ব্যবসার ক্ষেত্রে কলকেঙ্কর টিপ পরিয়েছে হলমার্কের দুর্নীতি

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর , ২০১৩ সময় ১০:৩৪ অপরাহ্ণ

h markহলমার্কের দুর্নীতি ব্যবসার হলমার্কের দুর্নীতি ব্যবসার ক্ষেত্রে কলকেঙ্কর টিপ পরিয়ে দিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এসকে সুর চেৌধুরী।

বৃহস্পতিবার দুপুরে চট্টগ্রামে ব্যবসয়ী নেতাদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় বলেন, হলমার্কের এ দুর্নীতি না হলে বাংলাদেশের অর্থনীতি আরো সচল হতো। ব্যবসা বাণিজ্যের ক্ষেত্রে শর্ত আরো শিতিল হতো।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পলিসি ব্যবসা বান্ধব উল্লেখ করে বাংলাদেশ ব্যাংক কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, হলমার্কের দোহাই দিয়ে এলসি খোলার ক্ষেত্রে প্রকৃত ব্যবসায়ীদের হয়রানি করা যাবে না।

বৃহস্পতিবার ব্যবসা-বাণিজ্যে চট্টগ্রামের সমস্যা ও সম্ভাবনা নিয়ে চট্টগ্রামের ব্যবসায়ীদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এসকে সুর চেৌধুরী। সভায় চট্টগ্রাম চেম্বার, চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি, বিজিএমইএ, বিকেএমইএ প্রতিনিধি ও ব্যবসায়ীরা উপস্থিতছিলেন।

ব্যাংক ঋণের সুদের হার একক সংখ্যায় নামিয়ে আনা, বিদেশী ক্রেতাদের চাহিদা অনুযায়ী গার্মেন্টস শিল্পে কমপ্লায়েন্স বাস্তবায়নে সরকারি সহযোগিতা বৃদ্ধি, এসএমই খাতে সহজ শর্তে ঋণ প্রদানসহ ৫টি বাণিজ্যিক ব্যাংকের প্রধান কার্যালয় চট্টগ্রামে স্থাপনের দাবি জানিয়েছেন ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ।

এসময় আমদানি রফতানি বাণিজ্যে দ্রুত ব্যাংকিং সেবা পেতে বাংলাদেশ ব্যাংকের চট্টগ্রাম কার্যালয়কে আরও বেশি কার্যকর করার অনুরোধ জানান ব্যবসায়ীরা ।

সভায় এস কে সুর চৌধুরী বন্দরনগরী চট্টগ্রামকে বাংলাদেশের গোল্ডেন গেইটওয়ে উল্লেখ করে বলেন, হলমার্ক জালিয়াতির পর প্রকৃত ব্যবসায়ীরা আমদানি রফতানি বাণিজ্যের প্রয়োজনে ব্যাংকিং লেনদেনে হয়রানির শিকার হয়েছে। তবে বর্তমানে লোকাল এলসি কিংবা ব্যাক টু ব্যাক এলসি’র ক্ষেত্রে কোন সমস্যা হবে না বলে তিনি ব্যবসায়ীদের আশ্বস্থ করেন।

তিনি বলেন, রানা প্লাজা ধসের পর দেশের গার্মেন্টস শিল্প ইমেজ সংকটে পড়েছে। ব্যবসায়ীদের তৈরি পোষাক শিল্পে দেশের অর্থনীতির প্রয়োজনেই কমপ্লায়েন্স বাস্তবায়ন জরুরী। এজন্য ব্যবসায়ীদের পাশাপাশি সরকারও সচেষ্ট। সম্প্রতি জাইকা সরকারকে ১০০ মিলিয়ন ডলারের ঋণ সুবিধা দিচ্ছে। এই অর্থ দিয়ে স্বল্প সুদে গার্মেন্টস কারখানায় কমপ্লায়েন্স বাস্তবায়নে সরকার ঋণ দেবে বলে জানান তিনি।

সভায় সিসিসিআই সভাপতি মাহবুবুল আলম অর্থনীতির স্বার্থে বিনিয়োগবান্ধব মুদ্রানীতির প্রস্তাবনা করে বলেন, এসএমই খাতে ঋণ প্রদানের ক্ষেত্রে ব্যাংকগুলোর অনীহা রয়েছে।

