হাতুরে চিকিৎসকে দু’বছরের সাজা দিল ভ্রাম্যমান আদালত

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ১৫ মে , ২০১৪ সময় ১১:৩১ অপরাহ্ণ

ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে হাতুরে চিকিৎসকে দুই বৎসরের সাজা শফিউল আলম, রাউজান প্রতিনিধিঃ রাউজানে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে রাউজানের মুন্সির ঘাটা এলাকায় কাকন ফার্মেসীতে বসে চিকিৎসক পরিচয় দিয়ে চিকিৎসা করার সময়ে হাতুরে চিকিৎসক কাঞ্চন দাশ ( ৩৮) কে গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর বারাটার সময় ভ্রাম্যমান আদালতের ম্যজিষ্ট্রেট রাউজান উপজেলা নির্বাহী অফিসার কুল প্রদীপ চাকমার নির্দেশে আটক করেন । হাতুরে চিকিৎসক কাঞ্চন দাশ নিজেকেই মেডিসিন, স্ত্রীরোগ, শিশু রোগ বিষয়ক চিকিৎসক বলে পরিচয় দিয়ে ও দোকানের সামনে ডিজিট্যাল ব্যানার ঝুলিয়ে দিয়ে দীর্ঘদিন ধরে চিকিৎসা করলে ও কাঞ্চন দাশ ভ্রাম্যমান আদালতের ম্যজিষ্ট্রেটকে তার কোন চিকিৎসকের সনদ ও প্রমান পত্র দেখাতে পারেনি । হাতুরে চিকিৎসক কাঞ্চন দাশকে ভ্র্রাম্যমান আদালতের ম্যজিষ্ট্রেট ও রাউজান উপজেলা নির্বাহী অফিসার কুল প্রদীপ চাকমা দুই বৎসরের সাজা দিয়ে ে হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দিয়েছেন । হাতুরে চিকিৎসক কাঞ্চন দাশ নিজেকেই চিকিৎসক পরিচয় দিয়ে রাউজান উপজেলা সদরের মধ্যে দরিদ্র পরিবারের সদস্যদের কাছ থেকে হাতিয়ে নেয় টাকা । হাতুরে চিকিৎসক কাঞ্চন দাশ এলাকায় অবৈধ ভাবে গর্ভপাত এম আর করার মাধ্যমে এলাকার লোকজন থেকে মোটা অয়কের টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ রয়েছে । অবৈধ গর্ভপাত এম আর করার সময়ে এক মেয়ে হাতুরে চিকিৎসক কাঞ্চন দাশেঁর অপ চিকিৎসায় মারা গেলেও লোক লজ্বার ভয়ে মেয়েটির পরিবার এলাকার লোকজনের কাছে মুখ খোলেনি । হাতুরে চিকিৎসক কাঞ্চন দাশ চিকিৎসক কিনা এ বিষয়ে রাউজান উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ অসিম কুমার নাথ বলেন কাঞ্চন দাশ কোন চিকিৎসক নয় । কাঞ্চন দাশ চিকিৎসক পরিচয় দিয়ে রোগীর চিকিৎসা করা বে আইনী । হাতুরে চিকিৎসক কাঞ্চন দাশ রাউজানের ডাবুয়া ইউনিয়নের কেউকদাইর এলাকার রাখাল দাশের পুত্র । গতকাল তাকে আটক করার পর ভ্রাম্যমান আদালতের ম্যজিষ্ট্রেট কুল প্রদীপ চাকমা দুই বৎসরের সাজা প্রদানের আর্দেশ দিয়ে জেলে প্রেরণের আর্দেশ প্রদান করেন । আদালতের নির্দেশে পুলিশ হাতুরে চিকিৎসক কাঞ্চন দাশকে রাউজান থানার হাজতে নিয়ে যায় ।

রাউজানে ভ্রাম্যমান আদালত অভিযান চালিয়ে মোয়াদ উত্তির্ন ঔষধ বিক্রয়, ঔষধ প্রসাশনের অনুমতি বিহীন ঔষধ বিক্রয় করার অভিযোগ ১০ টি ঔষধের দোকান থেকে ২৬ হাজার টাকা জরিমানা আদায়

