মনুষ্যকে প্রকৃত মানবসম্পদে রূপান্তর করাই হচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল কাজ

প্রকাশ:| শনিবার, ১৫ মার্চ , ২০১৪ সময় ০৮:০৫ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী বলেছেন,মনুষ্যকে প্রকৃত মানবসম্পদে রূপান্তর করাই হচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল কাজ। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষা, উচ্চ শিক্ষা ও গবেষণা কাজে যতটুকু আর্থিক সামর্থ প্রয়োজন তা আমাদের নেই। এ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামগ্রিক উন্নয়নে তাদের মেধা, শ্রম ও অর্থ দিয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখতে পারে।

শনিবার সকালে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে(চবি) অধ্যয়নরত হাটহাজারী ও ফটিকছড়ি উপজেলার শিক্ষার্থীদের সংগঠন নববাক’র পুনর্মিলনী ‘বন্ধন’-১৪ অনুষ্ঠানে উদ্বোধকের বক্তব্যে এসব কথা বলেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজ বিজ্ঞান অনুষদ অডিটরিয়ামে নববাকের সভাপতি মঈনুল হক সোহেলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয় রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) প্রকৌশলী মো. আলমগীর চৌধুরী, নববাক-এর প্রাক্তন সদস্য ও প্রাণিবিদ্যা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মো. মনজুরুল কিবরিয়া, পীরজাদা আহসানুল করিম, সৈয়দ মনজুরুল করিম ও উপাধ্যক্ষ মো. সাইফুল ইসলাম।

ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘নববাক’ চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত ছাত্র-ছাত্রীদের একটি ঐতিহ্যবাহী সংগঠন। এই সংগঠনের গৌরবোজ্জ্বল অতীত রয়েছে। এ সংগঠনের সদস্যরা লেখাপড়ার পাশা-পাশি বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক এবং উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড পরিচালনা করে আসছে।

উপ-উপাচার্য বলেন, এ সংগঠনের প্রাক্তন ছাত্র-ছাত্রীরা প্রাণের টানে কিছু সময়ের জন্য তাদের পরিবার-পরিজন নিয়ে আবার ক্যাম্পাসে ফিরে এসেছে। মাতৃসম এ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতি তাদের অকৃত্রিম ভালোবাসার বহিঃপ্রকাশ আজকের এ মিলনমেলা। এ সংগঠনের গৌরবোজ্জ্ব অতীত অক্ষুন্ন রেখে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার সুষ্ঠু ও শান্তি পূর্ণ পরিবেশ সমুন্নত রাখতে নববাক-এর সদস্যদের আহবান জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন নববাক বর্তমান কমিটির সহ-সভাপতি এম এ জাফর মিজান, মো. ফিরোজ উদ্দীন ও মো. নুরুল আজিম জুয়েল।

এর আগে সকাল ১০ টায় আনন্দ র‌্যালী’র মাধ্যমে দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের যাত্রা শুরু হয়। র‌্যালীটি সমাজবিজ্ঞান অনুষদ থেকে শুরু হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবিএ অনুষদ, কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার, কেন্দ্রীয় লাইব্রেরী, চাকসু ভবন হয়ে পুনরায় সমাজবিজ্ঞান অনুষদে এসে শেষ হয়। এতে নববাকের প্রাক্তন ও বর্তমান প্রায় ৬’শ সদস্য অংশগ্রহন করে।

আলোচনাসভা শেষে প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা নিজেদের অনুভূতি প্রকাশ করেন। শেষে নববাক সদস্যদের অংশ গ্রহণে অনুষ্ঠিত হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান এবং অতিথি শিল্পীদের পরিবেশনায় ব্যান্ড শো।