দেশের প্রতিষ্ঠিত গার্মেন্টস ব্যবসায়ীরা হুমকির সম্মুখীন। তাই এই খাতকে বাঁচিয়ে রাখতে গার্মেন্টস ভিলেজ স্থাপন ও স্বতন্ত্র ফান্ড তৈরী করা জরুরী বলে মন্তব্য করেন তিনি। পাশাপাশি চট্টগ্রামে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ক্ষমতায়ন ও উধ্বর্তন কর্মকর্তার অবস্থানকালীন মেয়াদ বৃদ্ধি করাসহ বিভিন্ন বাণিজ্যিক ব্যাংকসমূহের প্রধান কার্যালয় স্থাপনের শর্তারোপ করার জন্য প্রস্তাব করেন।

সিএমসিসিআই সহ- সভাপতি একেএম মাহবুব চৌধুরী বলেন, বিদেশী শিপিং লাইনগুলো কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তদারকির অভাবে বছরে কয়েক হাজার কোটি টাকা অনুমোদনহীন ভাবে নিয়ে যাচ্ছে। এজন্য কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কঠোর মনিটরিং দাবি করেন তিনি।

মত বিনিময় সভায় বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক নির্মল চন্দ্র ভক্ত, বিজিএমইএ পরিচালক সাব্বির মোস্তফা, প্রাক্তন পরিচালক ইশতিয়াক রহমান, বিকেএমইএ’র শওকত ওসমান, খাতুনগঞ্জ ট্রেড এন্ড ইন্ড্রাস্ট্রিজ অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ছৈয়দ ছগীর আহমেদ বক্তব্য রাখেন।

অনুষ্ঠানের আগে ডেপুটি গভর্ণর বাংলাদেশ ব্যাংক আঞ্চলিক কার্যালয় প্রাঙ্গনে বাংলাদেশ ব্যাংক এমপ্লয়ীজ কো-অপারেটিভ সোসাইটি লিমিটেড ও ডাচ বাংলা ব্যাংকের যৌথ উদ্যোগে একটি এটিএম বুথ উদ্বোধন করেন। পরিয়ে দিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এসকে সুর চেৌধুরী।

বৃহস্পতিবার দুপুরে চট্টগ্রামে ব্যবসয়ী নেতাদের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় বলেন, হলমার্কের এ দুর্নীতি না হলে বাংলাদেশের অর্থনীতি আরো সচল হতো। ব্যবসা বাণিজ্যের ক্ষেত্রে শর্ত আরো শিতিল হতো।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পলিসি ব্যবসা বান্ধব উল্লেখ করে বাংলাদেশ ব্যাংক কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, হলমার্কের দোহাই দিয়ে এলসি খোলার ক্ষেত্রে প্রকৃত ব্যবসায়ীদের হয়রানি করা যাবে না।

বৃহস্পতিবার ব্যবসা-বাণিজ্যে চট্টগ্রামের সমস্যা ও সম্ভাবনা নিয়ে চট্টগ্রামের ব্যবসায়ীদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন বাংলাদেশ ব্যাংকের ডেপুটি গভর্নর এসকে সুর চেৌধুরী। সভায় চট্টগ্রাম চেম্বার, চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি, বিজিএমইএ, বিকেএমইএ প্রতিনিধি ও ব্যবসায়ীরা উপস্থিতছিলেন।

ব্যাংক ঋণের সুদের হার একক সংখ্যায় নামিয়ে আনা, বিদেশী ক্রেতাদের চাহিদা অনুযায়ী গার্মেন্টস শিল্পে কমপ্লায়েন্স বাস্তবায়নে সরকারি সহযোগিতা বৃদ্ধি, এসএমই খাতে সহজ শর্তে ঋণ প্রদানসহ ৫টি বাণিজ্যিক ব্যাংকের প্রধান কার্যালয় চট্টগ্রামে স্থাপনের দাবি জানিয়েছেন ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ।

