ভারুয়াখালীর কিশোরী শাবনুর নিখোঁজ

প্রকাশ:| শুক্রবার, ৫ ফেব্রুয়ারি , ২০১৬ সময় ১০:১৯ অপরাহ্ণ

নিখোজ শাবনুর

সেলিম উদ্দিন, ঈদগাঁও
কক্সবাজার সদর উপজেলার ভারুয়াখালীতে নিখোঁজ কিশোরী শাবনুরকে নিয়ে এলাকায় তোলপাড় চলছে। দীর্ঘদিন নিখোঁজ থাকায় আদরের কন্যা সন্তানকে না পেয়ে তার মা-বাবাসহ স্বজনদের কান্না থামছে না। সম্ভাব্য সকল স্থানে খোঁজ নিয়ে কোন হদিস না পাওয়াতে হতাশ মাতা-পিতা উল্টো প্রভাবশালীদের হুমকির শিকার হচ্ছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। প্রাপ্ত তথ্যে প্রকাশ, গত মাসাধিককাল আগে ভারুয়াখালীর চৌচুল্যা মুরা এলাকার ওসমান সরওয়ারের মেয়ে রেশমা আক্তার প্রকাশ শাবনুরকে একই এলাকার প্রবাসী ছাবের আহমদের স্ত্রী ইসমত আরা ফুসলিয়ে বাড়িতে নিয়ে যায়। পরে তার আত্মীয় কক্সবাজারের টেকপাড়ার প্রবাসী শাহ আলমের স্ত্রী পারভীন আক্তারের কাছে রেখে আসে। রহস্যজনক এই ঘটনা শাবনুরের পিতা-মাতা জানার পর ইসমত আরাকে মেয়ে হাজির করতে বললে প্রকাশ পায় আসল উদ্দেশ্য। ইসমত আরা তাদের জানায়, শাবনুর চট্টগ্রাম শহর থেকে হারিয়ে গেছে। এ খবরে যেন তাদের মাথায় আকাশ ভেঙ্গে পড়ে। নিরূপায় ওসমান তার মেয়ের খোঁজ নিতে প্রভাবশালীর স্ত্রী ইসমত আরার পায়ে ধরে কান্নকাটি করে। এসময় ঐ মহিলা তাকে চট্টগ্রামের মাঈনুল নামের এক ব্যক্তির ঠিকানায় গিয়ে তার মেয়েকে খোঁজ করতে বলে। দিশেহারা ওসমান তার দেওয়া ঠিকানামতে চট্টগ্রাম গিয়ে উল্লেখিত ব্যক্তির সাথে দেখা করে তার মেয়ের খোঁজ জানতে চাইলে মাঈনুল নামে ঐ ব্যক্তি তাকে মেরে ফেলবে এমন ভয়-ভীতি দেখায় বলে জানান শাবনুরের পিতা। উপায়ন্তর না দেখে ওসমান এলাকায় চলে আসে। পরে কয়েকজন সচেতন ব্যক্তির কথা অনুসারে মেয়ের সন্ধান চেয়ে ছবিসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করে। এতে ঘটে বিপত্তি। চতুর ইসমত আরা তার বান্ধবী পারভীন আক্তারকে বাদী বানিয়ে নিখোঁজ শাবনুরের অসহায় স্বজনদের আসামী করে কক্সবাজার মডেল থানায় এজাহার দায়ের করে। এ বিষয়টি এলাকায় প্রকাশ পেলে কিশোরী নিখোঁজের ঘটনায় তোলপাড়ের পাশাপাশি এলাকাবাসীর মাঝে উত্তেজনা বিরাজ করছে। তারা এই নিখোঁজ কিশোরীর ব্যাপারে দায়ী মহিলা ইসমত আরা ও তার বান্ধবী পারভীনের বিরুদ্ধে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নিতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। এদিকে নিখোঁজ কিশোরীর স্বজনরা মামলার খবর পেয়ে একদিকে যেমন উৎকণ্ঠায় ভুগছে, অপরদিকে মেয়ের শোকে শয্যাশায়ী মাকে নিয়ে চরম বেকায়দায় রয়েছে শাবনুরের পিতাসহ পরিবারবর্গ। শাবনুরের পিতার দাবী, সে কোন মামলা মোকদ্দমা বুঝেনা, খেটে খাওয়া মানুষ হিসাবে তার আদরের কন্যাটিকে যেন সে ফিরে পায়। এ ব্যাপারে অভিযুক্ত ইসমত আরার সাথে যোগাযোগ করলে তিনি জানান, ওসমানের মেয়ে শাবনুরকে তিনি তার বান্ধবী পারভীনের কাছে গৃহকর্মী হিসেবে দিয়েছিলেন। পরে পারভীনের সাথে শাবনুর চট্টগ্রামস্থ মাঈনুলের বাসায় বেড়াতে গেলে সেখান থেকে ১৮ জানুয়ারী নিরুদ্দেশ হয়। এ ব্যাপারে তিনিও উৎকণ্ঠায় রয়েছেন।