মঙ্গলবার হরতাল ডেকেছে জামায়াত ও গণজাগরণ মঞ্চ

প্রকাশ:| সোমবার, ১৫ জুলাই , ২০১৩ সময় ১১:৪৬ অপরাহ্ণ

গোলাম আযমের সাজার পক্ষে-বিপক্ষে মঙ্গলবার হরতাল ডাকাhortal .......... হয়েছে।সাজার পক্ষে-বিপক্ষে হরতাল

আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ সোমবার যুদ্ধাপরাধের দায়ে পাঁচটি অভিযোগে জামায়াতের ইসলামীর বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধকালীন আমির গোলাম আযমের সর্বমোট ৯০ বছরের বা আমৃত্যু কারাদণ্ডের আদেশ দেন।

এ রায় প্রত্যাখ্যান করে মঙ্গলবার সারাদেশে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল ডেকেছে যুদ্ধাপরাধীদের সর্বোচ্চ শাস্তির (ফাঁসি) দাবিতে আন্দোলনরত গণজাগরণ মঞ্চ। এই মঞ্চ হরতাল ডেকেছে জামায়াতে ইসলামীর নেতা গোলাম আযমের ফাঁসির সাজার দাবিতে।

অন্যদিকে গোলামের রাজনৈতিক দল জামায়াতও মঙ্গলবার সারাদেশে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল ডেকেছে। দলটি এ হরতাল ডেকেছে তাদের সাবেক আমির গোলাম আযমকে সাজা দেয়ার ‘প্রতিবাদে’।

মানবতাবিরোধী অপরাধের মূল পরিকল্পনাকারী, ষড়যন্ত্রকারী, উস্কানিদাতা, প্ররোচনাকারী ও সম্পৃক্ততাকারী হিসেবে পাঁচ ধরনের ৬১টি অভিযোগে গোলাম আযমকে সোমবার বিভিন্ন মেয়াদে মোট ৯০ বছর বা আমৃত্যু কারাদণ্ডের রায় দেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১

রায় ঘোষণার পর থেকেই তা প্রত্যাখ্যান করে গণমাধ্যম ও সোশ্যাল মিডিয়ায় তাদের ‘দুঃখ’ ও ‘ক্ষোভ’ প্রকাশ করে চলেছেন দেশের সাধারণ মানুষ।

‘আন্দোলন চলবে’

বিকেলে গণজাগরণ মঞ্চের পক্ষ থেকে হরতালের ঘোষণা দেন মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকার।

তিনি বলেন বলেন, “গোলাম আযমের ফাঁসির রায় দেয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে। কোনোভাবেই এই রায় গণজাগরণ মঞ্চ মেনে নেবে না।”

গোলাম আযমের ফাঁসির দাবিতে তিনি দেশবাসীকে হরতাল পালনের আহ্বান জানান।

এরআগে যুদ্ধাপরাধী গোলাম আযমের ৯০ বছরের কারাদণ্ডের রায় প্রত্যাখ্যান করে তার ফাঁসির দাবিতে মঙ্গলবার সারাদেশে সকাল-সন্ধ্যা হরতালের ডাক দেয় মঞ্চ সংশ্লিষ্ট ১০ ছাত্র সংগঠন।
‘একটি অভিযোগও প্রমাণ হয়নি’

যুদ্ধাপরাধী গোলাম আযমের ৯০ বছরের কারাদণ্ডের ‘প্রতিবাদে’ জামায়াতে ইসলামী হরতালের ডাক দেয় একটি বিবৃতির মাধ্যমে।

দলটির সেক্রেটারি জেনারেল রফিকুল ইসলাম এ হরতালের ডাক দেন।

এতে বলা হয়, “প্রসিকিউশন গোলাম আযমের বিরুদ্ধে ৬১টি অভিযোগের একটিও প্রমাণ করতে পারেনি। এটা রাষ্ট্রপক্ষের চরম ব্যর্থতা।”

বিবৃতিতে গোলাম আযমের মুক্তিও দাবি করা হয়।