এসময় আমদানি রফতানি বাণিজ্যে দ্রুত ব্যাংকিং সেবা পেতে বাংলাদেশ ব্যাংকের চট্টগ্রাম কার্যালয়কে আরও বেশি কার্যকর করার অনুরোধ জানান ব্যবসায়ীরা ।

সভায় এস কে সুর চৌধুরী বন্দরনগরী চট্টগ্রামকে বাংলাদেশের গোল্ডেন গেইটওয়ে উল্লেখ করে বলেন, হলমার্ক জালিয়াতির পর প্রকৃত ব্যবসায়ীরা আমদানি রফতানি বাণিজ্যের প্রয়োজনে ব্যাংকিং লেনদেনে হয়রানির শিকার হয়েছে। তবে বর্তমানে লোকাল এলসি কিংবা ব্যাক টু ব্যাক এলসি’র ক্ষেত্রে কোন সমস্যা হবে না বলে তিনি ব্যবসায়ীদের আশ্বস্থ করেন।

তিনি বলেন, রানা প্লাজা ধসের পর দেশের গার্মেন্টস শিল্প ইমেজ সংকটে পড়েছে। ব্যবসায়ীদের তৈরি পোষাক শিল্পে দেশের অর্থনীতির প্রয়োজনেই কমপ্লায়েন্স বাস্তবায়ন জরুরী। এজন্য ব্যবসায়ীদের পাশাপাশি সরকারও সচেষ্ট। সম্প্রতি জাইকা সরকারকে ১০০ মিলিয়ন ডলারের ঋণ সুবিধা দিচ্ছে। এই অর্থ দিয়ে স্বল্প সুদে গার্মেন্টস কারখানায় কমপ্লায়েন্স বাস্তবায়নে সরকার ঋণ দেবে বলে জানান তিনি।

সভায় সিসিসিআই সভাপতি মাহবুবুল আলম অর্থনীতির স্বার্থে বিনিয়োগবান্ধব মুদ্রানীতির প্রস্তাবনা করে বলেন, এসএমই খাতে ঋণ প্রদানের ক্ষেত্রে ব্যাংকগুলোর অনীহা রয়েছে।

দেশের প্রতিষ্ঠিত গার্মেন্টস ব্যবসায়ীরা হুমকির সম্মুখীন। তাই এই খাতকে বাঁচিয়ে রাখতে গার্মেন্টস ভিলেজ স্থাপন ও স্বতন্ত্র ফান্ড তৈরী করা জরুরী বলে মন্তব্য করেন তিনি। পাশাপাশি চট্টগ্রামে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের ক্ষমতায়ন ও উধ্বর্তন কর্মকর্তার অবস্থানকালীন মেয়াদ বৃদ্ধি করাসহ বিভিন্ন বাণিজ্যিক ব্যাংকসমূহের প্রধান কার্যালয় স্থাপনের শর্তারোপ করার জন্য প্রস্তাব করেন।

সিএমসিসিআই সহ- সভাপতি একেএম মাহবুব চৌধুরী বলেন, বিদেশী শিপিং লাইনগুলো কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তদারকির অভাবে বছরে কয়েক হাজার কোটি টাকা অনুমোদনহীন ভাবে নিয়ে যাচ্ছে। এজন্য কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কঠোর মনিটরিং দাবি করেন তিনি।

মত বিনিময় সভায় বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক নির্মল চন্দ্র ভক্ত, বিজিএমইএ পরিচালক সাব্বির মোস্তফা, প্রাক্তন পরিচালক ইশতিয়াক রহমান, বিকেএমইএ’র শওকত ওসমান, খাতুনগঞ্জ ট্রেড এন্ড ইন্ড্রাস্ট্রিজ অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ছৈয়দ ছগীর আহমেদ বক্তব্য রাখেন।

অনুষ্ঠানের আগে ডেপুটি গভর্ণর বাংলাদেশ ব্যাংক আঞ্চলিক কার্যালয় প্রাঙ্গনে বাংলাদেশ ব্যাংক এমপ্লয়ীজ কো-অপারেটিভ সোসাইটি লিমিটেড ও ডাচ বাংলা ব্যাংকের যৌথ উদ্যোগে একটি এটিএম বুথ উদ্বোধন করেন।