রাউজানে ভ্রাম্যমান আদালত অভিযান চালিয়ে মোয়াদ উত্তির্ন ঔষধ বিক্রয়, ঔষধ প্রসাশনের অনুমতি বিহীন ঔষধ বিক্রয় করার অভিযোগ ১০ টি ঔষধের দোকান থেকে ২৬ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেছেন । অভিযাণ চলাকালে ঔষধের দোকানের দরজায় তালা দিয়ে চলে যাওয়া ঔষধ বিক্রয়ের দোকানে ভ্রাম্যমান আদালতের ম্যজিষ্টেট তালা লাগিয়ে দিয়েছে । গতকাল ১৫ মে বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টার সময় রাউজান উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যজিষ্ট্রেট কুল প্রদীপ চাকমার নেতৃত্বে চট্টগ্রাম ঔষধ প্রসাশনের তত্ববধায়ক কেএম মুহসীলিন মাহবুব, উপ পরিদর্শক মাহফুজ উদ্দিনের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালত অভিযান পরিচলানা করেন । অভিযাণ চলাকালে রাউজান ফকির হাট বাজার, রাউজান থানা রোড, জলিল নগর বাস ষ্টেশন এলাকায় অধিকাংশ ঔষধের দোকানের দরজার তালা ঝুলিয়ে দিয়ে দোকানের মালিকেরা পালিয়ে যায় । ভ্রাম্যমান আদালত ঔষধ প্রসাশনের অনুমোদন বিহীন ্ওরাল স্যালাইন বিক্রয়ের দায়ে রাউজান হাই স্কুল ড্রাগ পয়েন্ট নামক ফার্মেসীকে এক হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেন। রাউজান ফকির হাট বাজারের সালাম মেডিকেল হলকে মেয়াদ উর্ত্তিন ঔষধ বিক্রয় ও ড্রাগ লাইসেন্স নবায়ন না করায় পাচঁ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেন। রাউজান ফকির হাট বাজারের প্রিয়দর্শী হোমিও হলকে ড্রাগ লাইসেন্স বিহীন ঔষধ বিক্রয়ের অপরাধে পাচঁহাজার টাকা জরিমানা, জয় মেডিকেল হলকে একহাজার টাকা, ড্রাগ এম্পোরিয়ামকে দুইহাজার টাকা, লাকি মেডিকেল হলকে একহাজার টাকা, রাউজান জলিল নগর বাস ষ্টেশনের সাধনা ড্রাগকে দুই হাজার টাকা, রাউজান মুন্সির ঘাটা সোনালী ফার্মেসীকে তিনহাজার টাকা, প্রদীপ ড্রাগ হাউসকে একহাজার টাকা করে জরিমানা আদায় করেন । অভিযান চলাকালে ড্রাগ লাইসেন্স না থাকায় দোকানে মেয়াদ উর্ত্তিন ্ ঔষধ বিক্রয় করার অপরাধে ভ্রাম্যমান আদালতের কাছে ধরা পড়ার ভয়ে দোকান বন্দ্ব করে পালিয়ে যায় রাউজান ফকির হাট বাজারের উপজেলা পরিষদের গেইটে জম জম ফার্মেসী, রাউজান পৌর মাকের্টের আহম্মদীয়া ফার্মেসী, কৃষ্ণা ফার্মেসী, চৌধুরী মার্কেটের জাহানারা ফার্মেসী, অগ্রনী ফার্মেসী, রাউজান থানা রোডের রাউজান ফার্মেসী, লোকনাথ বাবা ফার্মেসী, আলো ফার্মেসী, রাউজান জলিল নহর বাস ষ্টেশনের আমানত ফার্মেসী, শতাব্দী ফার্মেসী, রাউজান মুন্সির ঘাটায় রুপালী ফার্মেসীর কোন ড্রাগ লাইসেন্স দেখাতে ব্যার্থ হওয়ায় রুপালী ফার্মেসী সহ বন্দ্ব করে চলে যাওয়া ঔষধের দোকান গুলোতে ভ্রাম্যমান আদালতের ম্যজিষ্ট্রেট রাউজান উপজেলা নির্বাহী অফিসার কুল প্রদীপ চাকমার নির্দের্শে দরজায় তালা লাগিয়ে দেওয়া হয় । রাউজানের বিভিন্ন এলাকায় ড্রাগ লাইসেন্স বিহীন ঔষধের দোকান গড়ে উঠেছে । ঔষধের দোকান গুলোতে মেয়াদ উত্তির্ন ঔষধ ও ঔষধ প্রসাশনের অনুমতি বিহীন ঔষধ বিক্রয় করা হচ্ছে অবাধে । গতকাল ঔষধের দোকান গুলোতে অভিযাণ চালানোর ফলে এলাকার লোকজন ভ্রাম্যমান আদালতের ম্যজিষ্ট্রেট ও সংশ্লিষ্ট সকলকে অভিনন্দন জানিয়েছেন ।