ব্যবসায়ীদের নির্ঘম রাত আনোয়ারার জমজমাট ঈদবাজার

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ৬ আগস্ট , ২০১৩ সময় ০৪:৫১ অপরাহ্ণ

সিদরাতুল মুনত্বাহা মুক্তি, আনোয়ারা,নিউজচিটাগাং২৪.কম>>
আনোয়ারার সবকটি ঈদের বাজারে জমে ওঠেছে বেচাকেনা। নিম্নবিত্ত থেকে শুরু করে উচ্চ মধ্যবিত্তের বস্ত্রসামগ্রী পাওয়ার anuকারণে অনেকেই আনোয়ারা থেকে সারছেন কেনা-কাটা। বেচাকেনা চলছে গভীর রাত পর্যন্তও।
সরেজমিন উপজেলার বটতলী-রুস্তমহাট, বন্দর কমিউনিটি সেন্টার, উপজেলা সদর, জয়কালী বাজার ও চাতরী চৌমুহনী বাজারে গিয়ে চোখে পড়ে সেখানে চলছে জমজমাট কেনাবেচা। এসব বাজারে সবচে বেশি চলছে বস্ত্রমামগ্রীর কেনাবেচা।
জানা গেছে, উপজেলার বটতলী রুস্তমহাটের হাজী ইমাম শপিং সেন্টারের ৩টি ইউনিটেই সবচে বশি কেনাবেচা। এ মার্কেটের দোকানগুলোতে পাওয়া যাচ্ছে সব বয়েসির কাপড়চোপড়। আর দোকানে দেড় থেকে দুই হাজার টাকায় জামদানী শাড়ী, এক থেকে ২০ হাজার টাকায় জর্জেট শাড়ি, ৫ শত থেকে ৫ হাজার টাকায় পাঞ্জাবি পাওয়া যাচ্ছে। তাছাড়া, বিভিন্ন দামে পাওয়া যাচ্ছে বালুচুড়ি, কাতান, লেহেঙ্গা, থ্রিপিচ, লেকমি, জলনূপুর, আনুশকা, লাচ্ছি, পাকিস্তানী ও ভারতীয় থ্রিপিচ। একই অবস্থা বন্দর সেন্টারের ইত্যাদি শপিং সেন্টার ও মা শপিং সেন্টারেও।
এদিকে, আনোয়ারা সদর, জয়কালি বাজার এবং উপজেলার চাতরী চৌমুহনী বাজারে ও জমে ওঠেছে বেচাকেনা। এসব বাজার থেকে বস্ত্রসামগ্রী ছাড়াও ক্রেতারা ঈদের জন্য কিনে নিচ্ছেন ঘর গেরস্থালীর প্রয়োজনীয় বাজার।
বটতলী রুস্তমহাটের ওয়ার্ল্ড ফ্যাশনের মালিক আবদুল হামিদ বলেন, এবার সব ধরনের কাপড়ের বেচাকেনা ভাল, তবে ভারতীয় কাপড়ের চাহিদা একটু বেশি।
একই মার্কেটের জুতো ব্যবসায়ী মো. আলমগীর বলেন, অন্যান্য বছরের চেয়ে এ বছর বেচাকেনা ভাল। আশা করছি এ বছর ভাল লাভ হবে।
আনোয়ারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হুমায়ুন কবির নিউজচিটাগাং২৪.কমকে বলেন, আনোয়ারাবাসীর ঈদের কেনাকাটা স্বচ্ছন্দ করতে এবং আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে সব ধরনের চেষ্ঠা চলছে। বিভিন্ন সড়কে ও পুলিশী টহল বাড়ানো হয়েছে।


আরোও সংবাদ