ছাত্রফ্রন্ট, ছাত্রমৈত্রী, উদীচী, প্রমা, সাম্প্রদায়িকতাবিরোধী তরুণ উদ্যোগ, খেলাঘর চট্টগ্রাম মহানগরী কমিটির নেতাকর্মীরা মিছিলে উপস্থিত ছিলেন।

মিছিল বিভিন্ন এলাকা ঘুরে শহীদ মিনারে আসার পর সমাপনী বক্তব্য দেন শরীফ চৌহান ও লাকী আক্তার।

এসময় গণজাগরণ মঞ্চ চট্টগ্রামের পক্ষ থেকে রায় প্রত্যাখানের পাশাপাশি শাহবাগে গণজাগরণ মঞ্চের সংগঠকদের উপর পুলিশ হামলার প্রতিবাদ জানানো হয়। এছাড়া হামলার পক্ষে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর বিবৃতিরও প্রতিবাদ জানানো হয়।

সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তারা বলেন, আজকের রায় বাংলাদেশের জনগণ কোনভাবেই মেনে নেয়নি। সর্বোচ্চ আদালতের কাছে দেশের জনগণের প্রত্যাশা ছিল সকল যুদ্ধাপরাধীর ফাঁসি নিশ্চিত করা। কিন্তু সাঈদীর মত প্রতিষ্ঠিত রাজাকারদের এভাবে পার যাওয়ায় মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের পরিবার ও দেশপ্রেমিক জনগণকে হতাশ করেছে। এ রায়ে মুক্তিযোদ্ধে শহীদদের অপমান করা হয়েছে। আদালত জনগণের প্রত্যাশার কোন মূল্য দেয়নি।

এছাড়া শহীদ মিনারের সংক্ষিপ্ত সমাবেশ থেকে শুক্রবার বিকেল ৪টায় চেরাগি মোড়ে প্রতিবাদ সমাবেশের ডাক দেয়া হয়েছে।