ভিসা সহজ করতে বাংলাদেশের প্রস্তাবে চীনের সম্মতি

প্রকাশ:| শনিবার, ২৯ জুন , ২০১৩ সময় ১১:০৯ অপরাহ্ণ

বাংলাদেশিদের জন্য ভিসা সহজ করবে এবং বাণিজ্য সুবিধা প্রদান করবে চীন।ভিসা সহজ করতে বাংলাদেশের প্রস্তাবে চীনের সম্মতি
দু’দেশের মধ্যে পররাষ্ট্র সচিব পর্যায়ের বৈঠকে চীনের পক্ষ থেকে এ আশ্বাস দেওয়া হয়েছে। এ ক্ষেত্রে চীনের সঙ্গে একটি ভিসা চুক্তি সই করতে বাংলাদেশের প্রস্তাবে চীন রাজি হয়েছে।
পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় শনিবার এক বিবৃতিতে বলেছে, চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত বৈঠকে বাংলাদেশের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন সফররত পররাষ্ট্র সচিব শহিদুল হক। চীনের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন দেশটির ভাইস পররাষ্ট্রমন্ত্রী লিউ ঝেনমিন।
বৈঠকে উচ্চ পর্যায়ের সফর বিনিময়, অর্থনৈতিক সহযোগিতা, কানেকটিভিটি, কৃষি ও পানিম্পদ খাতে সহযোগিতা, জনগণের পর্যায়ে যোগাযোগ, সাংস্কৃতিক বিনিময়, প্রতিরক্ষা ও নিরাপত্তা সহযোগিতা এবং কনস্যুলার বিষয়ে সহযোগিতা নিয়ে আলোচনা হয়।
প্রতিরক্ষা খাতে সহযোগিতায় উভয় পক্ষ সন্তোষ প্রকাশ করে। সশস্ত্র বাহিনী সার্ভিস প্রধানদের চীন সফরের আমন্ত্রণ জানাতে চীনের পক্ষ থেকে আগ্রহ প্রকাশ করা হয়।
বাংলাদেশের পররাষ্ট্র সচিব ভিসা ব্যবস্থা সহজ করার প্রস্তাব করেন। চীনের পক্ষ এ বিষয়ে একটি বৈঠক করার প্রস্তাব করে, কী প্রক্রিয়ায় ভিসা সহজ করা যায় সে বিষয়টি নির্ধারণ করার জন্য।
বৈঠকে চীনের পক্ষ ব্যবসায়ীদের জন্য বিশেষভাবে ভিসা সহজ করার আশ্বাস দেয়। ভিসা চুক্তি করতে বাংলাদেশের প্রস্তাবেও চীন রাজি হয়েছে।
বৈঠকে চীনের পক্ষ বাংলাদেশ, চীন, ভারত ও মিয়ানমার (বিসিআইএম) অর্থনৈতিক করিডোর দক্ষিণ এশিয়া ও পূর্ব এশিয়ার মধ্যে কানেকটিভিটি জোরদার করবে বলে অভিমত ব্যক্ত করে।
বিসিআইএম বাস্তবায়নে বাংলাদেশের সহায়তা চায় চীন। বাংলাদেশ এ প্রস্তাবে সাড়া দিয়ে বলেছে, বিসিআইএমের বিষয়ে বাংলাদেশ পূর্ণ সমর্থন দেবে।
বাংলাদেশ ও চীনের মধ্যে বর্তমানে বার্ষিক আট বিলিয়ন ডলারের বাণিজ্য হয়ে থাকে। এ বাণিজ্য ব্যাপকভাবে চীনের পক্ষে থাকায় বাংলাদেশের রফতানি এক বিলিয়ন ডলারেরও কম। বাণিজ্য ঘাটতি নিরসনে চীন বাংলাদেশের ৯৫ শতাংশ পণ্য রফতানিতে শুল্কমুক্ত সুবিধা দিতে রাজি হয়েছে। পররাষ্ট্র সচিব শহিদুল হক নতুন ১৭টি পণ্যের শুল্কমুক্ত সুবিধা দিতে চীনের কাছে তালিকা হস্তান্তর করেন।